free hit counter
খেলা

উড়ন্ত আর্সেনালকে মাটিতে নামালো ইউনাইটেড

দলের হয়ে অভিষেকেই গোল পেলেন অ্যান্থোনি। গত ডিসেম্বরের পর এই প্রথম জোড়া গোলের দেখা পেলেন মার্কাস রাশফোর্ড। উড়তে থাকা আর্সেনালকে মাটিতে নামিয়ে এনে নিজেদের জয়ের ধারা ধরে রাখলো এরিক টেন হাগের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। 

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমে প্রথম পাঁচ ম্যাচে টানা জয় তুলে নিয়ে উড়ন্ত সূচনা করেছিলো আর্সেনাল। ষষ্ঠ ম্যাচে এসে ইউনাইটেডের মাঠে গিয়ে ৩-১ গোলের ব্যবধানে প্রথম পরাজয়ের স্বাদ পেলো মিকেল আর্তেতার দল। গানারদের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন বুকায়ো সাকো।



লিগের প্রথম দুই ম্যাচে হারের পর এই ম্যাচসহ টানা চার জয়ে ধারাবাহিকতা ধরে রাখলো রেড ডেভিলরা। বিগত তিন ম্যাচে টানা জয় তুলে নেয়া ইউনাইটেড এদিন মাঠে নেমেছিলো একাদশে একটি পরিবর্তন নিয়ে। লাল জার্সিতে এদিন অভিষেক হয় আয়াক্স থেকে এই মৌসুমে দলে যোগ দেয়া ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার অ্যান্থোনির। এদিকে, এই নিয়ে টানা চার ম্যাচ ইউনাইটেডের শুরু একাদশে জায়গা পাননি রোনালদো।

অভিষেকেই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে আলো ছড়ালেন ব্রাজিলিয়ান অ্যান্থোনি। ম্যাচের আট মিনিটে তার কল্যাণেই প্রথম সুযোগ পায় ইউনাইটেড। দুর্দান্ত ব্যাকহিল থেকে তার বাড়ানো ফ্লিক থেকে ডিয়েগো ডালোত ক্রস করেছিলেন দূরের পোস্টে। তবে সেই ক্রস থেকে নেয়া ভলি গোলপোস্টে রাখতে পারেননি ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন। ঠিক পরের মিনিটেই সুযোগ পেয়েছিলো আর্সেনালও, তবে বক্সের ভেতর থেকে বল বাইরে মারেন উইলিয়াম সালিবা।

মাত্র দুই মিনিট পর গোল প্রায় পেয়েই গিয়েছিলো আর্সেনাল। সাকার বাড়ানো থ্রু বল ইউনাইটেডের জালে জড়িয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড গ্যাব্রিয়েল মার্টিনেল্লি। তবে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে দেখা যায় আক্রমণের শুরুতে এরিকসেনকে ফাউল করেছিলেন মার্টিন ওডেগার্ড।

ম্যাচের ৩০ মিনিট পরপর দুবার মার্টিনেল্লিকে গোলবঞ্চিত করে ইউনাইটেডকে বাঁচান গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়া। প্রথমে বাইলাইনের কাছ থেকে নেয়া মার্টিনেল্লির শট তারপর ওডেগার্ডের ক্রস থেকেই তার নেয়া হেড আটকে দেন ইউনাইটেড গোলরক্ষক। 


ছবি- সংগৃহীত

৩৫ মিনিটে এসে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের দর্শকদের উল্লাসে মাতান অ্যান্থোনি। বক্সের ভেতর রাশফোর্ডের পাস থেকে বল পেয়ে বাঁ পায়ের শটে বল জালে জড়ান দলের হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা এই উইঙ্গার।

প্রথমার্ধ্ব শেষে ১-০ গোলের লিড নিয়েই বিরতিতে যায় ইউনাইটেড। বিরতি থেকে ফিরে আর্সেনালের আক্রমণের গতি বাড়ে। ম্যাচের ৫১ মিনিটে দুটি সুযোগ পেয়েও গোল করতে পারেনি আর্সেনাল। ৫৯ মিনিটে অ্যান্থোনির পরিবর্তে রোনালদোকে মাঠে নামান টেন হাগ। একটু পরেই সমতায় ফেরে আর্সেনাল। মার্টিন ওডেগার্ডের বাড়ানো বল থেকে বাঁ পায়ের শটে বল জালে জড়িয়ে ১-১ গোলে সমতা আনেন বুকায়ো সাকা। 

অবশ্য বেশিক্ষণ সমতা ধরে রাখতে পারেনি গানাররা। ৬৬ মিনিটেই ব্রুনো ফার্নান্দেজের বাড়ানো বল পেয়ে বক্সে ঢুকে গানার গোলরক্ষক রামসডেলকে পরাস্ত করে বল জালে জড়ান রাশফোর্ড। আরও মিনিট দশেক পর আবারও দৃশ্যপটে রাশফোর্ড। এবার এরিকসেনের কাছ থেকে বল পেয়ে ফাঁকা জালে বল জড়িয়ে দলকে ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে নেন এই ফরোয়ার্ড।

ম্যাচের শেষ সময়টা অবশ্য আর কোনো দলই উল্লেখযোগ্য কোনো সুযোগ পায়নি। টানা পাঁচ জয়ে উড়তে থাকা আর্সেনাল এই ম্যাচে হারলেও ৬ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে এখনও রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। আর সমান সংখ্যক ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড রয়েছে পাঁচ নাম্বারে।  

Source link