free hit counter
মালয়েশিয়ায় করোনা শনাক্তে ড্রোন ব্যবহার করছে
আন্তর্জাতিক

মালয়েশিয়ায় করোনা শনাক্তে ড্রোন ব্যবহার করছে

মালয়েশিয়ায় করোনা শনাক্তে যুক্ত করা হয়েছে ড্রোন। ভাইরাসের তাপমাত্রা শনাক্তে এ ড্রোন ব্যবহার করছে দেশটির আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। এদিকে সংক্রমণ নির্মূলে চলছে দুই সপ্তাহের কড়া লকডাউন। আর এ লকডাউনের মাঝেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার প্রয়োগ করতে ড্রোন ব্যবহার করবে বলেও পুলিশ সতর্ক করে দিয়েছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, মালয়েশিয়ার পুলিশ কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ব্যবস্থার অংশ হিসেবে উচ্চ তাপমাত্রার লোকদের শনাক্ত করতে ড্রোন ব্যবহার করছে।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বার্নামার উদ্ধৃতি দিয়ে দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ড্রোনগুলো ২০ মিটার উপরে উচ্চতর তাপমাত্রা শনাক্ত করতে পারে, কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করার জন্য একটি লাল আলো নির্গত করে। এদিকে ক্রমবর্ধমান প্রতিদিনের সংক্রমণ বন্ধ করার প্রয়াসে ১ জুন থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত কঠোর লকডাউনের আগে মে মাসের শেষদিকে সংখ্যা ছিল ৯ হাজারের এরও বেশি।

যদিও প্রতিদিনের শনাক্তের হ্রাস পেয়েছে, তবুও স্বাস্থ্য মহাপরিচালক নূর হিশাম আবদুল্লাহ সতর্ক করেছেন, নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর সিংহভাগই অপরিচিত মানুষের সঙ্গে মেশার কারণে। ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে সোমবার এক বিবৃতিতে নূর হিশাম আব্দুল্লাহ বলেছেন, এর অন্যতম কারণ হলো সম্প্রদায়ের নতুন রোগের উত্থান যার উচ্চরোগে আক্রান্ত হওয়া এবং মৃত্যুর হার রয়েছে।

এদিকে চলমান লকডাউন নিয়মের অধীনে, প্রতিটি পরিবারের কেবল দু’জন ব্যক্তিকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে অনুমতি দেয়া হয়েছে। লকডাউনে বন্ধ রয়েছে স্কুল এবং শপিংমলগুলো। খোলা রাখা হয়েছে উৎপাদন খাতের বেশিরভাগই। তবে কাজ পরিচালনা করা হচ্ছে অল্প কর্মীদের নিয়ে।

এর আগে মালয়েশিয়ার পুলিশ সতর্ক করেছে, তারা পূর্বের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাগুলো কার্যকর করতে ড্রোন ব্যবহার করবে, কিছু কিছু অঞ্চলের কর্মকর্তারা বলেছেন, লোকেরা নিয়ম অনুসরণ করছে তা নিশ্চিত করার জন্য তারা অবাক করে হোম ভ্রমণ করবেন। চীনা ভাইরাস প্রতিরোধের চেষ্টার অংশ হিসেবে গত বছর ড্রোন ব্যবহার করেছিল বলে জানা গেছে।

রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত গ্লোবাল টাইমসের পোস্ট করা একটি ভিডিও অনুসারে, ড্রোনগুলো হ্যান্ড সানাইটিসারের স্প্রে করতে এবং নাগরিকদের বাড়িতে থাকতে বলার জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল। ইনার মঙ্গোলিয়া অঞ্চলে চিত্রগ্রহণ করা একটি ভিডিওতে, একটি ড্রোন একটি প্রবীণ মহিলার উপরে চড়ে বেড়াচ্ছে, তাকে বলছে ‘হ্যাঁ, অ্যান্টি, এটি আপনার সাথে কথা বলছে ড্রোন। আপনার মুখোশ না পরে হাঁটতে হবে না।’

তেরেংগানু রাজ্যের পুলিশ প্রধান রোহাইমী মো. ওংধসা জানিয়েছেন, কর্মকর্তারা সম্প্রতি তাপমাত্রা পর্যবেক্ষণে ড্রোন ব্যবহার শুরু করেছেন। ‘যদিও আমাদের ১৫৭টি মনিটরিং দল রয়েছে, তারা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় চলে গেছে। জনসাধারণের স্থানে লক্ষণীয় ব্যক্তিদের শনাক্ত করাসহ তারা একসাথে প্রতিটি অবস্থান নিরীক্ষণ করতে সক্ষম বলে জানিয়েছেন রাজ্যের পুলিশ প্রধান। এদিকে সোমবার ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছেন ৮২ জন। এ নিয়ে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৩ হাজার ৪৬০ জন। একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ২৭১ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ২২ হাজার ৮৬ জন। সুস্থ হয়েছেন মোট ৫ লাখ ৩৪ হাজার ৩৫৭ জন।

সূত্র : জাগো নিউস ২৪

Related posts

ভারতে করোনার তাণ্ডবে টানা ৩ দিন মৃত্যু ৪ হাজারের বেশি

News Desk

বরিশালে করোনায় একদিনে ১৩ জনের মৃত্যু

News Desk

উইঘুরে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ করছে চীন: অ্যামনেস্টি

News Desk