free hit counter
আন্তর্জাতিক

ওদেসা বন্দরের কাছে আবারও মিসাইল হামলা রাশিয়ার

ধ্বংসাবশেষ সরিয়ে দেখা হচ্ছে।

দুইদিন আগেই দক্ষিণ ইউক্রেনের ওডেসা বন্দরের কাছে হামলা চালিয়েছিল রাশিয়ার সেনা। মঙ্গলবার ফের সেখানে লাগাতার মিসাইল হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার ভিডিও প্রকাশ করেছে ইউক্রেনের সেনা। সেখানে দেখা যাচ্ছে, একের পর এক বিস্ফোরণ হচ্ছে। ভেঙে পড়ছে ভবন।

ইউক্রেনের সেনার দাবি, ঘটনায় দুইটি বেসামরিক ভবনের বিপুল ক্ষতি হয়েছে। আশপাশের অঞ্চলেও বিস্ফোরণের প্রভাব পড়েছে। তবে প্রাণহানির কোনো খবর এখনো পর্যন্ত মেলেনি।

ইউক্রেনের সেনা ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়ে খবরটি প্রথম প্রকাশ করে। এরপর স্থানীয় প্রশাসন খবরের সত্যতা স্বীকার করে। রাতে দেশের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দৈনিক ভিডিওবার্তায় ফের মিসাইল হামলার ভিডিও প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, নিরাপরাধ মানুষদের উপর রাশিয়া যে আক্রমণ চালাচ্ছে তা আরো একবার স্পষ্ট হলো। আরো একবার প্রমাণিত হলো, রাশিয়া একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র। এদিন ফের বিশ্বের নেতাদের কাছে জেলেনস্কি আবেদন করেছেন, রাশিয়াকে সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হোক।

মার্কিন হাসপাতালে ইউক্রেনের সেনা পেন্টাগনের একটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে, বেশ কিছু দিন আগেই অ্যামেরিকা একটি চুক্তিতে সই করেছে। যাতে বলা হয়েছে, মার্কিন হাসপাতালে ইউক্রেনের আহত সেনাদের চিকিৎসা করা যাবে। বস্তুত, অ্যামেরিকার বাইরে জার্মানিতে ফ্রাঙ্কফুর্টের কাছে মার্কিন সেনাঘাঁটি আছে। সেখানে মার্কিন সেনা হাসপাতালও আছে। সেখানেই ইউক্রেনের আহত সেনাদের নিয়ে এসে চিকিৎসা করার কথা বলা হয়েছে।

তবে এখনো পর্যন্ত ইউক্রেনের কোনো সেনা সেখানে যায়নি বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে। তবে তাদের জন্য শয্যা তৈরি আছে বলে দাবি করেছে পেন্টাগন।

ক্রেনের গ্যাস কোম্পানি ঋণ খেলাপি হতে পারে ইউক্রেনের গ্যাস এবং তেল কোম্পানি নাফতোগ্যাস জানিয়েছে বিশ্ববাজারে তেল এবং গ্যাসের দাম শোধ করার ক্ষেত্রে ঋণখেলাপি হতে পারে তারা। এই প্রথম এমন ঘটনা ঘটবে বলে তারা জানিয়েছে। যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরে বিশ্ববাজার তাদের অতিরিক্ত সময় দিয়েছিল দাম মেটানোর জন্য। কিন্তু সেই সময়ের মধ্যেও তারা পুরো অর্থ দিতে পারবে না বলে জানিয়েছে।

বিশ্ব বাজারের কাছে সংস্থাটি জানিয়েছিল, প্রয়োজনে তাদের বন্ড ফ্রিজ করে রাখতে পারে বিশ্বের সংস্থাগুলি। কিন্তু তাতেও কেউ রাজি হয়নি বলে জানানো হয়েছে।

আরো জার্মান অস্ত্র এদিকে বার্লিন জানিয়েছে, আরো জার্মান অস্ত্র ইউক্রেনে পৌঁছে গেছে। দুইটি মার্স দুই রকেট লঞ্চার এবং তিনটি হাউইৎজার পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা। আগেই ইউক্রেনকে এই অস্ত্র দেওয়ার অঙ্গীকার করেছিল জার্মানি। নতুন অস্ত্রের মধ্যে বেশ কিছু অ্যান্টি এয়ারক্রাফট মিসাইলও আছে।

টিএপি

Source link