free hit counter
আন্তর্জাতিক

ইউক্রেনে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ২১

ইউক্রেনের দক্ষিণ ওডেসায় রুশ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শিশুসহ অন্তত ২১ জন নিহত হয়েছেন। ছবি: সংগৃহীত

ইউক্রেনের দক্ষিণ ওডেসায় রুশ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শিশুসহ অন্তত ২১ জন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা এ খবর নিশ্চিত করেন।

দক্ষিণ ওডেসায় শুধু সেরহিয়িভকা গ্রামের একটি ৯ তলা ভবনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত হয়েছেন ১৬ জন। ওই গ্রামেরই একটি হলিডে রিসোর্টে আরেক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শিশুসহ আরও পাঁচজন প্রাণ হারান। খবর বিবিসির।

গত কয়েকদিনে ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করেছে রাশিয়া। তবে রুশ বাহিনী বেসামরিক লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করছে- শুক্রবার আরেক দফা এমন অভিযোগ অস্বীকার করেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ।

সেরহিয়িভকা গ্রামের বাসিন্দা, ৬০ বছর বয়সী ইউলিয়া বন্ডার বলেন, আমরা তিনটি বিস্ফোরণের আওয়াজ শুনেছি। এখন দেখা যাচ্ছে বিনোদন কেন্দ্রটির কিছুই আর অবশিষ্ট নেই। এটা খুবই শান্ত একটা গ্রাম। আমরা কখনো চিন্তা করিনি যে এরকম হতে পারে।

ডিএসএনএস জানিয়েছে, শুক্রবার মধ্যরাত একটার দিকে সেরহিয়িভকা গ্রামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়। বিস্ফোরণের পর ৯ তলা ভবনে দমকল কর্মীদের উদ্ধারকাজের একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে তারা। এ হামলায় ছয়জন শিশুসহ মোট ৩৮ জন আহত হয়েছে।

ডিএসএনএসের একজন মুখপাত্র, মারিনা মার্টিনেঙ্কো, ইউক্রেনীয় টিভিকে জানান যে মিসাইল হামলার পর ভবনটির কাছের একটি দোকানেও আগুন জ্বালিয়ে দেয়া হয়। পরে দমকলকর্মীরা ঐ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই ভবনে অন্তত ১৫০ জন বাসিন্দা থাকতেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইউক্রেনের কর্মকর্তাদের ভাষ্য, রাশিয়ার যুদ্ধ বিমান থেকে তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছে। ওডেসার প্রাদেশিক কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র সেরহি ব্রাটচুক বলেন, ইউক্রেনে সাম্প্রতিক হামলায় সম্ভবত সোভিয়েত শাসনামলের এক্স-২২ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে রুশ বাহিনী।

শহরের মেয়র গেনাডি ত্রুখানভ বলেন, সেরহিয়িকভার কাছে সেনাবাহিনীর কোনো স্থাপনা কিংবা র‍াডার স্টেশন নেই। তবে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এর বিপরীত দাবি করছে। ক্রুখানভ মন্তব্য করেন, ওডেসার মানুষ ‘আরও রুশ হামলার ভয়ে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে’।

এদিকে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কার্যালয়ের প্রধান কর্মকর্তা আন্দ্রিই ইয়েরমাক মন্তব্য করেছেন, রাশিয়া ‘সন্ত্রাসীর’ মতো আচরণ করছে। তিনি বলেন, যুদ্ধক্ষেত্রে হারের জবাবে তারা বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা শুরু করেছে।

রাশিয়া এই মুহূর্তে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে যুদ্ধের দিকে মনোনিবেশ করলেও দেশটির সব অঞ্চলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা অব্যাহত রেখেছে।

ক্ষেপণাস্ত্র হামলা বাড়ছে

এই সপ্তাহের শুরুতে মধ্য ইউক্রেনের একটি শপিং মলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে রাশিয়া। যাতে অন্তত ১৯ জন প্রাণ হারান। কিয়েভ বলছে, মস্কো তাদের লং রেঞ্জ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার তীব্রতা বাড়িয়েছে, যার ফলে বেসামরিক স্থাপনায় আঘাত বেশি হচ্ছে। অপরদিকে, মস্কো কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, তারা শুধু সেনা স্থাপনাতেই হামলা করছে।

খাদ্য সংকটে ইউক্রেন

ইউক্রেন আশা করেছিল যে রুশ বাহিনী কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ স্নেক দ্বীপের দখল বৃহস্পতিবার ছেড়ে দেয়ার পর কৃষ্ণ সাগরে অবস্থিত ওই বন্দরের ওপর হামলার আশঙ্কা কমে আসবে।

রাশিয়া জানিয়েছে তারা ‘শুভেচ্ছার নিদর্শন’ হিসেবে স্নেক দ্বীপ ছেড়ে দিয়েছে যেন ওডেসা ও অন্যান্য ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে শস্য রপ্তানি বাধাগ্রস্ত না হয়। তবে রাশিয়ার এই দাবি প্রত্যাখ্যান করে ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা বলেছেন, মস্কো তাদের শস্যের গুদামগুলোতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো অব্যাহত রেখেছে।

ডি- এইচএ

Source link