free hit counter
জীবনী

Student fall sick: পরীক্ষা চলাকালীন অজ্ঞান পড়ুয়া, লেখা শেষ করতে বাড়তি আধ ঘণ্টা সময় দিল স্কুল

চলছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। হুগলির পাণ্ডুয়ায় পরীক্ষা দিতে দিতেই আচমকা অজ্ঞান হয়ে পড়লেন এক ছাত্রী। তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করানো হয়। ফিরে এসে আবার পরীক্ষা দেন তিনি। এ জন্য তাঁকে বাড়তি আধ ঘণ্টা সময় বরাদ্দ করে পাণ্ডুয়ার শশীভূষণ সাহা উচ্চ বিদ্যালয়।
. . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . .
মঙ্গলবার উচ্চমাধ্যমিকের রসায়ন পরীক্ষা দিতে পাণ্ডুয়ার শশীভূষণ উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন মৌমিতা রায়। পরীক্ষা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যে নিজের আসনে বসেই জ্ঞান হারিয়ে পাশে ঢলে পড়েন তিনি। হইচই পড়ে যায় পরীক্ষা কক্ষে। তড়িঘড়ি মৌমিতাকে পাণ্ডুয়া গ্রামীণ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর খানিক সুস্থ বোধ করলে মৌমিতা ফিরে আসেন স্কুলে। ফের বসেন পরীক্ষায়। স্কুল কর্তৃপক্ষ বিশেষ পরিস্থিতির কারণে মৌমিতাকে পরীক্ষা শেষ করতে বাড়তি আধ ঘণ্টা সময় দেন।

মৌমিতার বাবা জানিয়েছেন, মেয়ে আগেও এ ভাবেই কয়েক বার অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন। কী কারণে এমন হচ্ছে, তা বুঝতে পারছেন না তিনি। চিকিৎসা করিয়েও সুরাহা হয়নি বলেও দাবি তাঁর। রাজ্যের বিস্তীর্ণ অংশে প্রবল গরম। সেই কারণেই মৌমিতা অসুস্থ হয়ে পড়লেন কি না, তা এখনও জানা যায়নি। তবে এ কথাও সত্য যে, গরমের দাপটে অসুস্থের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে।