Image default
বাংলাদেশ

‘বিএনপির রোডমার্চে অংশ নিলে যশোরে ফিরতে দেওয়া হবে না’

সরকারের পদত্যাগ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে মঙ্গলবার ঝিনাইদহ-যশোর হয়ে খুলনা অভিমুখী রোডমার্চ করবে বিএনপি। এ রোডমার্চ কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া বিএনপি নেতাকর্মীদের আর যশোরে ফিরতে দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদার।

যশোর শহরের চৌরাস্তা মোড়ে সোমবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশে বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এ হুঁশিয়ারি দেন তিনি। বিএনপির আগুন-সন্ত্রাস, জ্বালাও-পোড়াও এবং পদযাত্রার বিরুদ্ধে এ শান্তি সমাবেশের আয়োজন করে জেলা আওয়ামী লীগ। 

সমাবেশে শাহীন চাকলাদার বলেন, রোডমার্চের নামে আগুন-সন্ত্রাসের চেষ্টা করলে কাল থেকেই খেলা শুরু হয়ে যাবে। যশোরের বিভিন্ন স্থান থেকে বিএনপি- জামায়াতের লোকজন বাড়ি ছেড়ে সমাবেশে যাচ্ছে। সমাবেশে গেলে আর যশোরে ফিরতে দেওয়া হবে না।

তিনি বলেন, ২০৪১ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকবে। ফলে লন্ডনে থাকা তারেকের কথা শুনে যশোরে বিশৃঙ্খলা করলে কিন্তু আপনারা বিপদে পড়বেন। আপনাদের নেতা কিন্তু বাঁচাবে না। যারা বিএনপির নেতাদের কথা শুনে ঢাকার সমাবেশে যোগ দিচ্ছেন, পদযাত্রা, রোডমার্চে অংশ নেবেন, তাদের আর যশোরে ফিরতে দেওয়া হবে না। আপনাদের বাড়ির পাশে কিন্তু অনেক আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর বসবাস। তারা কিন্তু আপনাদের বাড়িঘর সব চেনেন। ফলে পরবর্তী সময়ে কী ঘটবে, সেটা আর এখানে বললাম না। রোডমার্চে যশোরে যদি আগুন-সন্ত্রাস করেন, তারেক থাকবে লন্ডনে, আপনারা থাকবেন যশোরে। তারেকের কিছুই হবে না। ক্ষমতায় আপনারা যেতে পারবেন না। বিপদে আপনারাই পড়বেন। মামলা খেলে আপনারাই খাবেন। তারপরও যদি আপনারা ভালো হতে না চান, মার শুরু হবে, মার। শান্ত যশোরকে অশান্ত করার চেষ্টা করলে সত্যি সত্যি এবার আপনাদের মার দেওয়া ছাড়া উপায় নেই। যারা সমাবেশে যাচ্ছে, তাদের সম্পর্কে খোঁজ রাখতে বলেছি আমাদের নেতাকর্মীদের। 

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন। এতে প্রধান বক্তা হিসেবে শাহীন চাকলাদার আরও বলেন, আপনারা স্যাংশন, ভিসানীতির কথা বলছেন। আমাদের দুর্নীতির টাকা আমেরিকায় বসানো নেই, ভিসানীতির ভয়ও নেই। ভিসানীতিতে পড়েছে বিএনপির সন্ত্রাসীরা। বিএনপি-জামায়াত আন্দোলনের নামে সহিংসতার চেষ্টা করছে। তারা যদি হরতাল দেয়, যশোরে দোকানপাট খোলা থাকবে, গাড়ি চলবে, সবকিছু স্বাভাবিক থাকবে। কোনও দোকানপাটে আগুন দিলে ক্ষতিপূরণ দেবে জেলা আওয়ামী লীগ। কাজেই কারও কোনও ভয় নেই।

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম লিটন, যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব.) ডা. নাসির উদ্দিন, কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সামির ইসলাম পিয়াস, ইঞ্জিনিয়ার আরশাদ পারভেজ, মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ মাহমুদুল হাসান, ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ ও জেলা কৃষক লীগের সহসভাপতি ইয়াকুব আলী প্রমুখ।

Source link

Related posts

‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে রাজপথে রয়েছে বিএনপি’

News Desk

ঈদের সময় গণপরিবহন বন্ধ রাখা ও শ্রমিকদের ছুটি না দেওয়ার পরিকল্পনা

News Desk

সুনামগঞ্জে ফের বাঁধ ভেঙে তলিয়ে গেলো হাওরের ফসল

News Desk

Leave a Comment