রংপুরে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে অপর বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে হালিমা খাতুন (২৫) নামে একজন নার্স নিহত হয়েছেন। সোমবার রাতে মিঠাপুকুর উপজেলার দমদমা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার রংপুরের বড়দরগা হাইওয়ে পুলিশের এসআই আব্দুস সালাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত হালিমা খাতুন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সিনিয়র স্টাফ নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার রাত ৮টার দিকে চার বছরের মেয়ে সন্তানকে নিয়ে মিঠাপুকুরের বৈরাগীগঞ্জ থেকে মোটরসাইকেলে পীরগঞ্জে যাচ্ছিলেন। মোটরসাইকেলটি চালাচ্ছিলেন তার স্বামী মিজানুর রহমান। মোটরসাইকেলের সামনে শিশুসন্তান এবং হালিমা পেছনে বসেছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাস মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। হালিমা খাতুন ছিটকে পড়ে গেলে অপর একটি বাস তাকে চাপা দেয়। তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হন তার স্বামী ও সন্তান।

পুলিশ জানায়, নিহত হালিমার স্বামী মিজানুর রহমান বৈরাগীগঞ্জে বেসরকারি সংস্থা উদ্দীপনের শাখা ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত। হালিমার বাড়ি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার দেওতি হাউদারপার গ্রামে। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এ ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশের এসআই আব্দুস সালাম জানান, ঘাতক বাসটি আটক করা যায়নি। তাকে চিহ্নিত করে আটক করার চেষ্টা চলছে। আজ মঙ্গলবার ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় মিঠাপুকুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Source link

Related posts

সীতাকুন্ডে পুকুর ভরাটের দায়ে এক লাখ টাকা জরিমানা

News Desk

সোমবার পর্যন্ত সৌদিতে সব ফ্লাইট বন্ধ

News Desk

জাহাজে ওঠার পর কোরআনের সুরা শুনিয়ে দস্যুদের নিবৃত করা হয়

News Desk

Leave a Comment