Image default
বাংলাদেশ

নাটোরে কোরবানির গরু নিয়ে শঙ্কায় খামারিরা

আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে নাটোরের সিংড়ায় কোরবানির গরু বিক্রি করা নিয়ে খামারিরা যেমন শঙ্কায় আছেন তেমনি দুশ্চিন্তায় আছেন ক্রেতারাও। চলমান লকডাউনের কারণে এই শঙ্কা আর দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তারা।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের তথ্য মতে, এবছর সিংড়া পৌরসভাসহ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ছোট-বড় খামার এবং পারিবারিকভাবে প্রায় ৪১ হাজার গরু লালনপালন করে কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। তবে চলমান লকডাউনের কারণে এসব গরু সঠিক সময়ে ন্যায্য দামে বিক্রি করতে পারবেন কি-না এই শঙ্কায় রয়েছেন গরুর মালিকরা।

খামারিরা জানান, প্রতিবছর ঈদের ২০ থেকে ২৫ দিন আগে থেকেই ঢাকার ব্যবসায়ীরা খামার ও গরু মালিকের বাড়ি বাড়ি এসে দরদাম করে গরু কেনেন। এ বছর সেই কেনা-বেচা নেই। ঢাকার কোনো ব্যবসায়ীরাই এখন পর্যন্ত আসেননি।

উপজেলার পেট্রোবাংলা পয়েন্টের রুপন ডেইরি ফার্মের পরিচালক মাসুদ রানা বলেন, ‘আমার খামারে সিন্ধি, শাহিওয়াল, বার্মা ও দেশি জাতের ২১টি গরু আছে। আমি গরুর ছবি ও ভিডিওসহ অনলাইনে বিক্রির চাহিদা দিয়েছি। সেখানে এখন পর্যন্ত কোনো সাড়া পাইনি।’

কান্তনগর গ্রামের আনছার আলী বলেন, ‘আমার দুটি দেশি জাতের গরু আছে। বাড়িতে এসে স্থানীয় কয়েকজন দাম দর করে গেছেন। কিন্তু তারা যে দাম করেছেন বাজার মূল্যের অর্ধেক।

ডাহিয়া গ্রামের মুক্তার হোসেন বলেন, ‘প্রতিবছর আমরা স্থানীয়ভাবে কোরবানির পশুর হাটে গরু নিয়ে যাই এবং সেখানে দরদাম যাচাই-বাছাই করি। তার পর বাজার বুঝে বিক্রয় করি। এ বছর ওই হাট যদি না বসে তাহলে আমরা কোথায় বিক্রয় করবো?’

এদিকে ক্রেতাদের সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, অন্য বার হাটে অনেক গরু দেখে দরদাম করে মনের মতো গরু কেনা যেত। তবে এবার করোনার কারণে লকডাউনে পশুর হাট বন্ধ থাকায় দুশ্চিন্তায় আছেন তারাও।

তবে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. খুরশিদ আলম বলেন, ‘আমরা আজ থেকে প্রায় ১০ দিন আগে খামারিদের গরুর ছবি, নাম ঠিকানা, মোবাইল নম্বর দিয়ে সিংড়া অনলাইন কোরবানির পশুর হাট নামে ফেসবুক পেজে গরু বেচা-কেনার ব্যবস্থা করেছি। ইচ্ছে করলে যেকোনো ক্রেতা-বিক্রেতা এখানে চাহিদা মতো কেন-বেচা করতে পারবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিংড়া পৌরসভার কালীগঞ্জ বাজারে প্রতি সোমবার এবং রোববার কোরবানির পশুর হাট নিয়মিত বসবে। সেসব হাটে পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আমাদের প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের ভেটেরিনারি মেডিকেল টিমের ব্যবস্থা থাকবে। কাজেই কোরবানির গরু কেনা-বেচা নিয়ে আশা করি কোনো সমস্যা হবে না।

Related posts

বেড সংকটে হাসপাতালের মেঝেতে চিকিৎসা

News Desk

একে একে দগ্ধ তিন কন্যার মৃত্যু, বাকরুদ্ধ বাবা-মা  

News Desk

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যুবককে হত্যা

News Desk

Leave a Comment