Image default
বাংলাদেশ

চমক দেখাতে চান শফিউদ্দিন শামীম

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছেন এ জেড এম শফিউদ্দিন শামীম। ভোট সামনে রেখে এখন গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। দলীয় নির্বাচনি ইশতেহারের পাশাপাশি নিজ এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নকাজের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন ভোটারদের। একাধিক প্রতিদ্বন্দ্বী থাকলেও জয়ী হয়ে চমক দেখাতে চান নৌকা প্রতীকের এই প্রার্থী।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রথমবার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শফিউদ্দিন শামীম। এর আগে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী নজরুল। গতবার তাকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন হয়েছিল। কিন্তু এবার বাদ পড়েছেন। দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন শফিউদ্দিন শামীম। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে লড়ছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইরফান বিন তোরাব আলী, সাবেক সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির সাবেক নেতা নূরুল ইসলাম মিলন, গণফ্রন্টের মোহাম্মদ দুলাল মিয়া, ইসলামী ঐক্যজোটের মফিজ উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির মোজাম্মেল হক বশির, খেলাফতে আন্দোলনের আব্দুল আজিজ, জাকের পার্টির শরিফুল ইসলাম, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির আহসান উল্লাহ, বাংলাদেশ কংগ্রেসের হান্নান মিয়া এবং বাংলাদেশ ইসলামিক ফ্রন্টের মাসউদুল আলম।

দলীয় নেতাকর্মীরা বলছেন, এই আসনে আওয়ামী লীগের তিনটি গ্রুপ ছিল। এক গ্রুপের নেতৃত্বে ছিলেন সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী, আরেক গ্রুপের নেতৃত্বে ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মঈনুল ইসলাম। সবশেষ শফিউদ্দিন শামীমের পাশে ভিড়তে থাকেন নেতাকর্মীরা। শফিউদ্দিন নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার পর সব গ্রুপ এক হয়ে যায়। সংসদ সদস্য নাছিমুলের অনুসারী সব ইউপি চেয়ারম্যান এবং ইউপি সদস্যরা ঐক্যবদ্ধভাবে শামীমের ডাকে সাড়া দেন। এতে ভোটের মাঠে তার জয়ের রাস্তা সহজ হয়ে গেছে।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, দানবীর হিসেবে পরিচিত শিল্পপতি শফিউদ্দিন। দলমত নির্বিশেষে সবার উপকার করেছেন। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এসকিউ ফাউন্ডেশন গঠন করে করোনাকালীন জরুরি অক্সিজেন সেবা দিয়ে মানুষের মন জয় করেছেন। ওই সময় প্রত্যেক এলাকার মানুষকে বিনামূল্যে খাদ্য ও আর্থিক সহযোগিতা দিয়েছেন। নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার আগে রাজনীতির মাঠ গোছানোর সময় উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন, একটি পৌরসভার অসচ্ছল ব্যক্তিদের মাঝে অটোরিকশা, নারীদের সেলাই মেশিন ও প্রতি ওয়ার্ডে ভাতা দিয়ে সহযোগিতা করেছেন। এছাড়া ভূমিহীনদের জন্য নিজ উদ্যোগে বাসস্থানের ব্যবস্থা করেছেন। যার নাম দিয়েছেন শামীমপুর। ফলে যারা বিগত নির্বাচনগুলোতে অন্য দলের প্রার্থীকে ভোট দিয়েছিলেন তারাও এবার নৌকার এই প্রার্থীকে ভোট দেবেন।

জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী এ জেড এম শফিউদ্দিন শামীম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমার ওপর আস্থা রেখে নৌকা তুলে দিয়েছেন। আমি প্রধানমন্ত্রীকে নিরাশ করবো না। ইতোমধ্যে এখানে ভোটের উৎসব তৈরি করতে পেরেছি। সবাইকে নিয়ে ভোট উৎসব করবো আমরা। সব ভোটারকে কেন্দ্রে আসার আহ্বান জানিয়েছি।’ 

নিজ এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নকাজের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন ভোটারদের

আমার বিপরীতে ১০ জন প্রতিদ্বন্দ্বী আছেন উল্লেখ করে শফিউদ্দিন বলেন, ‘এই আসনে প্রার্থী বেশি থাকায় প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন হবে। এজন্য বেশি বেশি প্রচারণা চালাচ্ছি। আমার বিশ্বাস, বরুড়ার মানুষ কেন্দ্রে গিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে এই আসনটি প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেবেন। নির্বাচিত হলে আমার দলের দেওয়া নির্বাচনি ইশতেহারগুলো পূরণ করবো।’

প্রসঙ্গত, শফিউদ্দিন শামীম কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং কুমিল্লা সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপণন বিভাগ থেকে স্নাতক-স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। পরে যুক্তরাজ্যের ওয়েস্ট স্কটল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি শিক্ষাজীবন শেষে পারিবারিক ব্যবসায় যুক্ত হন। তার হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় দেশের অন্যতম শিল্পপ্রতিষ্ঠান এসকিউ গ্রুপ। এই গ্রুপের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠা করেছেন ২৩টি শিল্পকারখানা। এসব প্রতিষ্ঠানে ছয় হাজারের বেশি মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। 

 

Source link

Related posts

চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় ৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬১৬

News Desk

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত খালেদা জিয়া

News Desk

ঈদে পর্যটক বরণে প্রস্তুত হ্রদ-পাহাড়ের শহর

News Desk

Leave a Comment