Image default
বাংলাদেশ

গাজীপুরে বেতন-বোনাসের দাবিতে দ্বিতীয় দিনে পোশাকশ্রমিকদের বিক্ষোভ

গাজীপুর মহানগরীর জরুন এলাকায় বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবিতে কেয়া নিট কম্পোজিট পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কর্মবিরতি দিয়ে বিক্ষোভ করছেন। সকাল ৭টার দিকে শ্রমিকরা কোনাবাড়ী-কাশিমপুর আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে ১০টার দিকে শিল্পপুলিশ এসে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) দ্বিতীয় দিনেও তারা এ বিক্ষোভ করেন। বর্তমানে শ্রমিকরা কাজ বন্ধ করে কারখানার ভেতরে অবস্থান করছেন।

সোমবার (১ এপ্রিল) বিকালে আন্দোলনের মুখে শুধু কেয়া স্পিনিং মিলের শ্রমিকদের ঈদ বোনাস দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বকেয়া বেতনের দাবিতে তারা কর্মবিরতি অব্যাহত রাখেন।

শ্রমিকরা জানান, গত ফেব্রুয়ারি এবং মার্চ মাসের বেতন ও ঈদের বোনাস দেওয়া হয়নি। ২২ মার্চ বকেয়া ও বোনাস দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ তাদের কথা রাখেনি। শ্রমিকদের পাশাপাশি স্টাফদের বেতনও বেশ কয়েক মাস ধরে বাকি রাখা হয়েছে। কেয়া নিট কম্পোজিট লিমিটেডের কেয়া স্পিনিং মিলস, কেয়া কটন, কেয়া ইয়ার্ন মিলস, কেয়া নিট কম্পোজিট, কেয়া ডাইং অ্যান্ড নিটিং এবং কেয়া কসমেটিকস শাখার প্রায় ৮ হাজার শ্রমিক বিক্ষোভে অংশ নেন। গত দুই বছরের ছুটির টাকাও পরিশোধ করা হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে তারা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেছেন।

নারী শ্রমিক সালেহা আক্তার বলেন, ‘আমরা কাজ করতে এসেছি। আন্দোলন করতে আসিনি। পেটের ক্ষুধায় আন্দোলন করছি। বকেয়া বেতন, ঈদ বোনাস ও বাৎসরিক ছুটির টাকা না দেওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।’

শ্রমিক মারুফ জানান, আন্দোলন করার ফলে কেয়া স্পিনিং মিলস, কেয়া কটন, কেয়া ইয়ার্ন মিলসে ঈদ বোনাস দেওয়া হয়েছে। তবে কেয়া নিট কম্পোজিট (গার্মেন্টস), কেয়া ডাইং অ্যান্ড নিটিং এবং কেয়া কসমেটিকসে ঈদ বোনাস দেওয়া হয়নি। তাই আন্দোলন, বিক্ষোভ চলমান রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন স্টাফ বলেন, ‘বেতন চাইলেই চাকরি নাই। এজন্য আমরা আন্দোলন করতেও সাহস করি না। গত ছয় মাস যাবৎ বেতন পাচ্ছি না। আমরা কীভাবে চলবো?

গাজীপুর শিল্পপুলিশের কাশিমপুর জোনের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) দিপক চন্দ্র মজুমদার বলেন, ‘সোমবার থেকে কেয়া নিট কম্পোজিট পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বেতন ও বোনাসের দাবিতে আন্দোলন করছে। আমরা তাদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দিয়েছি। তবে তারা বলছে বকেয়া পরিশোধ না করলে আন্দোলন চালিয়ে যাবে।’

কেয়া নিট কম্পোজিট পোশাক কারখানার প্রশাসনিক কর্মকর্তা সুমন মিয়া জানান, কারখানা শ্রমিকরা ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন ও বোনাস পাবেন। তাদের বকেয়া বেতন-বোনাস দেওয়া হবে এবং গতকাল কিছু সেকশনে বোনাস দেওয়া হয়েছে।

Source link

Related posts

চট্টগ্রামে একদিনে ১৭ জনের মৃত্যু

News Desk

শত বছরের পুরনো মার্কেটে ঈদ কেনাকাটা জমজমাট

News Desk

করোনা নিয়ে কাদেরের কবিতা

News Desk

Leave a Comment