Image default
প্রযুক্তি

HTTP 404 Not Found কি? কীভাবে এর সমাধান করা যায়?

ওয়েবসাইট ব্রাউজ করার সময় সাধারণত যেসব অনলাইন এরোর দেখা যায় তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পরিচিত এরোরটি হচ্ছে 404 Not Found এরোর। ইন্টারনেট ব্যবহার করে, কিন্তু এই এরোরটি দেখেনি বা এর সম্পর্কে জানে না এ রকম মানুষ খুঁজে পাওয়া কষ্টকর হবে। তাই আপনিও হয়ত কোন না কোন সময় আপনার ফোন কিংবা কম্পিউটারে এই এরোরটি দেখেছেন। কিন্তু 404 Not Found Error কী? আর এর দ্বারা আসলে কী বোঝায় সেটি কি আপনি জানেন? কিংবা ভেবেছেন কী কীভাবে এটি সমাধানের চেষ্টা করা যায়?

404 সম্পর্কে আগে থেকে বিস্তারিত না জানাটাই স্বাভাবিক, তবে কোন চিন্তা নেই। আজকের এই লেখায় আমরা 404 Not Found এরোর সম্পর্কে জানার চেষ্টা করব। সেই সাথে দেখব কী কী উপায়ে এটি সমাধানের জন্য চেষ্টা করা যায়।

৪০৪ একটি HTTP বা Hyper Text Transfer Protocol এর প্রতিক্রিয়া সংখ্যা। ১৯৮৯ সালে স্যার টিম বার্নাস লি ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব (Www) আবিষ্কার করার আগে ছোট পরিসরের কম্পিউটার নেটওয়ার্ক এর হাইপারলিংকে থাকা তথ্য হালনাগাদ করা সহজ ছিল। কিন্তু ওয়েবে সারা বিশ্বের সব তথ্য হালনাগাদ রাখাটা বেশ কষ্টসাধ্য হয়ে দাঁড়ায়। অর্থাৎ কোনো তথ্য মুছে ফেললে অথবা সরিয়ে নিলে তা খুঁজে পাওয়াটা প্রায় অসাধ্য হয়ে ওঠে।

এধরনের সমস্যার জন্য 404 Not Found বা ৪০৪-পাওয়া যায়নি ছাড়াও আরো কিছু মেসেজ আমাদের কাছে আসতে পারে। যেমনঃ
– Error 404
– The requested URL [URL] was not found on this server
– Error 404 Not Found
– HTTP 404 Not Found
– 404 Page Not Found

404 Not Found Error কী?
সূত্র: wp.com

404 Not Found Error কী?
মূলত যখন সার্ভারে নেই এমন একটি পেজ দেখার জন্য ব্রাউজার থেকে সার্ভারে রিকোয়েস্ট পাঠানো হয়, তখনই সার্ভার 404 এরোরটি রিটার্ন করে। অর্থাৎ আমরা ব্রাউজারে কাঙ্ক্ষিত সেই পেজটি বদলে এই এরোর মেসেজটি দেখে দেখে থাকি। আগের পোস্টে আমরা জেনেছিলাম 403 Forbidden Error কী ও তার সমাধান সম্পর্কে বিস্তারিত আর এ লেখায় আমরা জানবো 404 Not Found Error ও তার সমাধান সম্পর্কে।

অনেক সময় বিভিন্ন ওয়েবসাইটে 404 এরোর মেসেজটি বিভিন্নভাবে দেখা যেতে পারে। ওয়েব ডিজাইনাররা নিজেদের পছন্দ বা রুচি মাফিক এর এরোর পেজটি ডিজাইন করে। কিন্তু সেই ভিন্নতা দেখে বিভ্রান্ত হওয়ার সুযোগ নেই।

পেজের ডিজাইন যাই হোক না কেন বা 404, 404 Recourse Not Found, Error 404, HTTP 404, 404 Not Found, error 404 Not Found, 404 Page Not Found, 404 File or Directory Not Found ইত্যাদি যাই লেখা থাক না কেন সেগুলো সব সময় একই অর্থ বহন করে। এইচটিএমএল স্ট্যাটাস কোড 404 দ্বারা সবসময়ই NOT FOUND অর্থাৎ কাঙ্ক্ষিত কন্টেন্ট খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না এই ক্রুটিকেই বুঝানো হয়। তাই 404 লেখাটি দেখামাত্রই একে NOT FOUND error বুঝে নেবেন।

কিভাবে ৪০৪ সংখ্যাটি এল?
সূত্র: technoinfobd.com

কিভাবে ৪০৪ সংখ্যাটি এল?
৪০৪-এর মত আরও প্রায় ডজন খানেক সংখ্যা রয়েছে, যেগুলোকে HTTP ‘প্রতিক্রিয়া সংখ্যা’ বলা হয়। হাইপারলিংকে ঢুকলে নেটওয়ার্কে তাদের প্রতিক্রিয়াকে বিভিন্ন সংখ্যায় প্রকাশ করা হয়। এক থেকে পাঁচ (যেমন, ১০১, ৫২০) পর্যন্ত সংখ্যা দিয়ে শুরু বিভিন্ন ‘প্রতিক্রিয়া সংখ্যা’ রয়েছে।

১ দিয়ে শুরু হওয়া সংখ্যাগুলো হাইপারলিংকের তথ্য,
২ হাইপারলিংকের সফলতা,
৩ হাইপারলিংকের ফেরত যাওয়া,
৪ হাইপারলিংকের ত্রুটি এবং
৫ দিয়ে শুরু হওয়া সংখ্যাগুলো হাইপারলিংকের সার্ভারের ত্রুটি নির্দেশ করে।
এর বাইরেও কিছু কম প্রচলিত প্রতিক্রিয়া সংখ্যাও রয়েছে।

কেন এ ধরনের ঘটনা ঘটে?
সূত্র: prestashop2.com

কেন এ ধরনের ঘটনা ঘটে?
আসুন এবার জেনে নেই কেন নেটওয়ার্ক থেকে এই ধরনের প্রতিক্রিয়া আমরা পেয়ে থাকি।

ভুল ঠিকানায় নক করলেঃ
আমি যদি কোন দিন নূরকে খুঁজতে গিয়ে রিয়ার বাসার দরজায় নক করি তবে কি হবে? নূরকে পাব? না, বরং বকুনি খেতে হতে পারে। তেমনি ইন্টারনেটে যখন আমরা ভুল ওয়েব অ্যাড্রেস বা ভুল URL দিয়ে সার্চ করি তখন সার্ভার আমাদের এই ধরনের মেসেজ দেয়।

ওয়েব পেজ সরিয়ে ফেলা হলেঃ
অনেক সময় দেখা যায় ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষ কাঙ্ক্ষিত পেজটি বা পুরো ওয়েবসাইটটি-ই সরিয়ে ফেলতে পারে কিন্তু তারা নতুন লিঙ্কটি আর রিডিরেক্ট (Ridirecting) করেনি। সেক্ষেত্রে আপনি কখনই সেটা খুঁজে পাবেন না। তখন এই ধরনের মেসেজ সামনে আসতে পারে।

সরকার নিয়ন্ত্রণ আরোপ করলেঃ
সরকার বা টেলিকমিউনিকেশন নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ চাইলে কোন নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজ দেশের ভেতর ব্লক করে দিতে পারে। যেমন বাংলাদেশে অনেক পর্ণ সাইট নিষিদ্ধ, এসব ক্ষেত্রে এই ধরনের অবস্থার সম্মুখীন হতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস এর নতুন কোন প্লাগইন ইনস্টলের কারনে:
সূত্র: kolkata24x7.com

ওয়ার্ডপ্রেস এর নতুন কোন প্লাগইন ইনস্টলের কারনে:
যারা নতুন প্লাগইন ইনস্টলের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস এর সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে সার্চ করে তারপর সরাসরি প্লাগইন ইনস্টল করে তাদের প্রায় সময় প্লাগইন ওয়ার্ডপ্রেস এর সাথে মিল না থাকার কারনে 404: Page Not Found বা সার্ভার সমস্যা হতে দেখা যায়। তাছাড়া অনেক সময় আপলোড করে ইনস্টল করার সময় প্লাগইন এ বাগ থাকার কারনেও এ সমস্যা দেখা দেয়। আবার যে সব প্লাগইন .htaccess ফাইলটিকে এডিট করার দরকার পড়ে সে সব প্লাগইন ইনস্টল করার সময় এ সমস্যায় বেশি পড়তে হয়।

404 Error সমাধানের জন্য আমরা কী কী করতে পারি?
পেজটি রিফ্রেশ করুনঃ
ইন্টারনেট বিষয়ক যে কোন সমস্যাতেই খুব সহজ এই কাজটি করা যায়। 404 এরোরটি দেখতে প্রথমেই পেজটি রিফ্রেশ করুন। কখনো কখনো সাময়িক কোন কারণে 404 ত্রুটিটি দেখা যেতে পারে, সেক্ষেত্রে পেজ রিফ্রেশ করলে কাজ হয়ে যায়।

অ্যাড্রেসটি পুনরায় চেক করুনঃ
এর আগে 400 এরোরটি নিয়ে আলোচনার সময় বলেছিলাম, লিংকে ক্লিক করে ভুল অ্যাড্রেসে যাওয়ার চেষ্টা করলে অর্থাৎ যে অ্যাড্রেসটির কোন অস্তিত্ব নেই সেরকম অ্যাড্রেসে যাওয়ার চেষ্টা করলে অবধারিতভাবে আপনি 404 এরোরটি দেখতে পাবেন। যেহেতু অ্যাড্রেসের ভুলই 404 এরোরটির মূল কারণ তাই এই ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে অ্যাড্রেসটি বারবার চেক করতে হবে। যদি ভুলটি ধরতে পারেন তাহলে সেটি সারিয়ে নিন, তারপর আবার ঢোকার চেষ্টা করুন।

সার্চ করে পেজটিকে খুঁজে বের করা চেষ্টা করুনঃ
সূত্র: hoicoibangla.com

সার্চ করে পেজটিকে খুঁজে বের করা চেষ্টা করুনঃ
ধরুন, আপনি কোন এক ওয়েবপেইজ থেকে সরাসরি অন্য একটা ওয়েবপেইজে যাওয়ার জন্য ঐ পেইজে থাকা একটি লিংকে ক্লিক করলেন। লিংকটির ভিতরে কোন ভুল নেই কিন্তু সেই লিংকটি আজ থেকে প্রায় বছখানেক ঐ পেজে বসানো হয়েছিলো। এর মধ্য টার্গেট পেইজের হয়ত লিংক অথবা ডিরেক্টরি চেঞ্জ করা হয়েছে কিন্তু আপনি যে লিংকটিতে ক্লিক করেছেন সেটা আগের মতোই অপরিবর্তিত অবস্থায় রয়েছে। সেক্ষেত্রে আপনি নিশ্চয়ই টার্গেট পেজ অর্থাৎ কাঙ্ক্ষিত পেজটি দেখতে পাবেন না, দেখবেন 404 Not Found লেখাটি।

এই ক্ষেত্রে যেটা করবেন সেটা হচ্ছে ঐ টপিকে সার্চ করা। এটা আপনার কাঙ্ক্ষিত ওয়েবসাইটের সার্চ বারেও করতে পারেন আবার গুগলে সেই সাইটের নাম লিখে তার পাশে টপিকটি লিখে সার্চ করতে পারেন। এর ফলে আপনি খুব সহজেই 404 এরোর এর ঝামেলা থেকে মুক্তি পাবেন।

ব্রাউজারে জমে থাকা ক্যাশ এবং কুকিজ ক্লিয়ার করুনঃ
সূত্র: hoicoibangla.com

ব্রাউজারে জমে থাকা ক্যাশ এবং কুকিজ ক্লিয়ার করুনঃ
ব্রাউজারে অনেক ধরে জমে থাকা ক্যাশ ডাটা অনেক বিদঘুটে সমস্যা তৈরী করে। অনলাইন এরোরগুলোর জন্য এসব ক্যাশ ডাটা এবং কুকিজ ডাটাগুলো ভূমিকা একেবারেই ফেলে দেওয়ার মতো নয়। তাই ক্লিয়ার করে নিতে পারেন ব্রাউজারের ক্যাশ এবং কুকিজ, এর জন্য অবশ্য কিছু ওয়েব সাইট লোড নিতে সামান্য সময় নিতে পারে এবং লগইন করে রাখা অ্যাকাউন্টগুলো লগ আউট হয়ে যাবে।

ডিএনএস সার্ভার ব্যবহার করুনঃ
DNS Server হল এমন একটা সার্ভার যেটা আমাদের IP (Internet Protocol) Address গুলো সংরক্ষণ করে। IP কি? আমরা যখন কোন ওয়েবসাইট কে দেখি বা চিনি, সেটাকে আমরা চিনি তার অ্যাড্রেস বা URL দিয়ে কিন্তু কম্পিউটার অক্ষর নয়, বুঝে সংখ্যা। যেমনঃ www.amazon.com এর আইপি অ্যাড্রেস হল- 72.21.215.90। অনেক সময় ISP (internet service provider) বা সরকার কোন সাইটকে ব্লক করে রাখতে পারে। সেক্ষেত্রে ভিন্ন DNS server ব্যবহার করে আপনি কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে যেতে পারেন।

প্লাগইন মুছে ফেলুনঃ
কোন প্লাগইন ইনস্টল দেয়ার পরে যদি 404 not found সমস্যার সম্মুখীন হল তবে .htaccess ফাইলকে এডিট করা বা আগের কোন ব্যাকআপ থাকলে সেখান থেকে .htaccess ফাইলটি রিস্টোর করতে হবে। এটাতে কাজ না হলে FTP/Control Panel থেকে ইনস্টল কৃত প্লাগইনটি মুছে দিন। আসা করি এতে কাজ হয়ে যাবে।

ওয়েবসাইটটির সাথে যোগাযোগ করুনঃ
সূত্র: ytimg.com

ওয়েবসাইটটির সাথে যোগাযোগ করুনঃ
যদি সব উপায় প্রয়োগ করেও কোন কাজ না হয়, তাহলে যোগাযোগ করুন ওয়েবসাইটের সাথে। বর্তমানে সব ওয়েবসাইটেরই সোশ্যাল এক্টিভিটি থাকে। তাই ফেসবুক বা টুইটারেই তাদের খুঁজে বের করে আপনার সমস্যাটি জানেতে পারবেন।

এমনও হতে পারে 404 Not Found এরোরটি দেখছেন সেটি ঐ ওয়েবসাইটের একটি সাময়িক সমস্যা। খুব জরুরি না হলে সেক্ষেত্রে দুই একদিন অপেক্ষা করে দেখতে পারেন সমস্যাটি সমাধান হয় কিনা। সাময়িক সমস্যা হলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এইসময়ের মধ্য তা সমাধান হয়ে যাবে।

সূত্রঃটেকনোইনফোবিডি, হৈচৈবাংলা

 

Related posts

ডিজিটাল ইনোভেশন কংগ্রেসে যোগ দিতে সিঙ্গাপুরে মোস্তাফা জব্বার

News Desk

নাসার সঙ্গে স্পেস এক্স-এর চুক্তি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে জেফ বেজোস

News Desk

ইলেকট্রিক গাড়ির চেয়ে কম দামে চলবে এই বিশেষ গরুর গাড়ি !

News Desk

Leave a Comment