free hit counter
খেলা

হলো না ২০০৭ ফিরে এলো ১৯৯২

প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপের আসর বসে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকায়। সেই বিশ্বকাপে ফাইনাল খেলেছিল এশিয়ার দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তান। শ্বাসরুদ্ধকর ফাইনালে পাকিস্তানকে ৫ রানে হারিয়ে প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপের শিরোপা জিতে ভারত। এরপর আর কোন বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হয়নি এই দু’দল। তবে এবারের টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে আবারও ভারত-পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিলো। তবে তা হতে দিলো না ইংল্যান্ড। টি-২০ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ভারতকে ১০ উইকেটে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে পৌঁছে গেছে ইংল্যান্ড।




এবারের টি-২০ বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে পাকিস্তান। ফলে রবিবার (১৩ নভেম্বর) মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত ফাইনালে শিরোপা জয়ের জন্য লড়বে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান।



বিশ্বকাপের ফাইনালে সর্বশেষ এই দু’দল খেলেছিল ১৯৯২ সালে। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ওয়ানডে ফরম্যাটের সেই বিশ্বকাপের ফাইনালে ইমরান খানের নেতৃত্বে ২২ রানে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পায় পাকিস্তান। এবারের বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত-পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিলে বেশ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে ক্রিকেটপ্রেমীরা। সবাই আরও একবার ২০০৭ সালের মতো ফাইনাল দেখতে মুখিয়ে ছিলো। 



তবে ভারতের বিপক্ষে সেমিফাইনালে মাঠে নামার আগেই ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার চেয়েছিলেন ভারত-পাকিস্তান ফাইনালের স্বপ্নে পানি ঢালতে। ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বাটলার বলেছিলেন, ‘ভারত-পাকিস্তান ফাইনাল ম্যাচ হোক এটা আমরা চাই না। ভারত যথেষ্ট শক্তিশালী দল। তবে আমরা তাদের ‘পার্টি’ নষ্ট করতে চাই।’ আর সেটিই করে দেখালেন ইংলিশ অধিনায়ক।



সেমিফাইনালে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে বিরাট কোহলি ও হার্দিক পান্ডিয়ার ফিফটিতে ভর করে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান সংগ্রহ করে ভারত। ১৬৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক জস বাটলার ও আলেক্স হেলসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ২৪ বল হাতে রেখে ১০ উইকেটের বড় জয়ে ফাইনালে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। জস বাটলার ৪৯ বলে ৮০ ও আলেক্স হেলস ৪৭ বলে ৮৬ রান করে অপরাজিত থাকেন। 



ফলে সত্যি সত্যিই ক্রিকেটপ্রেমীদের স্বপ্নে পানি ঢেলে দিলেন জস বাটলার। আর তাই এবারের টি-২০ বিশ্বকাপে ২০০৭ সালের মতো ভারত-পাকিস্তান নয় ১৯৯২ সালের মতো ইংল্যান্ড-পাকিস্তান ফাইনাল দেখতে হবে ক্রিকেটপ্রেমীদের। 

 

Source link

Bednet steunen 2023