free hit counter
খেলা

সাফের ইতিহাসে নতুন গল্প লেখা হবে: নেপাল কোচ

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম পাঁচ আসরের শিরোপাই গেছে ভারতের ঘরে। টানা পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত এবার বিদায় নিয়েছে সেমিফাইনাল থকে। কাল সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ষষ্ঠ আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ আর স্বাগতিক নেপাল। ভারত আগেই বাদ পড়ায় এবার নতুন চ্যাম্পিয়ন পেতে যাচ্ছে সাফ। নতুন সেই ইতিহাস লেখারই ইঙ্গিত দিলেন স্বাগতিক নেপালের কোচ কুমার থাপা।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) কাঠমুন্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে বিকেল সোয়া পাঁচটায় মুখোমুখি হবে স্বাগতিক নেপালের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। 



কালকের ফাইনালের আগে আজ সংবাদ সম্মেলনে এসে নেপালের কোচ কুমার থাপা বলেন, নতুন একটি ইতিহাসের সামনে আমরা দাঁড়িয়ে আছি। তাই আমরা সেই সুযোগ নষ্ট করতে চাই না। আমরা ভাল ফুটবল খেলে সেই গল্প লিখতে চাই।

টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে বিদায় দিয়েছে কুমার থাপার দল। ভারতকে হারানোর সেই উচ্ছ্বাস নিয়েই তিনি বলেন, ‘আমাদের সুযোগ ৯০ মিনিট। আমরা স্বাগতিক। কাপ এখানেই আছে। এখানেই রেখে দিতে চাই। দুই বছর এখানে ট্রফি এসেছে। আমি খুশি মেয়েদের সেমিফাইনালের খেলা দেখে। আমরা সর্বশক্তি দিয়ে আমাদের দেশেই ট্রফি রাখতে চেষ্টা করবো।’


কোচের মতো শিরোপা জিততে উন্মুখ নেপালের অধিনায়কও। ছবি- বাফুফে

ফাইনালের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘ইতিহাস লেখা হয় তা ভাঙ্গার জন্যই। বয়স ভিত্তিক খেলায় নেপাল হারলেও জাতীয় দলের খেলায় কিন্তু হেরেছে বাংলাদেশ। অবশ্য পেছনের কথা মনে করতে চাই না। দুদলই সেরা দল। খেলবেও সেরকম।’

কুমার থাপা আরও বলেন, ‘ইমোশন ইজ হায়ার দেন প্রেশার। নেপালের জনগণ ফুটবল নিয়ে খায়, ঘুমায়। তাদের উপস্থিতিতে ইমোশন কিংবা প্রেশার কাজ করবে না। তারা ভালো ফুটবল দেখবে আমাদের কাছ থেকে।’


রঙ্গশালায় কাল দুই অধিনায়কের লড়াইটা হবে এই ট্রফির জন্যই। ছবি- বাফুফে

এক প্রশ্নের জবাবে নেপালের কোচ বলেন, ‘সম্পর্ক (বাংলাদশের সঙ্গে) বন্ধুত্বের হতে পারে। তবে মাঠের খেলায় বন্ধুত্ব নেই। এখানে থাকে জেতার প্রতিদ্বন্দ্বিতা। আমরা সেটাই করবো।’

Source link