free hit counter
সঞ্জুর মহাকাব্যিক লড়াই ব্যর্থ করে থ্রিলার জয় পঞ্জাব কিংসের
খেলা

সঞ্জুর মহাকাব্যিক লড়াই ব্যর্থ করে থ্রিলার জয় পঞ্জাব কিংসের

দুই অধিনায়কের ধুন্ধুমার ব্যাটিং’য়ের সাক্ষী থাকল মুম্বই’য়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়াম। শতরানের ঝংকারে রাহুলকে পিছনে ফেললেও রাজস্থান রয়্যালসকে অল্পের জন্য স্মরণীয় জয় উপহার দিতে ব্যর্থ হলেন নব নির্বাচিত অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন। ২২২ রান তাড়া করতে নেমে তাঁর বিস্ফোরক ১১৯ রান বৃথা গেল। সঞ্জুর লড়াই ব্যর্থ করে থ্রিলার ম্যাচে রয়্যালসদের ৪ রানে হারাল পঞ্জাব।

ওয়াংখেড়েতে এদিন টস জিতে প্রথমে পঞ্জাব কিংসকে ব্যাটিং’য়ে আমন্ত্রণ জানায় রাজস্থান রয়্যালস। অধিনায়ক কেএল রাহুলের ৫০ বলে ৯১, দীপক হুডার ২৮ বলে ৬৪ এবং ক্রিস গেইলের ২৮ বলে ৪০। মূলত এই তিন ব্যাটসম্যানের ঝোড়ো ব্যাটিং’য়ে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে পাহাড়প্রমাণ ২২১ রান তোলে পঞ্জাব কিংস। দ্বিতীয় উইকেটে গেইলের সঙ্গে ৬৭ এবং তৃতীয় উইকেটে হুডার সঙ্গে জুটিতে ১০৫ রান তুলে পঞ্জাবকে রানের শিখরে পৌঁছে দেন অধিনায়ক কেএল রাহুল।

অন্তিম ওভারে শতরান হাতছাড়া করে চেতন শঙ্করিয়ার বলে ব্যক্তিগত ৯১ রানে ফেরেন রাহুল। জবাবে রেকর্ড রান তাড়া করে জয়ের লক্ষ্যে রয়্যালসদের শুরুটা একেবারেই ভালো হয়নি। প্রথম ওভারেই শূন্য রানে বেন স্টোকসকে ফিরিয়ে ঝটকা দেন মহম্মদ শামি। আরেক ওপেনার মনন ভোহরাকে ১২ রানে ফেরান অর্শদীপ। তবে তৃতীয় উইকেটে সঞ্জু স্যামসন-জোস বাটলারের ৪৫ রানের পার্টনারশিপে ভর করে ম্যাচে ফেরে রয়্যালস। যদিও ১৩ বলে দ্রুত ২৫ রানের ইনিংস খেলে আউট হন বাটলার।

তবে সঞ্জুর বাল্লা চলতেই থাকে। এরপর শিবম দুবেকে সঙ্গে নিয়ে ঝড় তুলে অর্ধশতরান সম্পন্ন করেন রয়্যালস অধিনায়ক। সঞ্জুর সঙ্গে জুটিতে ৬৩ রান যোগ করে ব্যক্তিগত ২৫ রানে ফেরেন দুবে। এরপর সঞ্জুর সঙ্গে ক্রিজে নেমে ঝড় তোলেন রিয়ান পরাগও। তবে ১১ বলে ২৫ রানের বেশি দীর্ঘায়িত হয়নি পরাগের ব্যাট। তেওয়াটিয়াকে সঙ্গে নিয়ে ৫৪ বলে অধিনায়কত্বের অভিষেকে শতরান পূর্ণ করেন সঞ্জু।

শেষ ২ ওভারে রয়্যালসদের দরকার ছিল ২১ রান। ১৯তম ওভারের প্রথম বলে ২ রানে আউট হয়ে হতাশ করেন তেওয়াটিয়া। সবচেয়ে দামী ক্রিস মরিস নামেন ক্রিজে। তবে ম্যাচ জেতানোর দায়িত্ব বর্তায় সঞ্জুর কাঁধেই। শেষ ২ বলে রয়্যালদের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৫ রান। অন্তিম ওভারের পঞ্চম বল মিড-অফে পাঠিয়েও রান নিতে অস্বীকার করেন রয়্যালস অধিনায়ক। কিন্তু অন্তিম বলে অর্শদীপকে ছয় হাঁকাতে গিয়ে আউট হন ট্র্যাজিক নায়ক সঞ্জু। ৪ রানে ম্যাচ জিতে যায় পঞ্জাব।

ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি শেষ ওভারে ১৩ রান ডিফেন্ড করে বল হাতে পঞ্জাবের নায়ক অর্শদীপ সিং। বিদেশি বোলারদের ব্যর্থতার ভিড়ে ৪ ওভারে ৩৩ রানে ২ উইকেট নিয়ে উজ্জ্বল মহম্মদ শামিও।

Related posts

আইপিএল ২০২১ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এর সম্পূর্ণ খেলোয়াড় তালিকা ও সম্ভাব্য একাদশ

News Desk

কেকেআরের আরেক খেলোয়াড় করোনা পজিটিভ

News Desk

এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে চেন্নাইয়ে আনা হয়েছে মাইক হাসি ও বালাজিকে

News Desk