free hit counter
মেসির জোড়া গোলে আরেকটি রেকর্ড
খেলা

মেসির জোড়া গোলে আরেকটি রেকর্ড

গোল পেতে পেতেও পাচ্ছিল না বার্সেলোনা। একের পর এক সুযোগ পর্যবসিত হচ্ছিল ব্যর্থতায়। কিন্তু বিরতির পর বার্সেলোনাকে আর ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি অ্যাথলেতিক বিলবাও। মাত্র ১২ মিনিটের মধ্যে চার গোল আদায় করে নিল রোনাল্ড কোমানের দল। খরা ঘুচিয়ে কোপা দেল রেতে চ্যাম্পিয়ন হলো লিওনেল মেসিবাহিনী।

আগের ম্যাচে কোপা দেলরে’র ফাইনালে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে হারিয়ে ঘুচেছে শিরোপাখরা। চনমনে বার্সেলোনার কাছে পাত্তাই পায়নি হেতাফে। বৃহস্পতিবার রাতে স্প্যানিশ লা লিগায় হেতাফেকে ৫-২ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বার্সেলোনা। জোড়া গোল করে আরেকটি রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন লিওনেল মেসি। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগে টানা ১২ মৌসুমে অন্তত ২৫ গোল করা প্রথম ফুটবলার এই আর্জেন্টাইন তারকা।

ন্যু ক্যাম্পে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই মেসির শট লাগে পোস্টে। গোলের আক্ষেপ শেষ হয় ছয় মিনিট পরই। সার্জিও বুস্কেটসের ডিফেন্সচেরা পাসে দলকে এগিয়ে নেন মেসি। দ্বাদশ মিনিটে ক্লেমোঁ লংলের আত্মঘাতী গোলে সমতায় ফেরে হেতাফে।

২৮তম মিনিটে প্রতিপক্ষের আত্মঘাতী গোলে আবারো লিড নেয় বার্সা। নিচ থেকে আক্রমণ সাজানোর চেষ্টায় থাকা হেটাফেকে চাপে রেখেছিলেন বার্সা ফরোয়ার্ডরা, সে চাপেই কিনা গোলরক্ষককে ব্যাকপাস দিয়েছিলেন সোফিয়ান চাকলা, গোলরক্ষক জায়গা ছেড়ে এগিয়ে এসেছেন তা না দেখেই। গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে বল জালে জড়ায়। ৩৩ মিনিটে আরো এক গোল মেসির। তার শট প্রথমে গোলপোস্টে লেগে ফিরে এলেও, ফিরতি সুযোগে তা জড়ায় জালে। ৩-১ গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগে টানা ১২ মৌসুম অন্তত ২৫ গোল করা প্রথম ফুটবলার হয়ে যান এই আর্জেন্টাইন তারকা।

বিরতির পরে হেতাফে ব্যবধান কমিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তোলার ইঙ্গিত দেয়। পেনাল্টি থেকে গোলটি করেন এনেস উনাল। এরপর বলের দখল বাড়িয়ে বার্সেলোনাকেই চাপে ফেলে দেয় সফরকারীরা। তবে ৮৪তম মিনিটে রোনালদ আরাউহোর গোলেই শেষ হয় সব রোমাঞ্চ। মেসির কর্নার থেকে দারুণ এক হেডারে গোল করেন উরুগুইয়ান ডিফেন্ডার। অনন্য মাইলফলক স্পর্শের ম্যাচটা মেসি স্মরণীয় করে রাখতে পারতেন হ্যাটট্রিক করে। ম্যাচের যোগ করা অঁতোয়ান গ্রিজম্যানকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় বার্সা। তবে নিঃস্বার্থ মেসি নিজে সেই পেনাল্টি না নিয়ে সুযোগ দেন ফ্রেঞ্চ সতীর্থকে। সফল স্পটকিকে চলমান লীগে নবম গোলের দেখা পান গ্রিজম্যান।

৩১ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে বার্সেলোনা। রিয়াল আর অ্যাটলেটিকোর চেয়ে কাতালানরা পিছিয়ে যথাক্রমে ২ ও ৫ পয়েন্টে, তবে দুই দলই মেসিদের চেয়ে ম্যাচ খেলেছে একটি বেশি।

Related posts

মেসির মন কেড়ে নিল আট বছরের বালিকা

News Desk

মাঠে নেমেই রেকর্ড গড়লেন মেসি

News Desk

রিয়াল সোসিয়েদাদকে ৪-২ গোলে হারিয়ে দুর্দান্ত জয় বার্সার

News Desk