free hit counter
খেলা

বুধবার আবারও ব্যাটিংয়ে নামবেন তামিম

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের শীর্ষ রান সংগ্রাহকের রেকর্ডটা তামিম ইকবালের দখলেই ছিল। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের ইনজুরির কারণে কয়েকটি টেস্ট মিস করেছিলেন এ বাঁহাতি ওপেনার। তখনই তাকে টপকে যান মুশফিকুর রহিম।

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে দারুণ অর্জনের দুয়ারে দাঁড়িয়ে তারা। টেস্টে দেশের হয়ে ৫ হাজার রানের মাইলফলকে পৌঁছে মুশফিকের প্রয়োজন ১৫ রান, তামিমের ১৯ রান। দুই বন্ধুর মধুর প্রতিযোগিতায় সফল হওয়ার সুযোগটা মুশফিকেরই বেশি। ৫৩ রান করে অপরাজিত তিনি। হাতের আঙুলে ক্র্যাম্প করায় বিশ্রামে আছেন তামিম। বুধবার (১৮ মে) চতুর্থ দিনে অপরাজিত থাকা মুশফিক-লিটন দাসের কেউ আউট হলেই হয়তো নামতে পারবেন তিনি।

মঙ্গলবার চা বিরতির পর আর মাঠে নামেননি তামিম। তার আগে ব্যাট হাতে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করেছেন বাঁহাতি এ ওপেনার। সাগরিকায় দাপুটে ব্যাটিংয়ে লঙ্কান বোলারদের শাসন করেছেন তিনি। চিরচেনা ব্যাটিংয়ে দশম টেস্ট সেঞ্চুরি করেছেন। ২৬ মাস পর সাদা পোশাকে তিন অংকের ঘর স্পর্শ করেছেন তিনি। এর আগে ২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছিলেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক।

দশম সেঞ্চুরিতেও প্রথম অর্জনের স্বাদ পেয়েছেন তামিম। কারণ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এটি তার প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি। অতীতে দেশটির বিপক্ষে ৭টি হাফ সেঞ্চুরি ছিল তার। গত বছরই লঙ্কা সফরে দুই টেস্টে দুইবার নব্বইয়ের ঘরে আউট হয়েছিলেন তামিম। সাগরিকায় আর ভুল করেননি। প্রতিপক্ষ হিসেবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই ১৩ টেস্টে এখন তামিমের সর্বোচ্চ রান ৯৫২ (১৭ মে পর্যন্ত)। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৯০৮ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।



দ্বিতীয় দিনের ৩৫ রান নিয়ে খেলতে নেমে মঙ্গলবার দিনের প্রথম ঘন্টায় হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন এই ওপেনার। শটসের বাহারে লাঞ্চের পর ১৬২ বলে সেঞ্চুরি পেয়ে যান তিনি। ৯৫ থেকে চার মেরে ৯৯ তে গিয়েছিলেন, পরে সিঙ্গেল নিয়ে ১০০ তে পৌঁছান।

অভিজ্ঞ এ ব্যাটার মাহমুদুল হাসান জয়ের সঙ্গে ওপেনিংয়ে গড়েছেন ১৬২ রানের জুটি। যা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের ওপেনিং জুটি। আগের সেরা ১১৮ রান, ২০১৭ সালে গলে সৌম্যকে নিয়ে এ জুটি গড়েছিলেন তামিমই।

চট্টগ্রামে প্রচন্ড গরমে হাঁপিয়ে উঠেছিলেন তামিম। ক্র্যাম্প করেছিল আঙুলের পেশি। ইনিংসের ৫৮তম ওভারে প্রথমবার এবং চা বিরতির আগের ওভারে দ্বিতীয়বার টান পড়েছিল হাতে। ব্যথা সয়ে ব্যাটিংটা চালিয়ে গেছেন। তবে চা বিরতির পর আর ফিরেননি তিনি।

অবশ্য বুধবার চতুর্থ দিনে তামিম আবারও ব্যাটিংয়ে ফিরবেন বলে আশাবাদী জেমি সিডন্স। তৃতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ বলেছেন, ‘দুই দিন ফিল্ডিং করে এবং এই গরমে ব্যাটিং করেছে। রানিং বিটউইন দ্য উইকেট, অনেক কঠিন। আমি বুঝেছি তার ক্র্যাম্প করেছে। রাতে বিশ্রাম ও পানীয় পানের পর আমি মনে করি কাল (বুধবার) সে ঠিক হয়ে যাবে।’

উইকেটে ব্যাটিংয়ের সময় ম্যাথুসের পথেই হেঁটেছেন তামিম। সিডন্স বলেন, ‘আজ (মঙ্গলবার) তামিম খুব শৃঙ্খলার সঙ্গে ব্যাটিং করেছে। সে তাড়াহুড়ো করেনি। সে আসলে ম্যাথুসের মতো করেছে আসলে। তখনই চার মেরেছে যখন তার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। সে আক্রমণ করেনি বোলারদের, তাকে আগে যেমন দেখেছি।’

Source link