free hit counter
খেলা

বিশ্বের সবচেয়ে দামি ১০ ফুটবলার, জায়গা পাননি নেইমার-মেসি

এই মুহূর্তে বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের তালিকা করলে নিশ্চিতভাবেই শীর্ষ তিনে থাকবেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। তাকে দলে পাওয়ার জন্য গত কয়েক বছর ধরেই চেষ্টা করে আসছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছে তারা। সর্বশেষ এবার সম্ভাব্য সব রকমের চেষ্টাই করে চ্যাম্পিয়নস লিগ ও লা লিগা বিজয়ীরা। কিন্তু আরও তিন বছরের জন্য পিএসজিতে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফরাসি স্ট্রাইকার।

বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে প্যারিসের সঙ্গে নতুন চুক্তি করেছেন এমবাপ্পে। সেটি সহ সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স ও বয়স মিলিয়ে এই মুহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলারে পরিণত হয়েছেন পিএসজি তারকা। তার বাজার মূল্য ২০৫.৬ মিলিয়ন ইউরো বা ২১৯.৫ মিলিয়ন ডলার। এক রিপোর্টে এ তথ্য জানিয়েছে সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিআইইএস ফুটবল অবজারবেটরি।

এ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে জায়গা পেয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ভিনিনিয়ুস জুনিয়র। তার বাজার মূল্য ১৮৫.৩ মিলিয়ন ইউরো। তৃতীয় স্থানে রয়েছেন সদ্যই বুরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে ম্যানচেস্টার সিটিতে নাম লেখানো আর্লিং হরলান্ড। নরওয়েজিয়ান তারকার বর্তমান বাজার মূল্য ১৫২.৬ মিলিয়ন ইউরো।



তালিকায় শীর্ষ দলে জায়গা পাওয়া বাকি ফুটবলাররা হলেন- বার্সেলোনার স্প্যানিশ মিডফিল্ডার পেদ্রি (১৩৫.১ মিলিয়ন ইউরো), বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডের ইংলিশ মিডফিল্ডার জুড বেলিংহাম (১৩৩.৭ মিলিয়ন ইউরো), ম্যানচেস্টার সিটির ইংলিশ মিডফিল্ডার ফিল ফোডেন (১২৪ মিলিয়ন ইউরো), বার্সেলোনার ডাচ মিডফিল্ডার ফ্রাঙ্কি ডি জং (১১২.৫ মিলিয়ন ইউরো), লিভারপুলের কলম্বিয়ান উইঙ্গার লুইস ডিয়াজ (১১০ মিলিয়ন ইউরো), ম্যানচেস্টার সিটির পর্তুগিজ সেন্টার-ব্যাক রুবেন ডায়াস (১০৯.৬ মিলিয়ন ইউরো) ও বার্সেলোনার স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড ফেরান তোরেস (১০৯.৫ মিলিয়ন ইউরো)।

তবে এখনো সর্বোচ্চ বাজার মূল্যের রেকর্ডটি এমবাপ্পের পিএসজি সতীর্থ নেইমারের দখলে রয়েছে। ২০১৭ সালে বার্সেলোনা থেকে ২২২ মিলিয়ন ইউরো ট্রান্সফার মূল্যে প্যারিসে নাম লেখান ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। কিন্তু দামি ফুটবলারের তালিকা তৈরি করার ক্ষেত্রে সিআইইএস ফুটবল অবজারবেটরি বিবেচনা করেছে বয়স, বর্তমান পারফরম্যান্স, ক্যারিয়ার গ্রাফ, চুক্তির সময়সীমা। তাই শীর্ষ দশে নেইমারের জায়গা হয়নি। একই অবস্থা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বেলায়ও।

Source link