free hit counter
খেলা

বাবরের রেকর্ডের রাতে পাকিস্তানের হার

জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত হয়ে যেত পাকিস্তানের। বাবর আজমের ৫৯ বলে অপরাজিত ৮৭ রানের অসাধারণ এক ইনিংসে ইংল্যান্ডকে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্যই দিয়েছিল তারা। আগের দুই ম্যাচে এর চেয়ে কম রান করেই জিতেছিল বাবরের দল।

তবে লাহোরে ফিল সল্টের বিধ্বংসী এক ইনিংসে পাকিস্তানের ৬ উইকেটে ১৬৯ রানের স্কোরটা হয়ে গেল ‘অনেক ছোট’! ৪১  বলে ১৩ চার ও ৩ ছক্কায় অপরাজিত ৮৮ রানের ইনিংস খেলে ইংল্যান্ডকে ৮ উইকেটের জয় এনে দিয়েছেন সল্ট।

https://www.linkedin.com/pulse/hsf-exeter-vs-st-timberlane-live-hs-football-games-30th-https://www.linkedin.com/pulse/hsf-goffstown-vs-nashua-north-live-hs-football-games-30th-https://www.linkedin.com/pulse/londonderry-vs-manchester-central-live-footbal-30th-sep2022-https://www.linkedin.com/pulse/nashua-south-vs-bedford-live-footbal-30th-sep2022-broadcast-free

https://www.linkedin.com/pulse/belmont-gilford-vs-laconia-live-footbal-30th-sep2022-broadcast-free

https://www.linkedin.com/pulse/salem-vs-pinkerton-live-footbal-30th-sep2022-broadcast-free

 

রান তাড়ায় চার মেরেই ইংল্যান্ডের ইনিংস শুরু করেন সল্ট। প্রথম ওভারেই ইংলিশরা করে ১১ রান। দ্বিতীয় ওভারে রীতিমতো রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন দুই ইংলিশ ওপেনার। শাহনেওয়াজ দাহানির এই ওভারে আসে ২২ রান।

ফেরার আগে ১১ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় ২৭ রান করেন হেলস। অন্য প্রান্তে অবশ্য ব্যাটিং–ঝড় থামাননি সল্ট। নওয়াজের করা ইনিংসের পঞ্চম ওভারে ১৯ রান যোগ করে ইংল্যান্ডকে পৌঁছে দেন ৭৪ রানে। ১৯ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় ২৬৩.২ স্ট্রাইক রেটে ফিফটিতে পৌঁছান সল্ট। যা টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের তৃতীয় দ্রুততম ফিফটি।

৭ ওভারে শেষেই তিন অঙ্কে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। ২৬ রান করে ম্যালান ফিরলেও দলকে জয়ের পথে নিয়ে যান সল্ট। শেষ পর্যন্ত দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন তিনি। সল্টের অপরাজিত ইনিংসটির স্ট্রাইক রেট ২১৪.৬৩। শেষ দিকে ঝড়ের গতি না কমালে স্ট্রাইক রেটটা আরও বেশি হতে পারত।

এর আগে অন্য প্রান্তে ঠিকঠাক সঙ্গ না পেলেও পাকিস্তানকে পথ দেখান অধিনায়ক বাবর। ইনিংসের আদ্যোপান্ত ব্যাট করে দলকে এনে দেন লড়াইয়ের পুঁজিও। এদিন দ্রুততম ৩ হাজার রানের মাইলফলক গড়ার পথ ছুঁয়েছেন বিরাট কোহলিকে। দুজনই এই কীর্তি গড়েন ৮১ ইনিংসে।

তবে সল্ট-ঝড়ে ম্লান হয়ে যায় বাবরের ৭ চার ও ৩ ছয়ে সাজানো ইনিংসটি। ৩৩ বল হাতে রেখে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ জিতে নেয় ইংল্যান্ড। এ জয়ে ৭ ম্যাচের সিরিজে ৩-৩ সমতায় ফিরেছে ইংলিশরা। রোববার সিরিজের শেষ ম্যাচটি এখন অলিখিত ফাইনাল।

Bednet steunen 2023