Image default
খেলা

তিন ফরম্যাটে এক অধিনায়ক বাস্তবসম্মত নয়: কামিন্স

ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটের দলের  জন্য  একজন অধিনায়ক রাখার নীতিকে বাস্তবসম্মত বলে মনে করছেন না অস্ট্রেলিয়া টেস্ট অধিনায়ক প্যাট কামিন্স। অজি নেই পেসারের এমন চিন্তার কারণ অবশ্য অ্যারন ফিঞ্চ। এতোদিন অস্ট্রেলিয়ার রঙিন জার্সির দায়্যিত্ব সামলেছেন ফিঞ্চ। তবে নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষে ফিঞ্চ অবসর নেওয়ায় গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে সাদা পোশাকের অধিনায়ক কামিন্সের ওপরই পড়তে যাচ্ছে ওয়ানডের দায়িত্ব। 

ওয়ানডে থেকে অবসর নিলেও অজিদের হয়ে সামনের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন ফিঞ্চ, সেখানে অধিনায়কত্বও করবেন তিনি। তবে বিশ্বকাপ শেষেই অবসর নিতে পারেন টি-টোয়েন্টি থেকেও। এমন হলে তখন টি-টোয়েন্টির দায়িত্ব নিয়েও ভাবতে হবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে। সেখানেও সবার সামনে আসছে প্যাট কামিন্সের নামই। কিন্তু ব্যস্ত সূচির কারনে তিন ফরম্যাটে একজনই অধিনায়ক থাকার ব্যাপারটা বাস্তবসম্মত নয় বলেই জানান কামিন্স।

ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার আর স্টিভেন স্মিথও। ওয়ার্নার নিজে থেককে অধিনায়ক হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ তার ওপর রয়েছে অধিনায়কত্বের নিষেধাজ্ঞা। স্মিথের নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলেও সে নিজে অধিনায়কত্ব নিতে রাজি কিনা সেটি স্পষ্ট নয়। এমন অবস্থায় কামিন্সের দিকেই সবার নজর পড়ছে বেশি। 



কামিন্সের ওপর সবার নজর পড়ার আরেকটি কারণ হচ্ছে সাদা পোশাকে তার নেতৃত্ব। অধিনায়ক হিসেবে ক্যাঙ্গারুদের সাফল্যের বেড়াজালে মুড়িয়ে রেখেছেন তিনি। ঘরের মাঠে অ্যাশেজের পর অ্যাওয়ে সিরিজে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয় আছে কামিন্সের। শ্রীলংকার মাটিতে জিততে না পারলেও দুই ম্যাচের সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করে অজিরা।

আন্তর্জাতিক ব্যস্ত  সূচি পরিকল্পনামফিক পরিচালনা করা গেলে তবেই তিন ফরম্যাটে অধিনায়কত্ব সম্ভব। তিনি বলেন, ‘সব ফরম্যাটে ও প্রত্যেক ম্যাচে দায়িত্ব নিতে যাওয়া আমি মনে করি না বাস্তবসম্মত। বিশেষ করে একজন পেস বোলার হিসেবে। আমি মনে করি বিশ্রাম নেওয়ার সময় বের করা উচিত। তবে হ্যা, আমি মনে করি এটি পরিচালনা করা সম্ভব।’

তিনি আরও বলেন, ‘এটা এমন কিছু নয়, যা নিয়ে আমি সত্যিই ভাবছি। আমি টেস্ট দলের নেতৃত্ব নিয়েই দারুণ খুশি। এটি নিয়ে তাড়াহুড়া করে তাদের কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত, এমনটা আমি মনে করিনা।’


টেস্ট নেতৃত্ব দিয়ে ইতোমধ্যে দলের সবার আস্থা জিতে নিয়েছেন কামিন্স। ছবি- ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া

কামিন্স আরও জানান, ‘যদি কোন পেসার  নেতৃত্ব পায়, তবে সহ-অধিনায়ককে বাড়তি দায়িত্ব নিতে হতে পারে। এছাড়া ওয়ার্কলোড ম্যানেজমেন্ট নীতি রাখতে হবে।

তিনি বলেন, ‘যদি কোনও বোলার নেতৃত্ব পায়, তাহলে অন্য ফরম্যাটে আপনি কোনটা আগে খেলবেন, সেটি নিয়েও ভাবতে হবে। সহ-অধিনায়ক রাখা যেতে পারে। একজন উইকেটরক্ষক বা একজন ব্যাটারকে।’

অজিদের টেস্ট অধিনায়ক আরও বলেন, ‘তবে আমরা যা দেখে বড় হয়েছি, তা অনেকটাই বদলে গেছে। অধিনায়করা আগে একভাবে দল পরিচালনা করতো, তবে এখন সূচিতে খেলা অনেক বেড়ে গেছে। ব্যাপারগুলোকে এখন ভিন্নভাবে দেখতে হবে। নির্ভর করে আপনার পরিকল্পনা সাজানোর ওপর।’

Source link

Related posts

মাতাল অবস্থায় স্ত্রীকে মারধর করে বিপদে কাম্বলি

News Desk

আইপিএলে দল পেলেন এলিস

News Desk

আর্জেন্টিনার অপেক্ষার শেষ নাকি ফ্রান্সের ইতিহাস?

News Desk

Leave a Comment