free hit counter
তামিম-শান্তদের ব্যাটিংয়ে খুশি নান্নু
খেলা

তামিম-শান্তদের ব্যাটিংয়ে খুশি নান্নু

১২ এপ্রিল দেশ ছেড়ে শ্রীলঙ্কায় ৩ দিনের কোয়ারেন্টাইন। এরপর দুই দিন অনুশীলন শেষে দুই দিনের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ। যেখানে নিজেদের প্রতিপক্ষ নিজেরাই। এই প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথন দিন আজ (শনিবার) ভাগ হয়ে মাঠে নেমেছে তামিম ইকবালের লাল দল ও মুমিনুল হকের সবুজ দল। প্রথম দিনের দ্বিতীয় সেশনের খেলা শেষে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানালেন, মূল ম্যাচের আগে প্রস্তুতিতে সন্তুষ্ট তারা।

শ্রীলঙ্কা থেকে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় নান্নু বলেন, ‘উইকেট এবং যে হিউমিড এখানে তার সাথে পুরোপুরি অভ্যস্ত হওয়ার জন্য খেলোয়াড়দের এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। দুইদিনের ম্যাচের প্রথমদিন আমরা শেষ করতে যাচ্ছি আজ। আমার মনে হয় খেলোয়াড়েরা যথেষ্ট অভ্যস্ত হয়েছে কন্ডিশন ও উইকেটের সাথে। এবং যথেষ্ট ভালো অনুশীলন হয়েছে। আমাদের টপ অর্ডাররা ভালো ব্যাটিং করেছে। সব মিলিয়ে আমি বলবো এটা খুব ভালো প্রস্তুতিতে সহায়তা করছে।’

দুই সেশনের ফল বলছে ব্যাটসম্যানররা ভালো প্রস্তুতিই সেরেছেন। তামিম ৬৩ রান করে স্বেচ্ছা অবসরে গেছেন। ফিফটির স্বাদ পেয়েছেন সাইফ হাসান ও নাজমুল হোসেন শান্ত। তামিমের মতো সাইফও ৫২ রানে অবসরে গেছেন। শান্তর সঙ্গে রান পেয়েছেন মুশফিকুর রহিমও। তবে নান্নু জানান, কাতুনায়েকের উইকেটে প্রথম ঘণ্টা ব্যাটসম্যানদের জন্য বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল।

নান্নু বলেন, ‘উইকেটের যে কন্ডিশন ছিল প্রথম ঘণ্টায় ব্যাটিং করা কঠিন ছিল। আমাদের ওপেনার তামিম, সাইফ এরা ট্রেমেন্ডাস ব্যাটিং করেছে। শান্ত, মুশফিক ট্রেমেন্ডাস ব্যাটিং করেছে। বোলাররাও যথাসাধ্য চেষ্টা করেছে অভ্যস্ত হওয়ার জন্য। আমার বিশ্বাস এই অনুশীলনে ম্যাচ থেকে আমরা যথেষ্ট ভালো কিছু ফিডব্যাক পেয়েছি।’

বোলাররা চেষ্টা করলেও সফলতার মুখ দেখেননি। লাল দলের কোনো ব্যাটসম্যানকেই আউট করতে পারেননি এবাদত হোসেন, শরিফুল ইসলাম, নাঈম হাসানরা। এমনকি হাত ঘুরিয়েছেন অধিনায়ক মুমিনুলও, সাফল্য আসেনি তাতেও। এসব নিয়ে অবশ্য ভাবছেন না নান্নু। তার বিশ্বাস, বোলাররা খুব তাড়াতাড়ি অভ্যস্ত হতে পারবেন। মূল লড়াইয়ের জন্য এই প্রস্তুতি যথেষ্ট কাজে লাগবে।

নান্নুর বলছিলেন, ‘এখানে অনুশীলন ম্যাচে বোলারদের জন্য খুব কঠিন একটা সেশন গিয়েছে। যে উইকেট ও কন্ডিশন, বাউন্স যথেষ্ট ভালো, যেহেতু এটা অনেকটা ফ্ল্যাট ট্র্যাকের মতো। হয়তো টেস্টেও এরকম কন্ডিশন হতে পারে, এই গরমের মধ্যে ভালো জায়গায় বল করা, মনযোগ থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমার মনে হয় আগামী দিন আরও একটা দিন বাকি আছে ম্যাচ অনুশীলনে অভ্যস্ত হওয়ার জন্য। আমার বিশ্বাস যে আমাদের বোলাররা খুব তাড়াতাড়ি অভ্যস্ত হতে পারবে, টেস্ট ক্রিকেটের আগে প্রস্তুতির জন্য যথেষ্ট কাজে লাগবে।

Related posts

মুখোমুখি পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা

News Desk

২ রানে সাকিবের বিদায়, ১৫ রানে ৪ উইকেট নেই মোহামেডানের

News Desk

সিনিয়রদের থেকে শিখছি: মিরাজ

News Desk