free hit counter
খেলা

ডাচদের কাছে হেরে সেমির লড়াই থেকে ছিটকে গেলো জিম্বাবুয়ে

টি-২০ বিশ্বকাপের নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে নেদারল্যান্ড। বুধবার (২ নভেম্বর) অ্যাডিলেড ওভালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে নেদারল্যান্ডকে ১১৮ রানের টার্গেট দেয় জিম্বাবুয়ে। মাত্র ৫ উইকেট হায়িয়ে জয়ের দেখা পায় নেদারল্যান্ড।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি জিম্বাবুয়ের ব্যাটাররা। ডাচ বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে চার বল বাকি থাকতেই ১১৭ রানে অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবুয়ে।

ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ওপেনার ওয়েসলি মাধভিরেকে হারিয়ে প্রথম ধাক্কা খায় জিম্বাবুয়ে। ৫ বলে ১ রান করেই ডাচ পেসার অল ভ্যান মেকেরেনের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন জিম্বাবুইয়ান ওপেনার। চতুর্থ ওভারে এসে ফিরে যান অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন।




 

পাওয়ার প্লে’র শেষ বলে জিম্বাবুয়েকে আরও বিপদে ফেলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন রেজিস চাকাভা। জিম্বাবুয়ের রান তখন মাত্র ২০। পাওয়ার প্লে’তেই ৩ উইকেট হারিয়ে ততক্ষণে ধুঁকছে জিম্বাবুয়ে।

সেখা থেকে দলকে টেনে তলার চেষ্টা করেছেন শন উইলিয়ামস আর সিকান্দার রাজা। দুজন মিলে পরতের ৩৫ বলে গড়েছেন ৪৮ রানের জুটি। ১২তম ওভারে এসে ২৩ বলে ২৫ রান করা উইলিয়ামসকে ফেরান পল ভ্যান মেকেরেন। পরের ওভারে মাত্র ২ রান করেই ফিরে যান মিল্টন শুম্বা।




 

সঙ্গী হারালেও ডাচ বোলারদের ওপর ছড়ি ঘোরানো অব্যাহতই রেখেছিলেন রাজা। ব্রায়ন্ডন গ্লোভারের ১৪তম ওভার থেকে ১ ছক্কা ১ চারে নেন ১৪ রান। তবে জিম্বাবুয়ে সবচেয়ে ভবড় ধাক্কাটা খেয়চ্ছে ১৫তম ওভারে রাজা আউট হয়ে গেলে। বাস ডি লিডের বলে লং অনে ফ্রেড ক্লাসেন নিয়েছেন ৩ চার আর ৩ ছক্কায় ২৪ বলে ৪০ রান করা রাজার ক্যাচ। জিম্বাবুয়ের রান তখন ৬ উইকেটে  ৯২। 



এরপর ২৫ রান তুলতেই নিয়মিত বিরতিতে বাকি ৪ উইকেট হারিয়েছে জিম্বাবুয়ে। ইনিংসের চার বল বাকি থাকতেই ১১৭ রানে অলআউট হয়েছে জিম্বাবুয়ে। 

নেদারল্যান্ডের হয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন পল ভ্যান মেকেরেন। আর লোগান ভ্যান বিক, ব্র্যান্ডন গ্লোভার ও বাস ডি লিড সবাই নিয়েছে ২ উইকেট করে। 



১১৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় নেদারল্যান্ড। দলীয় ১৭ রানে স্টিফেন মাইবার্গের উইকেট হারায় তারা। ৭ বলে মাত্র ৮ রান করে আউট হন মাইবার্গ। এরপর দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ম্যাক্স ও’ডাউড ও টম কুপার মিলে ৭৩ রানের জুটি গড়ে শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে দলকে জয়ের পথেই রাখে। দলীয় ৯০ রানে ২৯ বলে ৩২ রান করে জঙ্গউয়ের বলে ওয়েসলি মাধভিরেকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান টম কুপার। 



কুপারের ফেরার পর কিছুটা খেই হারায় ডাচরা। দলীয় ৯১ রানে ক্রিজে এসেই আউট হন কলিন অ্যাকারম্যান। ৫ বলে মাত্র ১ রান করে আউট হন তিনি। এর মাঝে নিজের অর্ধশতক পূরণ করেন ম্যাক্স ও’ডাউড। দলীয় ১০৯ রানে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৭ বলে ৫২ রান করে আউট হন তিনি। ম্যাক্স ও’ডাউড আউট হলেও বাস ডি লিড ও স্কট এডওয়ার্ডসের ব্যাটে ভর করে জয়ের পথেই থাকে নেদারল্যান্ড। জয় থেকে মাত্র ২ রান দূরে থাকতে আউট হন স্কট এডওয়ার্ডস। ৬ বলে মাত্র ৫ রান করে সাজঘরে ফিরে যান তিনি। 



তবে ফন ডার মারউইকে সঙ্গে নিয়ে ১২ বল হাতে রেখে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে বাস ডি লিড। ১২ বলে ১২ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। জিম্বাবুয়ের পক্ষে রিচার্ড এনগারাভা ও ব্লেসিং মুজারাবানি নেন ২টি করে উইকেট। এই ম্যাচ হেরে সেমিফাইনালের লড়াই থেকে ছিটকে গেলো জিম্বাবুয়ে। 

Source link

Bednet steunen 2023