Image default
খেলা

জিতলেই সিরিজ বাংলাদেশের

ধ্বংসস্তূপ থেকে দলকে টেনে আগেরদিন জয়ের মুকুট পরানো আফিফ হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ এখন জাতীয় বীর। অনুশীলনের সময় বৃহস্পতিবার সবাই খুঁজছিল ওই দুটি মুখ। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তাদের পাওয়া গেল না। তাতে সবাই হতাশ।

নিজেদের তরতাজা রাখতে তারা হোটেলে থাকাটাকেই শ্রেয় মনে করেছেন। পরশু প্রথম ওডিআইতে ইতিহাস তৈরি করেছেন আফিফ-মিরাজ। ওয়ানডে ক্রিকেটে দেশের মাটিতে বাংলাদেশই যে সেরা, সেটা প্রমাণ করে এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জিততে চান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

সিরিজ জয়ের সঙ্গে ইংল্যান্ডকে টপকে বাংলাদেশের সামনে ওয়ানডে সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে ওঠার সুযোগ। এক ঢিলে দুই পাখি মারতে প্রস্তুত টাইগাররা। ম্যাচটি শুরু হবে বেলা ১১টায়।

উইকেট বিলিয়ে দেওয়ার মিছিলে প্রথম ওয়ানডেতে মুশফিকুর রহিমও যে ফিরেছিলেন তিন রান করে। সূচিতে অনুশীলন থাকুক আর নাই থাকুক, তিনি যে মাঠে যাবেন সেটা অনেকেই জানতেন। সম্ভাব্য একাদশের আর মাত্র দুজন তামিম ইকবাল ও ইয়াসির আলী রাব্বি অনুশীলনে মুশফিকের সঙ্গী হন।

আজ দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের পুনরাবৃত্তি ঘটানোই লক্ষ্য। ওয়ানডে চ্যাম্পিয়নশিপে ১৩ ম্যাচে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৯০। শীর্ষে থাকা ইংল্যান্ডের পয়েন্ট ৯৫। আজ জিতলেই ১০০ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ শীর্ষে উঠে যাবে। ওয়ানডে সুপার লিগে আফগানিস্তানও ভালো অবস্থায় ছিল। তারা সপ্তম ম্যাচে এসে প্রথম হারের স্বাদ পেয়েছে। প্রথম ওয়ানডেতে আফগানিস্তান যেখান থেকে হেরেছে, সেটা তাদের কল্পনাতেও হয়তো ছিল না।

বিশ্বমানের বোলিং আক্রমণ থাকার পরও তারা আফিফ হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজকে আটকাতে পারেনি। হতাশা চেপে বসেছে দলের মধ্যেও। বাংলাদেশ দলের মতো তাদেরও কাল ঐচ্ছিক অনুশীলন ছিল। দুপুরের পর সেখানে দলের বড় অংশকে দেখা যায়।

বাংলাদেশ দলের কাল সাত ক্রিকেটার অনুশীলনে ছিলেন। বাকিরা আগেরদিনের স্বস্তির জয়ে শান্তিতে হোটেলে সময় কাটিয়েছেন। জিম-টিম করে কাটিয়েছে দল। তবে মাঠের অনুশীলন শেষে কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেন, ‘গতকাল (বুধবার) যা খেলেছি তার চেয়ে আগামীকাল (আজ) আমাদের আরও ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে।

বোলিংয়ে আমরা ১৩টি ওয়াইড দিয়েছি। একটা ক্যাচ মিস করেছি। ৪৫ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে ফেলেছিলাম। প্রতিটি বিভাগেই আমাদের অনেক উন্নতি করতে হবে।’

কোচের ধারণা, বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ বিশ্বমানের। কিন্তু সেটাই হুড়মুড় করে ভেঙে পড়বে সেটা আগে কল্পনাতেই ছিল না টিম ম্যানেজমেন্টের। সব ক্রিকেটার মাঠে না গেলেও টিম ম্যানেজমেন্টের কেউই হোটেলবন্দি ছিলেন না। গ্যালারির এক কর্নারে বসে মাঠে থাকা ডমিঙ্গো, জেমি সিডন্স, খালেদ মাহমুদের পরিকল্পনা পরখ করে নিচ্ছিলেন মিনহাজুল আবেদীন-হাবিবুল বাশাররা।

আগের ম্যাচের একাদশে পরিবর্তনের সম্ভাবনা ক্ষীণ। টিম ম্যানেজমেন্টের ধারণা, কম্বিনেশন ও ব্যাটিং লাইনআপ ঠিকই আছে। বোলারদের ওপরও আস্থা রয়েছে। প্রথম ম্যাচে শুরুতে কিছুটা এলোমেলো বোলিং করলেও পরে গুছিয়ে বোলিং করা হয়। একই সঙ্গে ফিল্ডিংটাকেও কিছুটা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে দল।

আফগানিস্তানের মূল শক্তি বোলিং। ওয়ানডে ফরম্যাটে তাদের বিপক্ষে বড় স্কোর করা যে কঠিন নয়, সেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন মিরাজ-আফিফ। অনুশীলন শেষে অতিথিরা মিডিয়ার মুখোমুখি হতে চাননি। তবে অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহীদি প্রথম ওডিআইতে হারের পর বলেন, ‘আমরা ভালো শুরু করেছিলাম। কিন্তু তারা (আফিফ ও মিরাজ) আমাদের কোনো সুযোগই দেয়নি। আমরা ৩০ রান কম করেছিলাম। সিরিজ সবে শুরু হলো। এখনো দুটি ম্যাচ বাকি। আমরা ভালোভাবে সিরিজে ফেরার চেষ্টা করব।’

Related posts

ইয়োশিনোবু ইয়ামামোটোর রিবাউন্ডিং সূচনা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল কারণ কার্ডিনালরা ডজার্স বুলপেনকে উন্মোচিত করেছিল

News Desk

ওমানের বিপক্ষে শক্তি কমছে বাংলাদেশের

News Desk

৩ উইকেট হারিয়ে চা বিরতিতে গেল বাংলাদেশ

News Desk

Leave a Comment