Image default
খেলা

ছক্কা মেরে ডাবল, ইতিহাসগড়া ইনিংসের অপমৃত্যু রানআউটে

স্বপ্ন, শুধুই স্বপ্ন। ডেভন কনওয়ের স্বপ্নের ঘোর কি কেটেছে! ক্রিকেটতীর্থ লর্ডসে অভিষেক হলো, তারপর যে একের পর এক স্বপ্ন হাতে ধরা দিয়েই গেছে কিউই এই ওপেনারের!

শেষটাতেও স্বপ্ন জড়িয়ে রইলো, তবে দুঃস্বপ্ন। ইতিহাসগড়া এক ডাবল সেঞ্চুরি ইনিংসটির যে অপমৃত্যু ঘটেছে দুর্ভাগ্যজনক রানআউটে!

লর্ডসে সেঞ্চুরি করে অনার্স বোর্ডে নাম উঠানো, প্রতিটি ক্রিকেটারের মনের কোণেই এমন স্বপ্ন লালিত হয় ক্রিকেটের হাতেখড়ি থেকে। কনওয়েরও কি ছিল না? কিন্তু স্বপ্নটা যে সব সীমা ছাড়িয়ে যাবে, নিজেই কি ভাবতে পেরেছিলেন?

লর্ডসে শুধু সেঞ্চুরিই করলেন না। একের পর এক রেকর্ড নিজের করে নিলেন নিউজিল্যান্ডের এই ওপেনার। ক্রিকেটতীর্থে অভিষেক ইনিংসে সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি নিজের করে নিয়েছিলেন আগের দিনই।

এরপর আরও সামনে এগিয়ে গেলেন। তুলে নিলেন লর্ডসে অভিষেকে কোনো ব্যাটসম্যানের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি। সেটাও আবার যেনতেনভাবে নয়, ছক্কা হাঁকিয়ে। বিস্ময়ের সব সীমাই যেন ছাড়িয়ে গেলেন কনওয়ে।

তবে এই বিস্ময়কর ইনিংসটার পরিসমাপ্তি ঘটেছে ডাবল সেঞ্চুরি ছোঁয়ার পরের ওভারেই, দুর্ভাগ্যজনক রানআউটে। নেইল ওয়াগনারের স্ট্রাইক থেকে দুই রান নিতে চেয়েছিলেন কনওয়ে। ডেঞ্জার এন্ডে তিনিই ছিলেন, শেষ পর্যন্ত রানআউট।

৫৭৮ মিনিট ক্রিজে থেকে ৩৪৭ মোকাবেলায় গড়া কনওয়ের ২০০ রানের ইনিংসটি থামলো দুর্ভাগ্যজনকভাবে। যে ইনিংসটি তিনি সাজিয়েছিলেন ২২টি চারের সঙ্গে ১টি ছক্কায়।

নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয়, সবমিলিয়ে সপ্তম হিসেবে অভিষেকে ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন কনওয়ে। লর্ডসে ডাবল সেঞ্চুরি করা ইতিহাসের ১৮তম ব্যাটসম্যান তিনি।

ওপেনিংয়ে নামা কনওয়েই শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হয়েছেন। তাতে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংসও গুটিয়ে গেছে ৩৭৮ রানে।

ইংল্যান্ডের পক্ষে বল হাতে সবচেয়ে সফল আবার আরেক অভিষিক্ত, ওলি রবিনসন। ডানহাতি এই পেসার ৭৫ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। এছাড়া মার্ক উড ৩টি আর জেমস অ্যান্ডারসন নেন ২টি উইকেট।

Related posts

নেই স্টোকস, নতুন দায়িত্ব ব্রডের কাঁধে

News Desk

Pac-12 প্রস্থানে ক্যাল ফুটবল কোচের প্রতিক্রিয়া: ‘সত্যিই হতবাক’

News Desk

মেটস আশ্চর্যজনকভাবে ডিজে স্টুয়ার্টের লিডঅফকে আঘাত করে

News Desk

Leave a Comment