চার ম্যাচের তিনটিতেই অপরাজিত। রান করেছেন ২০৫, গড়ও ২০৫। স্ট্রাইক রেটটাও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সঙ্গে মানানসই-১৫০.৭৩। অক্টোবরে কোহলি ছুটেছেন এভাবেই।

বিশ্বকাপের আগে ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছিলেন ২৮ বলে ৪৯ রানের অপরাজিত রানের ইনিংস। সেটা দিয়েই অক্টোবর মাসের শুরু করেছিলেন। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শুরুটা তো করেছিলেন অবিশ্বাস্যভাবে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে মেলবোর্নে ৯০ হাজার মানুষের সামনে খেলা বিরাট কোহলির সে ইনিংসের মুগ্ধতার রেশ এখনো কাটেনি। সাবেক থেকে বর্তমান, অনেক ক্রিকেটারই এই ইনিংসের প্রশংসা করেছেন। কোহলি নিজেও তাঁর খেলা ৫৩ বলে ৮২ রানের ইনিংসকেই সেরা মানছেন। ম্যাচ শেষে কোহলি তা নিজেই জানিয়েছেন।

অক্টোবরের সেরার লড়াইয়ে কোহলি–মিলার–রাজা

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে করেন ২৩ বলে ৪০ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ভালো করতে না পারলেও বল হাতে এই দুই ম্যাচে নিয়েছেন ৬ উইকেট। বিশ্বকাপে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন তিনবার।

জিম্বাবুয়ের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে গত আগস্ট মাসের সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন রাজা। তবে এই মাসের সেরা হতে মিলার ও কোহলির সঙ্গে কঠিন লড়াই করতে হবে রাজাকে।

Related posts

কাউবয় মালিক জেরি জোনস জ্যাক মার্টিনের চুক্তিতে তার অবস্থান প্রকাশ করেছেন: ‘পার্সনকে অর্থ প্রদানের জন্য আমাদের অর্থের প্রয়োজন’

News Desk

সিরিজ জেতার চেয়েও বাংলাদেশের কাছে যে জিনিসটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ

News Desk

NASCAR এর রায়ান ব্লেনি কাপ সিরিজ চ্যাম্পিয়ন হিসাবে তার পুনরাবৃত্তি করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপগুলি নিয়ে আলোচনা করেছেন

News Desk

Leave a Comment