Image default

সুস্বাদু ও উপকারী সবজি মাশরুম। এটি জায়গা করে নিয়েছে অনেকেরই পছন্দের তালিকায়। মাশরুমে পাওয়া যায় প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন, মিনারেল, প্রোটিন, অ্যামাইনো এসিড ও অ্যান্টিবায়োটিক। মাশরুম রান্না করে, সালাদ কিংবা স্যুপ তৈরি করেও খাওয়া যায়। নিয়মিত মাশরুম খেলে তা ডায়াবেটিস, ক্যান্সার ইত্যাদি মারাত্মক অসুখ সারাতে কাজ করে। এতে শর্করা ও চর্বির পরিমাণ কম থাকে। পাশাপাশি ফাইবার থাকে তুলনামূলক বেশি। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি খুবই উপকারী একটি খাবার। জেনে নিন মাশরুমের ৭টি উপকারিতা সম্পর্কে-

ডায়াবেটিসে উপকারী

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাইলে নিয়মিত মাশরুম খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। এতে আছে পর্যাপ্ত ফাইবার, প্রোটিন, ভিটামিন ও মিনারেল। এসব উপাদান ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী। নিয়মিত মাশরুম খেলে তা রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে। মাশরুমে থাকা এনজাইম ও প্রাকৃতিক ইনসুলিন চিনিকে ভাঙতে সাহায্য করে। ফলে খুব সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায় ডায়াবেটিস।

দূর করে অ্যানিমিয়া

শরীরে আয়রনের অভাব হলে দেখা দেয় অ্যানিমিয়ার মতো সমস্যা। মাশরুমে আছে পর্যাপ্ত আয়রন। এটি অ্যানিমিয়া দূরে রাখতে সাহায্য করে। মাথা ব্যথা, মানসিক চাপ কিংবা স্ট্রেস ও হজমের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে মাশরুম। খাবারের তালিকায় নিয়মিত মাশরুম রাখলে তা অ্যানিমিয়ার ঝুঁকি কমায়।

ওজন নিয়ন্ত্রণে করে

ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে মাশরুম। এতে আছে পর্যাপ্ত ফাইবার যা দীর্ঘ সময় পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে বার বার ক্ষুধা অনুভব হয় না। কম খাবার গ্রহণ মানে ওজনও নিয়ন্ত্রণে থাকা। যারা ওজন কমাতে এবং পেশীবহুল শরীর পেতে চান তারা খাদ্য তালিকায় মাশরুম রাখুন। ফ্যাট সমৃদ্ধ মাংসের বদলে মাশরুম খাওয়া বেশি উপকারী।

হাড় শক্তিশালী করে

হাড়ের শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে মাশরুম। এতে আছে প্রচুর ক্যালসিয়াম। যে কারণে নিয়মিত মাশুরম খেলে তা আমাদের দাঁত ও হাড়ের শক্তি বাড়াতে কাজ করে। মাশরুম খেলে তা বাতের ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে। প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় রাখতে পারেন উপকারী এই সবজি।

সুস্থ রাখে ত্বক

সুস্থ ত্বক পেতে চাইলে নিয়মিত মাশরুম খান। এতে আছে প্রচুর রিবোফ্লাবিন ও নিয়াসিন। এতে পানির পরিমাণ প্রায় ৮০-৯০ শতাংশ। যে কারণে নিয়মিত মাশরুম খেলে তা ত্বককে ভেতর থেকে নরম, কোমল ও সজীব রাখে।

হজমে সহায়তা করে

হজমশক্তি ভালো রাখতে কাজ করে মাশরুম। এতে আছে প্রয়োজনীয় ফাইবার ও এনজাইম যা হজম ভালো রাখতে কাজ করে। এটি অন্ত্রে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার কাজ বাড়িয়ে তোলে। সেইসঙ্গে কোলনের পুষ্টি উপাদান শোষণও বাড়াতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত মাশরুম খেলে বাড়ে হজমশক্তি।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট

আমাদের শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদানের নাম হলো অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। মাশরুমে আছে পলিফেনল ও সেলেনিয়াম নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা শরীরকে নানাভাবে ভালো রাখতে সাহায্য করে। এই প্রয়োজনীয় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট স্ট্রোক, স্নায়ুতন্ত্রের রোগ ও ক্যান্সারের মতো মারাত্মক অসুখ থেকে বাঁচতে সহায়তা করে।

Related posts

হার্টের রোগ থেকে বাঁচতে এড়িয়ে চলুন রেড মিট

News Desk

টেক্সাস এবং ফ্লোরিডায় স্থানীয়ভাবে অর্জিত ম্যালেরিয়া কেস নিশ্চিত করা হয়েছে কারণ সিডিসি কর্ম পরিকল্পনার আহ্বান জানিয়েছে

News Desk

ক্যান্সার এবং রাজকুমারী কেট: সেরা স্বাস্থ্যের জন্য ফোকাস করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্ক্রীনিং

News Desk

Leave a Comment