বাংলাদেশে মাদকাসক্তি একটি বড় সমস্যা৷ মাদক হিসেবে একসময় ফেনসিডিল ও গাঁজার বেশ চল থাকলেও এখন সেই স্থান নিয়েছে ইয়াবা৷ এছাড়া আছে হেরোইন, আফিম, অ্যালকোহল, প্যাথিডিন ইত্যাদি৷ এই মাদকদ্রব্যগুলো আমাদের শরীরে কী ধরণের ক্ষতি করে তা অনেকের অজানা। বাংলাদেশে ইয়াবা, ফেন্সিডিলসহ নানা ক্ষতিকর মাদকে আসক্ত হয়ে প্রতিনিয়তই সুস্থ জীবন থেকে দুরে সরে যাচ্ছে বহু তরুণ, কিশোর-কিশোরীসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষ। চলুন জেনে নেওয়া যাক মাদকের ক্ষতিকর দিকগুলো ।

মানবদেহে মাদকের ক্ষতিকর প্রভাব :ছবিঃ সংগৃহীত
মদ্যপানের ক্ষতিকর দিক:

১. মদ্যাপান করলে প্রথমত গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বাড়ে আর ওই গ্যাস্ট্রিক থেকে পরবর্তীতে আলসার হয়ে যায়।

২. লিভার সিরোসিস ও ক্যান্সার হয়।

ফেন্সিডিল বা হেরোইন সেবনের ক্ষতিকর দিক:

১. অতিরিক্ত ফেন্সিডিল বা হেরোইন সেবনে ফুসফুস/হার্টে প্রদাহ হয়।

২. দীর্ঘদিন সেবনে পুরুষত্বহীনতা বা বন্ধ্যাত্ব দেখা দেয়।

ইয়াবার ক্ষতিকর দিক:

১.ইয়াবা সেবনে স্মরণশক্তি ও মনোযোগ দেওয়ার ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়।

২.দীর্ঘদিনে ইয়াবা সেবনে আত্মহত্যার প্রবণতা দেখা যায়।

৩. যৌনশক্তি নষ্ট হয় ও সেই থেকে বন্ধ্যাত্ব দেখা দেয়।

৪.মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়।

৫.লিভার ও কিডনি নষ্ট হয়ে যায়।

৬. রক্তচাপ বৃদ্ধি পায় এবং এ থেকে হার্ট অ্যাটাক হতে পারে।

৭. ইয়াবা সেবন করা ব্যক্তির মধ্যে কলহ প্রবণতা, আগ্রাসী ও আক্রমণাত্মক মনোভাব দেখা দেয়।

গাঁজা সেবনের ক্ষতিকর দিক:

১.যে বা যারা গাঁজা খায় তাদের ভালো মন্দ বিচার করার ক্ষমতা হ্রাস পায়।

২. দৃষ্টিশক্তি ও স্মৃতিশক্তি হ্রাস পায়।

৩. মতিভ্রম হয়।

ধূমপানের ক্ষতিকর দিক:

১.মুখে ঘা ও ক্যান্সার হয়।

২.ফুসফুসে ক্যান্সার হয়।

৩.হার্ট অ্যাটাক ও মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ হয়।

ইনজেকশনের মাধ্যমে:

অনেকেই ইনজেকশনের মাধ্যমে মাদক গ্রহণ করে। এতে করে এইডস, হেপাটাইটিস বি,হেপাটাইটিস সি হয়।

মাদকাসক্তির পরিণতি অকাল মৃত্যু। এসব ক্ষতিকর দিক বিবেচনা করে মাদক সেবন অবশ্যই বন্ধ করা উচিত।

“তাই আসুন মাদককে না বলি, সুস্থ সুন্দর জীবন যাপন করি।”

 

Related posts

বার্ড ফ্লুতে দূষিত কাঁচা দুধ পান করার পরে টেক্সাসের বিড়াল দুগ্ধ খামারে মারা যায়, সিডিসি সতর্ক করে

News Desk

আমলকিতে আছে ২০ রোগের নির্মূল ক্ষমতা

News Desk

ওয়েস্টার্ন ম্যাসাচুসেটস ওহিওতে শিশু নিউমোনিয়া প্রাদুর্ভাবের সাথে সাথে আরএসভি বৃদ্ধির খবর দিয়েছে

News Desk

Leave a Comment