free hit counter
শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে করণীয়
রূপচর্চা

শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে করণীয়

শীতে শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে ত্বক ও চুলের পাশাপাশি ঠোঁটের অনেক ক্ষতি হয়ে থাকে। তাই আগে থেকে ঠোঁটের পরিচর্যা শুরু করলে ক্ষতি কম হবে। শীতে বাতাসের আর্দ্রতা ক্রমশ কমতে থাকে। শীতকাল মানেই ঠোঁট ফেটে যাওয়া, ঠোঁটে খসখসে ভাব বজায় থাকে। ফলে হাসতে গেলে ঠোঁটে চাপ পড়ে ও ফেটে গিয়ে রক্ত বের হয়। এতে অস্বস্তি লাগে।

অনেকের ঠোঁট অতিরিক্ত শুকিয়ে যায়। তাই চামড়া উঠে রুক্ষ হয়ে যায়। আবার অনেকেই ঠোঁট কামড়ানোর অভ্যাস থাকে। তবে শুকনো ঠোঁটের সমস্যা শুধু শীতকালে না যেকোনো মৌসুমে হতে পারে। শুকনো ঠোঁট দেখতে খারাপ লাগে সেই সাথে শরীরের জন্যও অনেক সমস্যা ডেকে আনতে পারে। এ সমস্যা কি কারণে হয় ও এর সমাধান কি চলুন জেনে নেওয়া যাক।

ভিটামিনের অভাব বা শরীরে ডিহাইড্রেশনের সমস্যা হলেও ঠোঁট শুকিয়ে যায়। তবে ঘরোয়া কিছু নিয়ম মেনে চললে নরম ঠোঁট পাওয়া সম্ভব। এ জন্য প্রতিদিনের খাবার তালিকায় সবজি ও ফল রাখতে হবে।

* ঠোঁটের কোমলতা বজায় রাখার জন্য ১ চা চামচ আতপ চালের গুঁড়া, মধু এক চা চামচ, মসুর ডাল বাটা এক চা চামচ, এ চিমটি হলুদের গুঁড়া ও কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে পাঁচ-সাত মিনিট রেখে ভেজা হাতে সার্কেলও এন্টি সার্কেলভাবে দু’মিনিট ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর ভেজা থাকতেই লিপজেল বেশি পরিমাণে লাগিয়ে দু’মিনিট পর আবার ম্যাসাজ করে মুছে ফেলতে হবে। এরপর লিপস্টিক লাগালে ঠোঁটের কোনো ক্ষতি হবে না। নরম থাকবে ঠোঁট।

* শসায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’ থাকে। ঠোঁট আর্দ্র রাখার জন্য তাই শসা দারুণ কাজে দেয়। শসা পাতলা করে কেটে ঠোঁটে ঘষুন কয়েক মিনিটের জন্য।

* মধু ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে দারুণ কাজ করে। ঠোঁটে মধু ম্যাসেজ করে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। কয়েকদিনের ব্যবহারে দেখবেন ঠোঁটের শুষ্কতা চলে গেছে।

* অলিভ অয়েল, মধু আর চিনি দিয়ে একটি স্ক্রাব বানিয়ে নিন। শুকনো চামড়া এবং মৃত কোষ দূর করতে চিনির জুড়ি মেলা ভার। প্রাকৃতিক স্ক্রাব হিসাবে চিনি ভালো কাজে দেয়। এই স্ক্রাব সপ্তাহে এক দিন করে ব্যবহার করতে পারেন। এই স্ক্রাব লাগানোর পর কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন।

* খাঁটি নারিকেল তেল কয়েক ফোঁটা আঙুলে নিয়ে ঠোঁটে মাসাজ করুন প্রত্যেক দিন। তা হলে ঠোঁট চকচক করবে এবং নরম হবে। কয়েক মিনিট রেখে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলতে হবে।

* শীতে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজযুক্ত লিপস্টিক ব্যবহার করবেন।

* রাতে অবশ্যই ঘুমানোর আগে লিপজেল লাগানোর অভ্যাস গড়ে তুলুন।

* এখন থেকে বেশি শীত পড়ার আগে ঠোঁটের যত্ন নিলে ঠোঁটের ক্ষতি কম হবে।

* বাজারে এখন শীতকালীন সবজি ও ফলমূল পাওয়া যাচ্ছে। এসব সবজি ও ফল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

* এ সময়ে পানি কম খাওয়ার কারণে শরীর শুষ্ক হয়ে যায়। তাই নিয়মিত পানি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। একটু যত্ন নিলে সারা শীতে ঠোঁট ফাটার ভয় আর থাকবে না।

তথ্য সূত্র: কালেরকণ্ঠ, যুগান্তর, উইকিপিডিয়া