free hit counter
আন্তর্জাতিক

মহামারি মোকাবিলায় বৈশ্বিক তহবিল গঠন

ইন্দোনেশিয়ার বালিতে মঙ্গলবার জি-২০ সম্মেলন শুরু হবে

আগামী মঙ্গলবার থেকে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে বিশ্বের বৃহৎ অর্থনীতির দেশগুলোর জোট জি-২০ এর সম্মেলন শুরু হচ্ছে। সম্মেলন শুরুর আগেই স্থানীয় রবিবার (১৩ নভেম্বর) জি-২০- এর স্বাস্থ্য ও অর্থমন্ত্রীরা পরবর্তী মহামারি মোকাবিলায় ১৪০ কোটি মার্কিন ডলারের একটি বৈশ্বিক তহবিল গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন।

যদিও এবারের সম্মেলনের আয়োজক দেশ ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো এই তহবিল প্রসঙ্গে মন্তব্য করে বলেছেন, যে তহবিল গঠন করা হয়েছে, তা যথেষ্ট নয়। খবর-বিবিসির।

দুই বছরের বেশি সময় ধরে করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত বিশ্বের অনেক দেশ। এ ধরনের মহামারি মোকাবিলায় আগে কোনো তহবিল ছিল না। পরবর্তী সময়ে কোনো মহামারি এলে তা কীভাবে মোকাবিলা করা হবে, তা নিয়ে নানা উদ্বেগ রয়েছে।

এ নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সময় ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্টের পাশাপাশি বক্তব্য দেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস ও বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ডেভিড মালপাস।

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট উইদোদো বলেন, জি–২০–এর নেতারা মহামারি প্রতিরোধ ও প্রস্তুতির জন্য একটি তহবিল গঠনে সম্মত হয়েছেন। জি-২০-এর দাতা ও জি–২০–এর সদস্যের বাইরের দেশগুলোর পাশাপাশি বিভিন্ন দাতা সংস্থা এতে সহযোগিতা করছে। কিন্তু তা যথেষ্ট নয়। পরবর্তী মহামারি মোকাবিলায় ৩ হাজার ১০০ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন।

উইদোদো আরও বলেন, মহামারির মুখে আমাদের টিকে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। মহামারি যাতে আর কোনো জীবন কেড়ে নিতে না পারে বা আমাদের বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অবস্থান নড়বড়ে না করতে পারে, তা ঠিক করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন বলেন, বৈশ্বিক সমস্যা মোকাবিলায় জি-২০ কী করতে পারে, তার উদাহরণ হচ্ছে এই যৌথ তহবিল। আমরা যা অর্জন করেছি, তার জন্য আমি গর্বিত। এ বছর আমরা যে পদক্ষেপ নিয়েছি, তা বিশ্ব স্বাস্থ্য অবকাঠামোর বিষয়টি শক্তিশালী করতে সহায়তা করবে।

সম্মেলনের ব্যাপক প্রস্তুতি

এই জি-২০ সম্মেলন রাজধানী জাকার্তার পরিবর্তে বালির একটি রিসোর্টে আয়োজন করছে ইন্দোনেশিয়া। সম্মেলনের প্রস্তুতি হিসেবে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এবারের সম্মেলনে জি-২০-এর নেতাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং, রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভসহ বিশ্বের ক্ষমতাধর অনেক নেতা। জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস থাকছেন পর্যবেক্ষক হিসবে। বালির নুসা দুয়া এলাকায় ১৮ হাজারের বেশি নিরাপত্তা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

জি-২০ সম্মেলন ঘিরে প্রত্যাশা

বিশ্ব এখন একাধিক সংকট মোকাবিলা করছে। জি-২০ সম্মেলন ঘিরে তাই প্রত্যাশা অনেক বেশি। এবারের সম্মেলনে মুখোমুখি হচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং। তারা তাইওয়ান ইস্যু ছাড়াও বিভিন্ন বিষয় সমাধান নিয়ে কথা বলবেন। বিশ্বনেতারা জলবায়ু সংকট, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সম্মেলনে আলোচনা করবেন।

এমকে

Source link

Bednet steunen 2023