free hit counter
আন্তর্জাতিক

তাইওয়ানের পার্লামেন্টে ন্যান্সি পেলোসি, মার্কিন দূতকে তলব চীনের

তাইওয়ান পার্লামেন্টে ভাষণ দিয়েছেন ন্যান্সি পেলোসি

চীনা হুমকির মুখে রাতে তাইওয়ানে নেমে বুধবার সকালে দেশটির পার্লামেন্টে গেছেন যুক্তরাষ্ট্রের স্পিকার ও দেশটির ডেমোক্র্যাটিক পার্টির অন্যতম শীর্ষ ব্যক্তিত্ব ন্যান্সি পেলোসি। পার্লামেন্টে দেয়া ভাষণে তিনি জানিয়েছেন যে যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ানের মধ্যে সংসদীয় আদান-প্রদান তিনি আরও বাড়াতে চান।

একই সঙ্গে তার বক্তৃতায় তিনি তাইওয়ানকে ‘বিশ্বের অন্যতম মুক্ত সমাজ’ আখ্যায়িত করেছেন।

তাইওয়ানের পার্লামেন্টে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম এই শীর্ষ নেতাকে স্বাগত জানান পার্লামেন্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট সাই খাই চং। তার এ সফরের প্রতিবাদ জানাতে বেইজিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। খবর বিবিসির।

তাইওয়ান পার্লামেন্টে ন্যান্সি পেলোসি ১৯৮৯ সালে ছাত্র বিক্ষোভে গণহত্যার দু বছর পর বেইজিংয়ের তিয়ানানমেন স্কোয়ার সফরের স্মৃতির কথা উল্লেখ করেছেন। আমরা সেখানে মানবাধিকার বিষয়ে বিবৃতি দিতে গিয়েছিলাম। আমাদের সফরের বিষয় ছিলো নিরাপত্তা ইস্যুতে। বহু বছর ধরে নিরাপত্তা, অর্থনীতি আর গভর্ন্যান্সই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তাইওয়ান পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকারকে বলেন তিনি।

পার্লামেন্টে ডেপুটি স্পিকারের সঙ্গে বৈঠক ছাড়াও তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের সঙ্গেও সাক্ষাতের কর্মসূচি রয়েছে ন্যান্সি পেলোসির।

এর বাইরে তাইপে’র নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি এবং ব্যবসায়ীদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন তিনি।

সেখানকার গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, তিনি তাইপে’র হিউম্যান রাইটস পার্কে তিন জন সুপরিচিত গণতন্ত্রপন্থী অধিকার নেতার সঙ্গে সাক্ষাত করবেন।

এছাড়া তাইওয়ানের সর্ববৃহৎ শিল্প প্রতিষ্ঠান টিএসএমসির চেয়ারম্যান মার্ক লিউ’র সঙ্গে দেখা করবেন তিনি।

ন্যান্সি পেলোসির তাইপে সফরের প্রতিক্রিয়ায় আরও বেশ কিছু পণ্য তাইওয়ান থেকে আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে চীন।

বুধবার ভোরে চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় তাইওয়ান থেকে বেশ কিছু ফল, দু ধরণের মাছ ও বালু আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়।

এর আগে রাতেই এ ধরণের আরেকটি নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়েছিলো বেইজিং কর্তৃপক্ষ যার আওতায় ছিলো বিস্কুট ও কনফেকশনারী দ্রব্যসহ বেশ কিছু পণ্য।

চীনের সাথে তাইওয়ানের বাণিজ্য সম্পর্ক অনেক গভীর এবং তাইওয়ানের রপ্তানির প্রায় ত্রিশ ভাগই চীনে হয়ে থাকে। দেশ দুটি একে অপরের সবচেয়ে বড় বাণিজ্য অংশীদার।

চীনের সরকারি বার্তা সংস্থার খবর অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে কড়া প্রতিবাদ করেছেন চীনের ভাইস ফরেন মিনিস্টার। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রকে তার ভুলের মূল্য দিতে হবে এবং ওয়াশিংটনকে পেলোসির সফরের প্রতিক্রিয়া সামাল দিতে বাস্তব পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানিয়েছেন।

এসআর

Source link