পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ও ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে ঈদের পর ‘শরিফ মাফিয়া’ চরিত্রহনন প্রচারণা চালাতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি। শরিফ মাফিয়া বলতে তিনি পাকিস্তানে ক্ষমতাসীন নওয়াজ শরিফের পরিবারকে বুঝিয়েছেন। খবর ডনের। . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . . .

গতকাল শুক্রবার মুলতানে এক কর্মিসভায় ইমরান খান বলেন, ঈদের পর শরিফ মাফিয়া তাঁর চরিত্রহননে প্রচারণা চালাবে। তারা অতীতে বেনজির ভুট্টোর বিরুদ্ধেও তাঁর ও তাঁর মায়ের ভুয়া ছবি ছড়িয়ে একই ধরনের প্রচারণা চালিয়েছিল।

পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান বলেন, ‘দুর্নীতিবাজ মাফিয়া’ টাকা দিয়ে প্রথমে জনগণের সমর্থন আদায় করে নেয়। এরপর তারা প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বিরোধীদের তটস্থ রাখে। তিনি বলেন, ‘পুলিশকে ব্যবহার এবং ভুয়া বন্দুকযুদ্ধে বিরোধীদের হত্যার সঙ্গে শাহবাজ শরিফ (বর্তমান প্রধানমন্ত্রী) জড়িত।’

ইমরান খান বলেন, জেমিমা গোল্ডস্মিথের (ইমরানের সাবেক স্ত্রী) বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়েছিল শরিফ মাফিয়া। জেমিমা ইসলাম গ্রহণ করেছিল। তারা তাঁকে ইহুদিদের এজেন্ট আখ্যা দিয়েছিল। তাঁর বিরুদ্ধে প্রাচীন টাইলস রপ্তানির ভুয়া অভিযোগে মামলা করেছিল এবং তাঁকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছিল।

ইমরান বলেন, ‘এক নারীকে (ইমরানের সাবেক স্ত্রী রেহাম খান) ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে আমার বিরুদ্ধে বই লিখতে টাকা দেওয়ার সঙ্গেও তারা জড়িত। এখন ঈদের পর তারা আবার আমার বিরুদ্ধে চরিত্রহননের প্রচারণা শুরু করবে। তাদের প্রতি আমার বার্তা হলো, যত দিন আমি বেঁচে থাকি, তাদের বিরুদ্ধে লড়ে যাব।’

‘ইসলামাবাদ মার্চ’ থেকে আন্দোলনের ডাক
ইমরান খান দ্রুত জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে ‘ইসলামাবাদ মার্চ’–এ অংশ নিতে নেতা-কর্মীদের দিকনির্দেশনা দেন মুলতানের এই কর্মিসভায়। তিনি বলেন, ইসলামাবাদের সমাবেশে অংশ নিতে নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানাতে তিনি পাঞ্জাবে যাচ্ছেন।
ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী জানান, ইসলামাবাদের সমাবেশ থেকে নতুন আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘আমি চাই, দলের সব আইনপ্রণেতা, বিধায়ক, পদধারী ও সমর্থক ইসলামাবাদে যাবেন।’ পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিলে দক্ষিণ পাঞ্জাবকে আলাদা প্রদেশ করারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

ইসলামাবাদের সমাবেশে ২০ লাখ মানুষ অংশ নেবে বলে আগাম ঘোষণা দেন ইমরান খান। তিনি বলেন, দুর্নীতিগ্রস্ত একটি সরকার চাপিয়ে দিতে তাঁর সরকারকে উৎখাতে বিদেশি ষড়যন্ত্রের বিষয়ে তাঁরা বিশ্বকে জানান দেবেন।

পিটিআইয়ের ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মেহমুদ কোরেশি বলেছেন, মে মাস খুবই গুরুত্বপূর্ণ, যখন আন্দোলন তুঙ্গে পৌঁছাবে। ২৯ মে কিলা কোহনা কাসিমবাগে ইমরান খান বিশাল সমাবেশ করবেন।

জাতীয় পরিষদে বিরোধী জোটের আনা অনাস্থা প্রস্তাবে হেরে ৯ এপ্রিল বিদায় নেয় ইমরান খানের সরকার। অনাস্থা প্রস্তাবের নেপথ্যে বিদেশি ষড়যন্ত্র ছিল বলে দাবি করে আসছেন তিনি। দ্রুত নির্বাচন দিতে বাধ্য করতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ক্রিকেট তারকা থেকে রাজনীতিক বনে যাওয়া ইমরান খান।

Related posts

ক্রিমিয়া সেতুতে বিস্ফোরণের জন্য ইউক্রেনকে দায়ী করলেন পুতিন

News Desk

৮০০ কোটি ছাড়িয়ে গেল বিশ্বের জনসংখ্যা

News Desk

ইসরায়েলে অস্ত্র বিক্রি নিয়ে চাপের মুখে বাইডেন

News Desk

Leave a Comment