Image default
আন্তর্জাতিক

গুজরাটের সেই ঝুলন্ত সেতু সংস্কার নিয়ে নানা প্রশ্ন

গুজরাটের সেই ঝুলন্ত সেতু

১৩৭ বছরের পুরনো ঝুলন্ত সেতুটি মেরামত শেষে গত ২৬ অক্টোবর সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার পর কী কারণে ভেঙে পড়ল তা নিয়ে ভারতের গুজরাট রাজ্যে নানা প্রশ্ন উঠেছে। দুর্ঘটনার জন্য স্থানীয় বাসিন্দা ও সাংবাদিকেরা সেতুটি পরিচালনাকারী সংস্থাকে দোষারোপ করছেন। ব্যর্থতার জন্য পুলিশ ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষকেও অভিযুক্ত করা হচ্ছে। খবর-হিন্দুস্তান টাইমসের।

মেরামত নিয়েও অভিযোগ করেছেন অনেকেই। সেতুটি রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার জন্য ২০০৮ সাল থেকে চুক্তিবদ্ধ ওরেভা গ্রুপ। ফার্মটির মালিক জয়সুখ ভাই প্যাটেল। সেতুটি চালুর এক দিন আগে সংবাদ সম্মেলনে জয়সুখ বলেছিলেন, সংস্কার কাজে দুই কোটি রুপি খরচ হয়েছে।

আগামী ৮ থেকে ১০ বছরে সেতুটির কিছুই হবে না। যদি সেতুটি দায়িত্বশীলতার সঙ্গে ব্যবহার করা হয়, তাহলে ১৫ বছরের মধ্যে কোনো মেরামতের প্রয়োজন হবে না।

দুর্ঘটনার পর ওরেভার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ৯ ব্যক্তি গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে দুজন ব্যবস্থাপক, দুজন টিকিট বিক্রেতা, দুজন ঠিকাদার ও তিনজন নিরাপত্তারক্ষী। অপরাধমূলক হত্যাকাণ্ডের অভিযোগে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সেতুটি পরিচালনার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিতে ব্যর্থ হওয়াসহ অন্যান্য অভিযোগও ওরেভার বিরুদ্ধে উঠেছে। স্থানীয় পৌরসভার প্রধান সন্দীপ সিংহ জালা গত সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, সেতুটি পুনরায় চালুর আগে ওরেভাকে নিরাপত্তা সংক্রান্ত ছাড়পত্র দেয়া হয়নি। তবে ঘড়ি তৈরির জন্য পরিচিত একটি কোম্পানিকে (ওরেভা) কেন সেতুটির রক্ষণাবেক্ষণের অনুমতি দেয়া হয়েছিল, তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন।

গত রবিবার সন্ধ্যায় সেতুটি হঠাৎ ভেঙে পড়ে। এ সময় সেতুতে আনুমানিক ৫০০ মানুষ ছিল। ভয়াবহ এই দুর্ঘটনায় ১৪১ জন নিহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তিদের বেশির ভাগই নারী, শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তি।

গুজরাটের মরবির এই ঘটনাকে ভারতের সবচেয়ে বড় ট্র্যাজেডিগুলোর একটি হিসেবে বর্ণনা করা হচ্ছে। সেতু দুর্ঘটনার পূর্ণ তদন্তের প্রতিশ্রæতি দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে একটি বিশেষ তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে।

এমকে

Source link

Related posts

পার্থ-অর্পিতার বিরুদ্ধে পাহাড়প্রমাণ নথি

News Desk

পদত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস

News Desk

রাশিয়ায় সেনা পাঠানোর ঘোষণা চীনের

News Desk

Leave a Comment