free hit counter
এবার বিপর্যস্ত ভারতের পাশে দাঁড়াল ফ্রান্স
আন্তর্জাতিক

এবার বিপর্যস্ত ভারতের পাশে দাঁড়াল ফ্রান্স

এবার করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতের পাশে দাঁড়াল ফ্রান্স। ভারতকে ভেন্টিলেটর, অক্সিজেন এবং আইসিইউ’র জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দেয়ার ঘোষণা করেছে এই দেশ। পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতিতে সবরকমভাবে ভারতের পাশে থাকার আশ্বাসও দিয়েছে তারা।

ফরাসি দূত ইমানুয়েল লিনেন জানিয়েছেন, কয়েকদিনের মধ্যেই ভারতে ৮টি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন অক্সিজেন জেনারেটর পাঠাবে ফ্রান্স। যা বছরজুড়ে ২৫০টি বেডের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারবে। এছাড়াও দুই হাজার রোগীর জন্য তরল অক্সিজেন এবং ২৮টি ভেন্টিলেটর এবং আইসিইউ’র জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পাঠানো হবে ভারতকে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেনও ভারতের এই দুঃসময়ে পাশে দাঁড়িয়েছে। করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক মহলে সাহায্যের আবেদন করে ভারত। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে ভারতে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এরপরেই ভেন্টিলেটর ও অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পাঠিয়েছে ব্রিটেন।

এছাড়াও ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইসরায়েল এবং জার্মানিও ভারতকে সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে ব্রিটেন থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধ ভারতে এসেছে। এছাড়া ১০০টি ভেন্টিলেটর ও ৯৫টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটরও পাঠিয়েছে তারা।

এই মুহূর্তে ভারতকে ৮টি অক্সিজেন জেনারেটর দিয়ে সাহায্য করবে তারা। এই জেনারেটরগুলোর মাধ্যমে হাসপাতালেই অক্সিজেন উৎপাদন করা সম্ভব হবে। খুব তাড়াতাড়ি এসব জেনারেটর ভারতে চলে আসবে। এর আগে সোমবার ৩১৮টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ভারতে পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন জানান, ‘করোনার সঙ্গে লড়াই করার জন্য ভারতকে সবরকমভাবে সাহায্য করতে প্রস্তুত ইংল্যান্ড। বিশ্বকে করোনা মুক্ত করতে যাবতীয় পদক্ষেপ নেবে ইংল্যান্ড।

এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট আরসালা ভন দের লিয়েন জানান, ‘ভারতের পরিস্থিতি নিয়ে আতঙ্কিত। আমরা সব ধরনের সাহায্য করতে প্রস্তুত। ভারতকে করোনা মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ওষুধ, ভেন্টিলেটর দিয়ে সাহায্য করব। আমরা ভারতবাসীর পাশে রয়েছি।’

ভারতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরও খারাপ হচ্ছে। গতকাল সোমবারও দেশটিতে প্রায় ৩ লাখ ২০ হাজার নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে টানা ষষ্ঠদিন সেখানে তিন লাখেরও বেশি মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হলেন।

শুধু আক্রান্তর রেকর্ডই নয়, ভয় জাগাচ্ছে মৃতের সংখ্যাও। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশটিতে টানা সপ্তমদিন দুই হাজারের বেশি মানুষ করোনায় মারা গেছেন।

Related posts

খুলনার তিন হাসপাতালে করোনায় ৭ জনের মৃত্যু

News Desk

রাজশাহী মেডিকেলে ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

News Desk

বাইডেনের করোনার উৎস তদন্তের নির্দেশের সমালোচনায় চীন

News Desk