free hit counter
আন্তর্জাতিক

আর্জেন্টিনাকে হারানোর আনন্দে সৌদিতে রাষ্ট্রীয় ছুটি

ছবি: সংগৃহীত

মধ্যপ্রাচ্যের কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টুর্নামেন্টের হট ফেভারিট আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলে হারানোর আনন্দে বুধবার (২৩ নভেম্বর) সারা দেশে ছুটি ঘোষণা করেছে সৌদি আরব সরকার।

সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, বুধবার সব সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সকল পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ছুটি দেওয়া হবে।

কাতার বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে ২-১ হারিয়ে বড় চমক দেখালো সৌদি আরব। মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) লুসাইল স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল চারটায় সৌদি আরবের বিপক্ষে মাঠে নামে আর্জেন্টিনা। এতে সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোলে হেরে গেছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয় মিনিটেই ডি-বক্সের জটলা ঠেলে মেসির কিক ফেরান গোলরক্ষক। ষষ্ঠ মিনিটে ডি পলকে ফাউল করলে ফ্রি কিক পায় আর্জেন্টিনা। ফ্রি কিকে ডি-বক্সে আর্জেন্টিনার একজনকে ফেলে দিলে পেনাল্টি দেয় রেফারি। পেনাল্টি থেকে গোল করেন মেসি। সৌদি আরবের বিপক্ষে এই প্রথম গোল পান আর্জেন্টিনার অধিনায়ক।

পরে ২০ মিনিটের সময় ডি বক্সের বাইরে থেকে উড়িয়ে মারেন পাপু গোমেজ। ২১ মিনিটে লম্বা করে বাড়ানো বল খুঁজে পায় মেসিকে। অরক্ষিত মেসি গোলরক্ষককে একা পেয়ে গোলও করেন। কিন্তু রেফারি অফসাইডের বাঁশি বাজান। এছাড়া ২৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লাউতারো মার্টিনেজ। সৌদি রক্ষণের ফাঁক খুঁজে নিয়ে অরক্ষিত লাউতারো খুঁজে নেন বল। একা গোলরক্ষককে ফাঁকি দিতে খুব বেশি কষ্ট হয়নি তার। তবে গোলটি রেফারি ভিএআর দেখে অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেন। ৩৫ মিনিটে বাতিল হয় লাউতারো মার্টিনেজের আরও এক গোল। এবারো বাধ সাধে অফসাইড। এর পরে আর গোল না হলে ১-০ গোলে শেষ হয় আর্জেন্টিনা ও সৌদি আরব ম্যাচের প্রথমার্ধ।

বিরতি থেকে ফিরেই ৪৮ মিনিটে গোল করে সমতা আনে সৌদি আরব। দ্বিতীয়ার্ধের তিন মিনিটের মধ্যেই গোল করে দলকে সমতায় ফেরান সৌদি আরবের ফরোয়ার্ড সালেহ আলসেহরি (১-১)। এর চার মিনিট পর ৫২ মিনিটে গোল করে এগিয়ে যায় সৌদি আরব। স্ট্রাইকার সালেম আল দাওসারির দারুণ এক গোল করলে সৌদি আরব এগিয়ে যায় ২-১ গোলে। বাকি সময় আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ চালালেও কেউ আর গোল করতে পারেনি।

তবে ম্যাচের শেষ দিকে প্রায় ১০ মিনিট এবং অতিরিক্ত সময়ে আরও ১০ মিনিট এককভাবে খেলেছে আর্জেন্টিনা। তাদের চেষ্টা ছিল একটি গোল অন্তত করা। কিন্তু দুর্ভাগ্য তাদের। সৌদি আরবের ডিফেন্স এতটাই শক্তিশালী ছিল যে, মেসিদের একের পর এক চেষ্টা বিফলে চলে যায়। এমনকি শেষ মুহূর্তে (ইনজুরি টাইমে) আর্জেন্টিনার নিশ্চিত একটি গোল লাইনে দাঁড়িয়ে হেড করে ফিরিয়ে দেন সৌদির এক ডিফেন্ডার। তবে, দ্বিতীয়ার্ধে সৌদি আরবের খেলা সবার মন জয় করে নিয়েছে।

সৌদি আরবের একাদশ: আল-ওয়াইস, আব্দুল হামিদ, আল-তামবাক্তি, আল-বুলাইহি, আল-শাহরানী, কা্ন্নএশিয়, আল-মালকি, আল-শেহরি, আল-ফারাজ, আল বুরাইকান, আল-দাওসারী।

আর্জেন্টিনার একাদশ: এমিলিয়ানো মার্টিনেজ, নাহুয়েল মোলিনা, ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো, নিকোলাস ওটামেন্ডি, নিকোলাস তাগলিয়াফিকো, রদ্রিগো ডি পল, লিয়ান্দ্রো পারদেস, আলেহান্দ্রো গোমেজ, লিওনেল মেসি, লাউতারো মার্টিনেজ ও অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।

আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, জাতীয় দলের জয় উদযাপনের জন্য যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের একটি পরামর্শ অনুমোদন করেছেন বাদশাহ সালমান। বিজয় উদযাপন করতে বুধবার ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

কেএইচ

Source link

Bednet steunen 2023