free hit counter
আন্তর্জাতিক

আড়াই মাস চলার মতো গ্যাস আছে জার্মানির হাতে

ইউক্রেনে হামলার পর রাশিয়ার উপর গ্যাস-নির্ভরতা কমাতে চাইছে জার্মানি

রাশিয়া থেকে গ্যাস না পেলে জার্মানির আর মাত্র আড়াই মাস চলার মতো গ্যাসের সঞ্চয় আছে।

এখনই সমস্যা হবে না, কিন্তু জার্মান প্রশাসনের চিন্তার কারণ হলো, মাত্র আড়াই মাস চলার মতো গ্যাসের সঞ্চয় আছে তাদের হাতে। রাশিয়া থেকে গ্যাস না নিলে বা না পেলে বিপাকে পড়বে জার্মানি। এই অবস্থায় গ্যাসের দাম তিনগুণ বাড়তে পারে।

বৃহস্পতিবারই গ্যাস কিনতে যে বাড়তি দাম লাগছে, তা ক্রেতাদের উপর চাপিয়ে দেয়ার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। ফেডারেল নেটওয়ার্ক এজেন্সির প্রধান মুলার বলেছেন, যদি জার্মানির কাছে গ্যাসের পুরো সঞ্চয় থাকতো, তাহলে রাশিয়ার গ্যাসের উপর এখন নির্ভর করতে হতো না। কিন্তু হাতে মাত্র আড়াই মাস চলার মতো গ্যাস আছে। তারপরই ট্যাংকগুলি সব খালি হয়ে যাবে। খবর ডয়েচে ভেলের।

তার মতে, জার্মানিকে গ্যাস বাঁচাতে হবে এবং অন্য জায়গা থেকে গ্যাস আনার ব্যবস্থা করতে হবে। অন্য একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, গ্যাসের দাম তিনগুণ বাড়তে পারে।

বৃহস্পতিবার থেকে জরুরি গ্যাস পরিকল্পনার দ্বিতীয় পর্বে প্রবেশ করেছে জার্মানি। সেখানে সরবরাহকারীদের ক্রেতাদের কাছ থেকে বাড়তি দাম নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

মুলার বলেছেন, যদি জার্মানিকে এই পরিকল্পনার তৃতীয় পর্যায় রূপায়ণ করতে হয়, তাহলে ভয়ংকর পরিণতি হবে। তখন গ্যাস রেশন করা হবে, প্রয়োজনভিত্তিক অগ্রাধিকার দিতে হবে।

জার্মানি এবং অন্য ইইউ দেশগুলি রাশিয়া থেকে তেল আমদানি করা নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কিন্তু বার্লিন এখনো রাশিয়া থেকে গ্যাস আমদানি বন্ধ করেনি। নিষেধাজ্ঞাও জারি করেনি।

রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থা গ্যাজপ্রোম জানিয়েছে, নর্ড স্ট্রিমের মাধ্যমে তারা জার্মানিকে যে গ্যাস দেয়, তার সরবরাহ আরো কমিয়ে দেওয়া হবে। তারা ফ্রান্স, ইটালিকেও কম গ্যাস দিচ্ছে।

জার্মানি সম্প্রতি কাতার থেকে গ্যাস আনার জন্য চুক্তি করেছে।

ডি-ইভূ

Source link