free hit counter
বিনোদন

১২ গুণীজনকে সম্মাননা দিলো বাচসাস

দেশের শিল্প-সংস্কৃতি ও চলচ্চিত্র সাংবাদিকতায় অবদান রাখার জন্য ১২ জন গুণীকে সম্মাননা দিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস)।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এই গুণীজন সম্মাননা ও জাঁকজমকপূর্ণ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাচসাস সভাপতি ফালগুনী হামিদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবু।

ইফতারে উপস্থিত ছিলেন বাচসাসের বর্তমান কমিটির সহসভাপতি সৈকত সালাহউদ্দিন, সহসাধারণ সম্পাদক তুষার আদিত্য, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, অর্থ সম্পাদক মঈন আব্দুল্লাহ, আন্তর্জাতিক ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক মাহমুদ মানজুর, সমাজকল্যাণ ও মহিলাবিষয়ক সম্পাদক শ্রাবণী রাখি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক লিমন আহমেদ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মীর সামি, দপ্তর সম্পাদক নিপু বড়ুয়া।

আরও ছিলেন ইব্রাহিম খলিল খোকন, সুদীপ্ত সরকার, শেখ সেলিম, এম এস রানা, দাউদ হোসাইন রনি, জনি হক ও ইসরাফিল শাহিন।

একঝাঁক তারকার উপস্থিতিতে বাচসাসের ইফতার মাহফিল ছিল আলোকিত। শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চনের নেতৃত্বে ছিলেন নিপুণ আক্তার, নিরব, অঞ্জনা, শাহনূর, জেসমিন, আজাদ খান, অধরা খান, কায়েস আরজু, ডি এ তায়েব। আরও ছিলেন শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবীব নাসিম, সাধারণ সম্পাদক রওনক হাসান, অনুষ্ঠান সম্পাদক রাশেদ মামুন অপু। অভিনেতা আজিজুল হাকিম, মুকিত জাকারিয়া, আইরিন তানি, সংগীতশিল্পী লোপা হোসাইনসহ একঝাঁক তারকা এসেছিলেন চলচ্চিত্র সাংবাদিকদের আমন্ত্রণে।

বাচসাসের সাড়ে তিন শতাধিক সদস্যসহ সামগ্রিক ছয় শতাধিক উপস্থিতি গুণীজন সম্মাননা ও ইফতার মাহফিলকে দিয়েছে পূর্ণতা। সঞ্চালনায় ছিলেন সৈকত সালাহউদ্দিন।

এবার গুণীজন সম্মাননা পেয়েছেন চলচ্চিত্রে অভিনেতা ও পরিচালক-প্রযোজক আলমগীর, নির্মাতা ছটকু আহমেদ ও চিত্রগ্রাহক আব্দুল লতিফ বাচ্চু; টেলিভিশন ও মঞ্চ নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান ও নাট্যব্যক্তিত্ব আসাদুজ্জামান নূর; সংগীতে সংগীতশিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদী, সংগীতশিল্পী রুনা লায়লা ও গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার; সাংবাদিকতায় সাংবাদিক-গবেষক রফিকুজ্জামান, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও সাংবাদিক শহিদুল হক খান এবং চলচ্চিত্র গবেষক ও সাংবাদিক অনুপম হায়াৎ।

রুনা লায়লা, আসাদুজ্জামান নূর ও শহিদুল হক খান ছাড়া বাকি সবাই সশরীরে উপস্থিত হয়ে সম্মাননা গ্রহণ করেন। উপস্থিত না হতে পারলেও তাঁরা এই সম্মাননার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির প্রতি কৃতজ্ঞতা। আমি শুধু একটা কথাই বলব, সাংবাদিক ভাইয়েরা চলচ্চিত্রের পাশাপাশি নাটকেরও সমালোচনা করবেন। আমাদের এখানে নাটকের সমালোচনা করার জায়গাটা খুবই দুর্বল।’

অভিনেতা আলমগীর বলেন, ‘আগেও আমি বাচসাস থেকে সেরা অভিনেতার পুরস্কার ও আজীবন সম্মাননা পুরস্কার পেয়েছি, এবার পেলাম গুণীজন সম্মাননা। বাচসাসের সবাইকে ধন্যবাদ আমাকে গুণীজন হিসেবে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য।’

Source link