Image default
বিনোদন

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বানানো সিনেমা স্ফুলিঙ্গ দর্শক কতটুকু টানতে পারলো?

দেশের সামগ্রিক অবস্থা বিবেচনা করে এই সময়ে সিনেমা হলে অনেকদিন পর কোন সিনেমা আসছে, সেটাও আবার স্বাধীনতার সপক্ষে বানানো। স্বভাবতই সিনেমার প্রতি আগ্রহ তুঙ্গেই থাকার কথা। তার উপর গল্পের প্লট এমন ভাবে সাজানো, যেখানে তরুন প্রজন্মের সাথে মুক্তিযুদ্ধের একটা মেলবন্ধনের দারুন চেষ্টা। উপুর্যুপরি আবার মিউজিক্যাল সিনেমা। সব মিলিয়েই চমৎকার একটা আবহ।

ছবি: সংগৃহীত

তবে এক্ষেত্রে তৌকিরের স্ফুলিঙ্গ কিছুটা দুর্ভাগা। ৫০তম স্বাধীনতার বছর উপলক্ষে দেশে ভিআইপি’র আগমনে চলাচলে কিছুটা শিথিলতা আনার কারনে মুক্তির দিনের আশেপাশে কিছুটা দর্শক হারিয়েছে স্ফুলিঙ্গ। এরপর আবার হুট করে বেড়ে গিয়েছে করোনার প্রকোপ। এই দুই মিলিয়ে সিনেমার ভাগ্যের আকাশে মেঘ জমেছে কিছুটা। আশাকরি এমন অবস্থা থেকে শীঘ্রই মুক্ত হবে দেশ। স্বাধীনতার মাসে, স্বাধীনতার সিনেমায় ডুব দিবে সবাই।

সিনেমার বিষয়বস্তু সম্পর্কে আগেই বলেছি তাই এবার বলি এই সিনেমায় ব্যবহার করা গানগুলো নিয়ে। শুরুতেই জর্জ হ্যারিসনের গাওয়া গানের ব্যবহার সম্পর্কে। আমার স্মৃতি ভুল না করে থাকলে বাংলাদেশের কোন সিনেমা ফিকশনে এই গানের ব্যবহার কখনোই করা হয়নি। সত্যি বলতে আজকে সিনেমা হলে যখন এই গানের ব্যবহার দেখেছি তখন সত্যিই মুগ্ধ হওয়া ছাড়া আর কোন উপায় ছিলো না। এতোদিন পর আমাদের স্বাধীনতার এমন একটা অধ্যায় কে ব্যবহার করার জন্য সিনেমা সংক্রান্ত সবাই একটা ধন্যবাদ পেতেই পারেন, আমার কাছে তো অবশ্যই মন থেকে ধন্যবাদ তাদের।

এ ছাড়াও ব্যান্ডদলের প্র‍্যাক্টিসের সময়ে ব্যবহার করা গানগুলো চমৎকারভাবেই প্লেসমেন্ট ছিলো। সত্যি বলতে সিনেমায় ব্যবহৃত গানের চেয়ে ওগুলোই মনে ধরেছে বেশি করে। সিনেমায় ছাত্র রাজনীতি, জামায়াতের কিঞ্চিত ব্যবহার, শিক্ষক দুর্নীতি, প্রশ্নফাঁস, মুক্তিযুদ্ধের ভয়াবহতা, লাভ ট্র‍্যায়াঙ্গেল, কোর্টরুম ড্রামাসহ সবই করার একটা প্রচেষ্টা লক্ষ্য করা যায়। মুক্তিযুদ্ধের সময়কার একটা স্থিরচিত্রের রিক্রিয়েট বিশেষ করে লক্ষনীয়।

সিনেমা হিসেবে কেমন সেটা হয়তো আপনাকে সিনেমা হলে গিয়ে জানতে হবে, বুঝতে হবে। বাইরে থেকে অনেক কিছুই বলা যায় কিংবা লেখাও যায়। তবে সিনেমার বানানোর এই চেষ্টাকে অন্তত সম্মান জানানো যায়ই। অন্তত এই সিনেমার মঙ্গার দেশে যে সিনেমা হচ্ছে এইতো বেশি। দিন শেষে এটুকু অন্তত বলাই যায়, দেশের সামগ্রিক অবস্থার ভেতর যদি সিনেমা মুক্তির দিনক্ষণ না পড়তো তাহলে হয়তো স্ফুলিঙ্গ আরো এগিয়ে যেতো।

সংগৃহীত: ফেসবুক ©সাইদুর বিপু

Related posts

‘গোপীচাঁদ মালিনেনি’ ছবিতে তৃষার সঙ্গে রোমান্স করবেন বালাকৃষ্ণ

News Desk

উদয় চোপড়ার সঙ্গে ‘প্রেম’ নিয়ে যা বললেন নার্গিস

News Desk

বেলা বোসের ঠিকানা জানালেন অঞ্জন দত্ত

News Desk

Leave a Comment