free hit counter
বিনোদন

পরপর তিনবার বিচারক পূর্ণিমা

অভিনয় আর উপস্থাপনার বাইরে বিচারক হিসেবেও দেখা গেছে পূর্ণিমাকে। রন্ধনশিল্পীদের নিয়ে প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান ‘সেরা রাঁধুনী’র গত দুই আসরে বিচারক ছিলেন তিনি। এবার বিচারক হিসেবে হ্যাট্রিক হচ্ছে পূর্ণিমার। জানা গেছে, শিগগিরই শুরু হচ্ছে সেরা রাঁধুনীর ৭ম আসর। আর এতে তৃতীয়বারের মতো বিচারকের আসনে বসবেন পূর্ণিমা।

এ উপলক্ষে আজ সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন পূর্ণিমা। তিনি বলেন, ‘এটা একটা অন্য ধরনের কাজ। দারুণ উপভোগ করি আমি। দারুণ দারুণ সব রান্না টেস্ট করার সুযোগ পাই। তাই তৃতীয়বারের মতো এই সুযোগ পেয়ে হাতছাড়া করলাম না।’

সংবাদ সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা পারভেজ সাইফুল ইসলাম। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের বিপণন বিভাগের প্রধান ইমতিয়াজ ফিরোজ, মিডিয়াকম লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও মাছরাঙা টেলিভিশনের নির্বাহী পরিচালক অজয় কুমার কুন্ডু, প্রতিযোগিতার তিন বিচারক শেফ শুভব্রত মৈত্র, রন্ধন বিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা রীতা ও অভিনেত্রী দিলারা হানিফ পূর্ণিমা।

জানা গেছে, ‘রান্নার জগতে হয়ে উঠুন উজ্জল তারকা’—এই স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে শুরু হয়ে গেছে সেরা রাঁধুনীর ৭ম আসরের রেজিস্ট্রেশন। দেশের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে থাকা নানা রকম রান্নায় পারদর্শী রাঁধুনীদের খুঁজে বের করার এই প্রতিযোগিতা প্রচারিত হবে মাছরাঙা টেলিভিশনে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত অতিথিরা। ছবি: আজকের পত্রিকা প্রতিযোগিতাটির রেজিস্ট্রেশন আজ থেকে শুরু হয়ে চলবে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত। ১৮ বছরের বেশি বয়সী যেকোনো বাংলাদেশি নারী-পুরুষ এতে অংশ নিতে পারবেন। প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে হলে প্রতিযোগীকে নিজস্ব রেসিপি (ওয়ার্ড ফাইল বা স্পষ্টাক্ষরে হাতে লেখা রেসিপির ছবি), তৈরিকৃত খাবারের ছবি এবং প্রতিযোগীর ছবি ও অন্যান্য তথ্য দিয়ে সেরা রাঁধুনীর নিজস্ব ওয়েবসাইট www.sheraradhuni.com-এ সাবমিট করতে হবে। অথবা সরাসরি ডাকযোগে বা কুরিয়ারে এসএফবিএল টাওয়ার, রোড-২৭, ১১/সি, বনানী, ঢাকা ১২১৩ -এই ঠিকানায় পাঠিয়েও রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

সেরা রাঁধুনী বাছাইয়ের জন্য পুরো বাংলাদেশকে ৮টি আলাদা অঞ্চলে ভাগ করে অনুষ্ঠিত হবে অডিশন রাউন্ড। এরপর আরেকটি প্রতিযোগিতার পর স্টুডিও রাউন্ডের জন্য নির্বাচিত প্রতিযোগীদের বেছে নেওয়া হবে। স্টুডিও রাউন্ডে প্রতিযোগিতার নানা ধাপে প্রতিযোগীদের ভিন্ন ভিন্ন ঘরানার রান্নায় পারদর্শিতা যাচাইয়ের পাশাপাশি রান্না পরিবেশনা, নিজেকে উপস্থাপন, বাচনভঙ্গি, ব্যক্তিত্ব, বিক্রয় দক্ষতা, নেতৃত্বগুণ, খাবারের ব্যবসা চালানোর ক্ষমতা, বিভিন্ন পরিস্থিতি সামলানোর ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক বুদ্ধি ও দক্ষতা প্রয়োগের ক্ষমতার উপর ভিত্তি করে নির্বাচিত হবেন সেরা রাঁধুনী। পুরস্কার হিসেবে তিনি জিতে নেবেন পনেরো লাখ টাকা। প্রথম ও দ্বিতীয় রানারআপ পাবেন যথাক্রমে দশ লাখ ও পাঁচ লাখ টাকা।

Source link