free hit counter
বিনোদন

‘ঘুম ঠিক করতে গাঁজা খেতেন আরিয়ান’

২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রে পড়ার সময় গাঁজা খাওয়া শুরু করেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খান। ভারতের নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো-এনসিবির বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ইকোনমিক টাইমস।

এনসিবির তদন্তকারী কর্মকর্তা আশিস রঞ্জন প্রসাদের কাছে এ বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক বিবৃতি দিয়েছিলেন আরিয়ান। মাদক মামলার চূড়ান্ত চার্জশিটে এই বিবৃতি শুক্রবার বিশেষ আদালতে জমা দিয়েছে এনসিবি। যদিও এ মামলায় ইতিমধ্যে আরিয়ান খালাস পেয়েছেন।

এনসিবি কর্মকর্তাকে আরিয়ান বলেন, ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রে পড়ার সময় তিনি ঘুমের সমস্যায় ভুগছিলেন এবং তিনি ইন্টারনেটে বিভিন্ন প্রতিবেদন পড়েছিলেন, যেখানে বলা হয়েছিল, গাঁজা ঘুমের ক্ষেত্রে সাহায্য করতে পারে। আরিয়ান জানিয়েছেন, গত সাত-আট বছর ধরে আরবাজ মার্চেন্টের (মামলায় সহ-অভিযুক্ত) সঙ্গে বন্ধুত্ব তাঁর এবং একসঙ্গে গাঁজা ও হাশিশ সেবন করেছেন। আরিয়ান স্বীকার করেন, আরবাজের সঙ্গে দেখা হলে তিনি মাঝেমধ্যেই হাশিশ সেবনের চেষ্টা করতেন। যদিও এটা খুব একটা পছন্দ ছিল না তাঁর।

২০২১ সালের ২ অক্টোবর আরিয়ানকে গ্রেপ্তার করে এনসিবি। ছবি: টুইটার ২০২১ সালের ২ অক্টোবর প্রতীক, মানব ও আরবাজের সঙ্গে কর্ডেলিয়া ক্রুজে পার্টি করতে মুম্বাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রুজ টার্মিনালে (আইসিটি) গিয়েছিলেন আরিয়ান। আরবাজ তাঁর জন্য হাশিশ আনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। আইসিটিতে চেক-ইন পয়েন্ট অতিক্রম করার সময় আরিয়ানকে আটকান আশিস রঞ্জন প্রসাদ। এরপর সেখানে হাজির হন তৎকালীন মুম্বাই জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়ে। যদিও শরীর তল্লাশির সময় আরিয়ানের কাছ থেকে কোনো মাদক উদ্ধার হয়নি।

আশিস রঞ্জন প্রসাদ যখন আরিয়ানকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন যে, তিনি মাদকদ্রব্য নিয়ে কাজ করেন কি না। আরিয়ান জানান, তিনি শুধু গাঁজা বা হাশিশের মতো প্রাকৃতিক ওষুধ সেবন করেছেন। আরিয়ান আরও জানান, আরবাজ অল্প পরিমাণ চরস নিয়ে গিয়েছিলেন। এটা সম্ভবত বান্দ্রা থেকে সংগ্রহ করেছিলেন তিনি। পরে এনসিবি কিছু কিট দিয়ে চরস পরীক্ষা করে একটি থলিতে ভরে সিল করে দেয়।

এরপর আরিয়ানকে গ্রেপ্তার করে এনসিবি। তাঁকে দায়রা আদালতে হাজির করা হয়। আদালত প্রথমে আরিয়ানকে এনসিবি হেফাজতে এবং পরে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠায়। কারাগারে প্রায় এক মাস ছিলেন আরিয়ান। পরে হাইকোর্ট তাঁকে জামিন দেয়। সবশেষ শুক্রবার এনসিবির বিশেষ তদন্তকারী দল মামলা থেকে খালাস দেয় আরিয়ানকে।

আরিয়ান খান সম্পর্কিত পড়ুন:

Source link