free hit counter
বিনোদন

ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে বিস্ফোরক নার্গিস

বলিউড অভিনেত্রী নার্গিস ফাখরি ‘রকস্টার’ সিনেমার হির চরিত্র দিয়ে মানুষের নজর কাড়েন। তারপর একে একে মাদ্রাজ ক্যাফে, ম্যায় তেরা হিরো, হাউজফুলের মতো সিনেমায় দর্শকের মন জিতেছেন। সিনেমার সঙ্গে নিজেকে জড়ানোর আগে নার্গিস ছিলেন সরল-সাদাসিধে মানুষ। ইন্ডাস্ট্রিতে এসে একরকম বিপদে পড়েছিলেন। অনেক কিছুর সঙ্গে মানিয়ে নিতে হয়েছিল তাকে। এখনো অনেক ক্ষেত্রে নিজেকে মানিয়ে নিতে হচ্ছে। নার্গিস এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমি জানতামই না, কীভাবে নতুন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হয়। এতটাই সৎ আর সরল ছিলাম যে, কূটকৌশল বুঝতাম না। কিন্তু মুখ লুকিয়ে থাকলেও যে চলে না। বহু মানুষের সঙ্গে মিশতে হবেবলিউড অভিনেত্রী নার্গিস ফাখরি ‘রকস্টার’ সিনেমার হির চরিত্র দিয়ে মানুষের নজর কাড়েন। তারপর একে একে মাদ্রাজ ক্যাফে, ম্যায় তেরা হিরো, হাউজফুলের মতো সিনেমায় দর্শকের মন জিতেছেন। সিনেমার সঙ্গে নিজেকে জড়ানোর আগে নার্গিস ছিলেন সরল-সাদাসিধে মানুষ। ইন্ডাস্ট্রিতে এসে একরকম বিপদে পড়েছিলেন। অনেক কিছুর সঙ্গে মানিয়ে নিতে হয়েছিল তাকে। এখনো অনেক ক্ষেত্রে নিজেকে মানিয়ে নিতে হচ্ছে। নার্গিস এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমি জানতামই না, কীভাবে নতুন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হয়। এতটাই সৎ আর সরল ছিলাম যে, কূটকৌশল বুঝতাম না। কিন্তু মুখ লুকিয়ে থাকলেও যে চলে না। বহু মানুষের সঙ্গে মিশতে হবে।

 

নিজের খোলস থেকে বেরিয়ে সব রকম পরিবেশে কথা বলতে হবে। যার জন্য প্রয়োজন ছিল লোক দেখানো সৌজন্যবোধ, সেই কাজটা আমি তেমনভাবে পারিনি। আমাকে সবাই বেমানান হিসেবেই চিনেছিল। রোজ পালিয়ে যেতেও ইচ্ছা হতো। বিস্ফোরক নার্গিস আরও বলেন, ইন্ডাস্ট্রির মানুষের তিন রকম সত্তা। তারা কখনো ব্যবসায়ী, কখনো শিল্পী আবার কখনো ঘরোয়া মানুষ। এরমধ্যে ভারসাম্য রেখে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ। টানা ৮ বছর পড়ে ছিলেন মুম্বইয়ে এ অভিনেত্রী। একবারও পরিবারের কাছে ফেরার সময় পাননি।

Bednet steunen 2023