free hit counter
বই ও সিনেমা

ম্যাসেজ, আধুনিক মননে দ্বীনের ছোঁয়া pdf download by মিজানুর রহমান আজহারী

মেসেজ – (মিজানুর রহমান আজহারী)

বই: মেসেজ
লেখক: মিজানুর রহমান আজহারি
প্রকাশনী: গার্ডিয়ান পাবলিকেশন
ক্যাটাগরি: ইসলামিক বই

 

মিজানুর রহমান আজহারী কে চেনেন না এমন কোন ব্যক্তি হয়তোবা এই দেশে খুঁজে পাওয়া যাবে না। তার জনপ্রিয়তার কথা সকলেই জানে, এমনকি নাস্তিকরাও। তিনি তার বিভিন্ন আলোচনায় তরুণদেরকে উদ্দেশ্য করে কথা বলেন। তিনি এই দেশের তরুণদেরকে অন্ধকার জগত থেকে টেনে এনে আলোর সন্ধান দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন।
তিনি তার সামর্থ্যের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে কুরআন ও সুন্নাহর কথামালা তুলে ধরার প্রয়াস নেন জনপদ থেকে জনপদে সেটা কখনো – বাের্ডেআবার কখনো ক্যামেরার সামনে।
তিনি স্বপ্ন দেখেন – ইনসাফ , আদল ও ইহসানের ভিত্তিতে এক উন্নত সমাজ কাঠামোর । তরুণ প্রজন্মকে উজ্জীবিত করার চেষ্টা করেন । বিশ্বাসের ছোঁয়ায়।
তাই তিনি তার সামর্থ্যের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে কুরআন ও সুন্নাহর কথামালা তুলে ধরার চেষ্টা করেন এই বইটিতে।
বইটি প্রকাশ করতে পেরে মিজানুর-রহমান-আজহারী খুবই আনন্দিত।

২০২১ সালের বইমেলায় মেসেজ বইটি দিয়ে নিজেকে বাংলা সাহিত্য দুনিয়ায় যুক্ত করতে পেরে তিনি খুবই আনন্দিত এবং উচ্ছ্বাসিত। তিনি ক্ষুদ্র মানুষ হয়েও প্রতিমুহূর্তে নিত্য নতুন কিছু জানার অবিরাম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, আমি জেনেছি শুনার পাশাপাশি শ্রোতাদের এক বড় অংশ বই পড়তে ভালোবাসে।
তিনি আরওবলেন, সারাদেশে বিভিন্ন সময় আলোচনায় আমি সুনির্দিষ্ট কিছু পয়েন্ট নিয়ে আলোচনা করেছি। আর এই বইয়ের প্রতিটি লেখায় সেইসব আলোচনার নোটইপ্রাথমিক সোর্স।
লেখক হিসেবে মেসেজ বইটি মিজানুর রহমান আজহারির লেখা প্রথম বই।উনিচেয়েছিলাম প্রচলিত তরুন মুননের মত করেই শব্দ প্রয়ােগ করে বিষয়বস্তু সহজে তুলে ধরার জন্য ।
তা করতে গিয়ে কিছু কিছু ক্ষেত্রে যেসব ইংরেজী শব্দগুলাে মানুষ বেশি ব্যবহার করে তা বইটিতে ব্যবহার করেছেন । আমি নিশ্চিত, বইটি পড়তে যত সময়ই নিক না কেন সেটা কারোরই খারাপ লাগবে না , বরং আপনাকে একেকটি পৃষ্টা বইটি শেষ করতে টেনে ধরবে ।
চলুন তাহলে শুরু করা যাক মিজানুর রহমান আজহারীর লেখা বই মেসেজ সম্পর্কে।

ম্যাসেজ :

আধুনিক মননে দ্বীনের ছোঁয়া। বইটি এবারের বইমেলায় তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। লেখক এই বইটিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বারোটি বার্তা তুলে ধরেছেন।
সেজন্য বইয়ের প্রচ্ছদে দেখতে পাবেন You have 12 unread message।
এই বার্তাগুলো লেখকদের হৃদয় ছুঁয়ে যেতে বাধ্য করবে।
নিচে আমরা তার একটু সংক্ষিপ্ত আলোচনা করব।
যেমন এই বইয়ের প্রথম বার্তাটির নাম হচ্ছে কুরআনের মা। যা সূরা ফাতিহা কে বলা হয়। এছাড়াও তিনি আরো 11 টি বার্তা নিয়ে আলোচনা করেছেন বিস্তারিতভাবে। যা বর্তমান সময়ের তরুণ তরুণীদের জন্য যুগোপযোগী।
আমি বিশ্বাস করি এই বইয়ের বার্তাগুলো সঠিক সময়ে তরুণ-তরুণীদের কাছে পৌঁছালে তারা এর থেকে উপকৃত হবে। চলুন তাহলে পড়ে ফেলুন আপনার জীবনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১২ টি। অসাধারণ বার্তা:-

১.কুরআনের মা
২.মুমিনেরহাতিয়ার
৩.কুরআনিকশিষ্টাচার
৪.উমরদারাজদিল
৫.ডাবলস্ট্যান্ডার্ড
৬.উসরিইউসরা : কষ্টেরসাথেস্বস্তি
৭.রেগেগেলেনতো হেরেগেলেন
৮.শাশ্বতজীবনবিধান
৯.স্মার্ট প্যারেন্টিং
১০.মসজিদ : মুসলিমউম্মাহরনিউক্লিয়াস
১১.ঐশীবরকতেরচাবি
১২.বিদায়বেলা

চলুন তাহলে এগুলো নিয়ে একটু বিস্তারিতভাবে আলোচনা করি।

১.কুরআনের মা:

কুরআনের মা বলতে মূলত সূরা ফাতিহাকে বুঝায় অসংখ্য গুণে গুণান্বিত এই ছোট সূরাটি কুরআনের প্রথম সূরা। এই সূরাটি কুরআনের সূচনা হয়েছে। এই সূরার মধ্য দিয়েই খুলে যায় কোরআনের বিস্ময়কর জগতের ধার। মিজানুর রহমান আজহারী এই সূরার বিভিন্ন তাৎপর্য গুরুত্ব এবং বিষয়বস্তু তুলে ধরেছেন।
তাছাড়াও এটি সবচাইতে দামি এবং বরকতময় সূরা।

২.মুমিনের হাতিয়ার:

দুআ হচ্ছে মুমিনের হাতিয়ার। যদিওবা এটি শুধুমাত্র দুই অক্ষরের একটি শব্দ কিন্তু, এই শব্দের ক্ষমতা ব্যাপক। দোয়ার মাধ্যমে মানুষ তার ভাগ্যকে পরিবর্তন করতে পারে। তাছাড়াও মিজানুর রহমান আজহারী এই বইটিতে তুলে ধরেছেন কোরআন হাদিসের আলোকে দোয়া করার পদ্ধতি সমূহ, দোয়া কবুলের সময় এবং দোয়া কবুলের শর্তাবলী। এই সকল বিষয় এই বইটিতে বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেছেন লেখক।

৩.কুরআনিক শিষ্টাচার:

শিষ্টাচার বলতে মূলত মানুষের আদব-কায়দা , মানবিক গুণাবলী এবং আচার-ব্যবহার কে বোঝায়। লেখক এই বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত ভাবে এই বার্তাটিতে আলোচনা করেছেন। শুধু তাই নয় এছাড়াও তিনি অন্যের নিন্দা করা, গীবত করা, অন্যের ব্যাপারে মন্দ ধারণা করা, কারো গোপনীয় বিষয় সম্পর্কে জানার চেষ্টা করা ইত্যাদির কুফল ও পরিত্রাণের উপায় সুনিপুণভাবে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন।

৪.উমর দারাজ দিল:

চতুর্থ বার্তাটিতে লেখক ইসলামের দ্বিতীয় খলিফা হযরত উমর রাঃ সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। উমর রাঃ এমন ব্যক্তিত্বের অধিকারী ছিলেন যে তিনি যে রাস্তা দিয়ে হাঁটতেন শয়তান সেই রাস্তার আশেপাশেও থাকব না। তাছাড়াও মদিনার মুনাফিকরা তাকে যমের মত ভয় পেত। মদিনার মায়েরা তাদের বাচ্চাদের ভয় দেখাতে বলতো ওইযে দেখো উমর আসছে।কী যেন এক হাহাকার… আহা আর একজন উমর চাই আমাদের। আর একটা বলিষ্ঠ হাত।

৫.ডাবল স্ট্যান্ডার্ড:

ডাবল স্ট্যান্ডার্ড বলতে মুনাফিক ব্যক্তিদের বোঝানো হয়েছে। একজন মুনাফিকের চাইতে ঘৃণিত ব্যক্তি আল্লাহ তাআলার দুনিয়ায় আর কেউ নেই। মুনাফিক মানে দ্বিমুখী চরিত্রের লোক। প্রতারক শ্রেণীর এই লোক গুলো সমাজ এবং রাষ্ট্রের জন্য খুবই ক্ষতিকর।
এই পর্বে লেখক মুনাফিকদের কর্ম, আত্নপ্রকাশ, প্রকারভেদ, আলামত, বৈশিষ্ট্য এবং তা থেকে উত্তরণের পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

৬.উসরি ইউসরা :

(কষ্টের সাথে স্বস্তি) দুঃখ-কষ্ট,সমস্যা ,বিপদ-আপদ এগুলো আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। এগুলোকে সাথে নিয়েই আমাদেরকে জীবন পাড়ি দিতে হয়। দিনের আলোর শেষে যেমন রাত আসাটাই স্বাভাবিক ঠি ক তেমনি বিপদ আপদও মানুষের জীবনের এক স্বাভাবিক বাস্তবতা। কিন্তু আমরা তা মেনে নিতে চাই না আমরা মরীচিকার পেছনে ছুটতে থাকি।
বিপদ আপদে পতিত হলে আমরা আমাদের ভারসাম্য হারিয়ে ফেলি। অনেক সময় বলে বসি যে আল্লাহতায়ালা যদি সত্যিকারেই থেকে থাকেন তাহলে কেন আমার এত বিপদ? কেন আমার জীবনে এত দুঃখ কষ্ট? আস্তাগফিরুল্লাহ আমাদের চিন্তা ধারণা গুলো কতোইনা ভয়াবহ। এই পর্বে লেখক এই সমস্ত বিষয় গুলো বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেছেন।

৭.রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন:

এই পর্বে লেখক রাগের ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে তুলে ধরেছেন। যখন আমরা খুব বেশি রাগান্বিত হই তখন শুধু আমাদের পারস্পরিক সম্পর্ক এবং বন্ধুত্ব নষ্ট হয়না পাশাপাশি আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতি হয়।
এই টপিকে তিনি রেগে যাওয়ার ক্ষতিকর দিকগুলো ছাড়াও। রেগে যাওয়ার কারণ, রাগ কমানোর পদ্ধতি।
লেখক এই বিষয়গুলোকে সুনিপুণভাবে তুলে ধরেছেন এই বার্তাটিতে।

৮.শাশ্বত জীবনবিধান:

আজকের এই নৈরাজ্যের পৃথিবীতে আমাদেরকে আশার আলো ছড়িয়ে দিতে হবে। আশা মানুষকে উজ্জীবিত করে অন্যদিকে হতাশা মানুষের হৃদয় কে ধ্বংস করে দেয়। তাই আমাদেরকে ইসলামিক দাওয়াতের ক্ষেত্রে নৈরাজ্যের কথা পরিহার করতে হবে যাতে মানুষ আশাবাদী হয়ে উঠতে পারে এবং মানুষের সাথে কথা বলার সময় তার ভুল এর চেয়ে গুণের কথা বেশি বলতে হবে।

৯.স্মার্ট প্যারেন্টিং:

আল্লাহ তাআলার অসংখ্য নিয়ামত এর মধ্যে অন্যতম নিয়ামত হলো সন্তান। সন্তান পালনে বিভিন্ন ইসলামিক দিকনির্দেশনা এবং ভালো পিতা-মাতা হওয়ার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরেছেন এই টপিকটিতে।

১০.মসজিদ : (মুসলিম উম্মাহর নিউক্লিয়াস)

একজন মুসলিমের কাছে মসজিদের গুরুত্ব এতটাই বেশি যে যার কারণে লেখক মসজিদকে মুসলিম উম্মাহর নিউক্লিয়াসের সাথে তুলনা করেছেন। সমাজে মসজিদের কী কী ভূমিকা রয়েছে ?কিভাবে মসজিদ আবাদ করতে হয়?
এগুলো ছাড়াও মসজিদুল হারাম, মসজিদে নববী ও মসজিদে আকসার গুরুত্ব ও ইতিহাস নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তাছাড়াও কিভাবে মসজিদ কে কাজে লাগিয়ে একটি ইসলামিক সমাজ গঠন করতে হবে তাও লেখক এই পর্বটিতে আলোচনা করেছেন।

১১.ঐশী বরকতের চাবি:

লেখক এই অংশে হালাল-হারামের বিবরণ, রিজিক ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা তুলে ধরেছেন সুনিপুণভাবে ।যা পাঠকদের হৃদয় ছুয়ে যাবে।

১২.বিদায় বেলা:

বিদায় বেলা বলতে মূলত মৃত্যুকে বোঝায়। প্রত্যেক মানুষকে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে।শেষ পর্বে লেখক অবিশ্বাসীদের বিদায়, পরকালের ইন্টারভিউ, শেষ বিদায়, ভালো/খারাপ মৃত্যুর লক্ষণ ট ইত্যাদি বর্ননা করেছেন সুনিপুণভাবে।
যদিওবা লেখক অর্থাৎ মিজানুর-রহমান-আজহারী মেসেজ বইটি লিখেছেন কিন্তু তারপরও তিনি একজন সুভাষী বক্তা। সাবলীল ভাবে কথা বলে তিনি লাখো তরুনের অন্তরে স্থান করে নিয়েছেন।

বিঃ দ্রঃ এই বইটির পিডিএফ প্রসেসিং এর মধ্যে আছে। প্রস্তূত হলেই আমরা দিয়ে দিবো।

 

Bednet steunen 2023