Image default
বাংলাদেশ

সড়কে আজ ব্যক্তিগত গাড়ির দাপট কম

একদিকে কঠোর লকডাউন, তার মধ্যে সকাল থেকে বৃষ্টি। সেই সঙ্গে আবার সাপ্তাহিক ছুটি। সব মিলিয়ে রাজধানী ঢাকার অধিকাংশ সড়ক ফাঁকা। অথচ গতকাল কঠোর লকডাউনের প্রথম দিনেও ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেল দাপিয়ে বেড়াচ্ছিল রাজধানী। তবে সেদিন জরিমানা গুনতে হয় অনেক যানকে। যার পরিমাণ ছিল প্রায় সাড়ে ৪ লাখ টাকার বেশি। তবে আজ সড়কে জরুরি যানবাহন চলতে দেখা গেলেও ব্যক্তিগত গাড়ি ছিল একেবারেই কম।

শুক্রবার (২ জুলাই) সরেজমিনে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর গাবতলী, মিরপুর, আসাদগেট, মোহাম্মদপুর, ধানমন্ডি, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, শাহবাগ, মগবাজার ও শান্তিনগর এলাকা ঘুরে দেখা যায়-এসব সড়কে গাড়ির সংখ্যা কম। যে কয়টি গাড়ি বের হয়েছিল সেগুলোকে আবার পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মধ্যে পড়তে হয়েছে। অন্যদিকে বন্ধ থাকতে দেখা গেছে বেশিরভাগ দোকানপাট। তবে সামান্য কিছু খাবার ও অন্যান্য জরুরি সেবার দোকান খোলা থাকলেও সেগুলো ছিল ক্রেতা শূন্য।

এদিকে কারওয়ান বাজার এলাকায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের দেখা গেছে। তারা যানবাহন থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল। বাইরে বের হওয়ার উপযুক্ত কারণ দেখাতে না পারলে ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছিল। আবার অপ্রয়োজনে বের হলে গুনতে হয়েছে জরিমানা। তবে গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন সেবা প্রতিষ্ঠানের যানবাহন যাতায়াত করতে দেখা গেছে।

মিরপুর ট্রাফিক বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) মো. সোহেল রানা জাগো নিউজকে জানান, সকাল থেকে বৃষ্টির মধ্যেও পুলিশের চেকপোস্ট ছিল কড়া। কিন্তু গতকালের চাইতে আজ মামলার সংখ্যা কম। আজ সড়কে বেশিরভাগ গাড়িই জরুরি চলাচলের জন্য বের হয়েছে। বিনা কারণে গাড়ি নিয়ে বের হওয়ার সংখ্যাটাও কম।

লকডাউন প্রসঙ্গে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রজ্ঞাপনে যাদের বের হওয়ার অনুমতি আছে আজ শুধু তারাই বের হচ্ছেন। তবে ডিএমপি সদস্যরা লকডাউন বাস্তবায়নে মাঠে রয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, কেউ অকারণে ঘর থেকে বের হলে জিজ্ঞাসাবাদ করব। প্রয়োজনে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে ব্যবস্থা নেব। অকারণে বের হলে তাকে দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারা অনুযায়ী গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হবে, যেটি আমরা এর আগে কখনও করিনি। এবার আমরা এই অবস্থান পর্যন্ত যাব। আমরা অত্যন্ত শক্ত অবস্থায় থাকব।

ডিএমপির ট্রাফিক সূত্রে জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার একদিনে রাজধানীতে ২৭৪টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়। আর জরিমানা করা হয় মোট ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৫০ টাকা। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি জরিমানা আদায় করা হয় গুলশান বিভাগ থেকে। মামলা দেয়া হয় ২১টি গাড়ির এবং জরিমানা করা হয় ৮৯ হাজার টাকা।

আর রমনা বিভাগে ৪৫টি গাড়ির মামলায় জরিমানা করা হয় ৭৯ হাজার ৩৫০ টাকা। লালবাগ বিভাগে ৩৭টি গাড়ির মামলায় জরিমানা ৪৮ হাজার টাকা, মতিঝিল বিভাগে ২৮টি গাড়ির মামলায় জরিমানা ৬০ হাজার ২০০ টাকা, ওয়ারী বিভাগে ১৫টি গাড়ির মামলায় জরিমানা ৭০ হাজার টাকা, তেজগাঁও বিভাগে ১২টি গাড়ির মামলায় জরিমানা ২৩ হাজার ৮০০ টাকা এবং উত্তরা বিভাগে ১৮টি গাড়ির মামলায় জরিমানা করা হয় ৬৭ হাজার ৭০০ টাকা।

Related posts

দৌলতদিয়ায় যানবাহনের ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ সারি

News Desk

দোকান ভেঙে খালে পড়লো যাত্রীবাহী বাস, পথচারী নিহত

News Desk

ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে টিকে আছে যশোর ইনস্টিটিউট পাবলিক লাইব্রেরি

News Desk

Leave a Comment