Image default
বাংলাদেশ

সরবরাহ বাড়ায় হিলিতে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম

অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট দেখিয়ে ভারত রফতানি বন্ধ করে দেওয়ায় সারা দেশের ন্যায় দিনাজপুরের হিলিতে অস্থিতিশীল হয়ে উঠে পেঁয়াজের বাজার। তবে দেশীয় নতুন পেঁয়াজ উঠতে শুরু করায় ও সরবরাহ বাড়ায় দাম কমতে শুরু করেছে। এতে খুশি নিম্ন আয়ের মানুষজন। এদিকে, অচিরেই পুরনো এলসির পেঁয়াজগুলো দেশে ঢুকবে। এতে সামনের দিনে দাম আরও কমবে দাবি বিক্রেতাদের।

সোমবার (১১ ডিসেম্বর) সরেজমিন হিলি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ দোকানেই শোভা পাচ্ছে দেশীয় পেঁয়াজ। আর এসব পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা কেজি দরে। দু-একটি দোকানে আমদানিকৃত ভারতীয় পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে যা বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা কেজি দরে। 

হিলি বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেওয়ার পরপরই দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়ে যায়। এক লাফে ৯০ থেকে ৯৫ টাকার পেঁয়াজ ১৮০ টাকা থেকে ২০০ টাকা কেজি উঠে গিয়েছিল। কিন্তু বাজারে দেশীয় পেঁয়াজ উঠতে শুরু করায় গতকাল থেকে আবারও পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে। গতকাল ১৪০ টাকা বিক্রয় হলেও আজ তা আরও কমে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এতে করে আমাদের সুবিধা হয়েছে। সামনের দিনে দাম যেন আরও কমে সেই দাবি জানাচ্ছি।’

অপর ক্রেতা রাজ্জাক হোসেন বলেন, ‘পরশু দিন পেঁয়াজ ২০০ টাকায় উঠে গিয়েছিল। আজকে দাম অনেকটাই কমে এসেছে। ১৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ। দাম কমার কারণে সুবিধা হয়েছে কিন্তু আগের মতো স্বাভাবিক অবস্থায় যদি আসে তাহলে আমাদের মতো নিম্ন আয়ের মানুষজনের জন্য একটু সুবিধা হয়।’

সিরাজুল ইসলাম নামে আরেকজন ক্রেতা বলেন, ‘যেই ভারত পেঁয়াজ রফতানি করবে না খবর প্রচার হলো, তাতেই এক রাতে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে গেলো। যে পেঁয়াজ ৯০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছিল সেই পেঁয়াজ দাম বাড়তে বাড়তে ১৮০ টাকা খেতে হয়েছিল। প্রশাসনের পক্ষ থেকে যদি নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা হতো তাহলে যে যার ইচ্ছেমতো দাম বাড়াতে পারতো না। আমরাও কিছুটা কম দামে পেঁয়াজ খেতে পারতাম।’

হিলি বাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘হঠাৎ করেই ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয়। এর ফলে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম নিয়ে একটা অস্থিতিশীল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। সেটা এখন অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে আসছে দেশীয় পেঁয়াজ বাজারে আসার কারণে। বর্তমানে দেশীয় পেঁয়াজ খুচরাতে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। যত দিন যাবে তত পেঁয়াজের দাম কমে আসবে। কারণ, ক্ষেত থেকে পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। কয়েক দিনের মধ্যেই পুরো মৌসুম শুরু হয়ে যাবে। এতে করে দাম আরও কমে আসবে।’

অপর বিক্রেতা মান্নান হোসেন বলেন, ‘ভারতীয় পেঁয়াজ আমরা বর্তমানে ১৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি। যা দুই থেকে তিন দিন আগে ৮৫ থেকে ৯০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেছিলাম। ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেওয়ায় বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। যার কারণে আমাদেরও বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। যার প্রভাব পড়ছে বাজারে।’

কিছুটা স্বস্তিতে নিম্ন আয়ের মানুষ

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘ভারতের অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকটের কারণে গত শুক্রবার থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারত। এতে করে শনিবার থেকে বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ হয়ে যায়। যার কারণে দেশে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে উঠে। তবে পেঁয়াজ নিয়ে আর বাড়তি কিছু হওয়ার সুযোগ নেই। ইতোমধ্যেই আমাদের দেশীয় পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। আগামী সপ্তাহখানেকের মধ্যে বাজারে পর্যাপ্ত পরিমাণে দেশীয় পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়বে। এতে করে দাম নিয়ে যে অরাজকতার সৃষ্টি হয়েছিল সেটি আর থাকবে না। এ ছাড়া ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের আগে যেসব পেঁয়াজের এলসি খোলা হয়েছিল সেগুলোও তারা রফতানি করবে বলে আমরা জানতে পারছি। অল্প দিনের মধ্যেই সেই পেঁয়াজগুলো দেশে প্রবেশ করবে বলে আমরা ভারতীয় রফতানিকারক মারফত জানতে পেরেছি।’

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, ‘গত শনিবার বন্দর দিয়ে মাত্র ২টি ট্রাকে ৫৯ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। এরপর থেকে বন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। আমদানি বন্ধ হওয়ার ফলে বন্দরের আয় যেমন কমেছে তেমনি বন্দরে কর্মরত শ্রমিকদের আয়ও কমেছে।’

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত রায় বলেন, ‘কেউ যদি কৃত্রিম সংকট বা সিন্ডিকেট করে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি করে তাহলে বিষয়টি তদন্ত করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমরা নিয়মিত খোঁজখবর রাখছি কোনও অভিযোগ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Source link

Related posts

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীর কবজি বিচ্ছিন্ন করল প্রতিপক্ষরা

News Desk

ময়মনসিংহ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২১ জনের মৃত্যু

News Desk

কাপ্তাই হ্রদে পানি কমায় কমেছে বিদ্যুৎ উৎপাদন

News Desk

Leave a Comment