Image default
বাংলাদেশ

শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলেই দেশের উন্নয়ন হয়: এমপি নাবিল

যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ বলেছেন, ‘বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় যেতে কিংবা ক্ষমতা হারানোর সম্ভাবনা থাকলে দেশে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড করে। ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত দেশব্যাপী বোমা হামলা, গ্রেনেড হামলা, আগুনসন্ত্রাস তারই প্রমাণ। ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তাদের সেই অপতৎপরতার আশঙ্কা রয়েছে। সে কারণে আমাদের প্রত্যেককে তাদের ব্যাপারে আরও সচেতন থাকতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) বিকালে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে সরকারি ও সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের ব্যক্তিগত অনুদান মন্দির কমিটির মধ্যে বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

সংগঠনের যশোর লালদীঘি এলাকার কার্যালয়ে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ যশোর সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি শ্রী গোবিন্দ ঘোষ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

কাজী নাবিল আহমেদ আরও বলেন, ‘আমরা বিএনপি-জামায়াত চক্রের উগ্রবাদ দেখেছি। তাদের সময়েই দেশে বাংলাভাই, শায়খ আব্দুর রহমানের মতো উগ্র জঙ্গিদের উত্থান ঘটেছিল। বর্তমানেও তারা দেশকে সেই অবস্থানে নিয়ে যাওয়ার জন্যে ফাঁদ তৈরি করেছে। আমরা সেই ফাঁদে যেন না পড়ি। কারণ, তারা সেই সময় জেলায় জেলায় গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে, রেললাইন উপড়ে ফেলেছে, গাছ কেটে রাস্তায় ফেলে অরাজকতা সৃষ্টি করেছে। তারা ক্ষমতায় এলে আবারও দেশকে তেমন অগ্নিকুণ্ড করে ফেলবে।’

তিনি বলেন, ‘১৯৭২ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশে যে সংবিধান করেছিলেন, তার চার মূলনীতি। সেই চার মূলনীতির অন্যতম একটি হচ্ছে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ। কিন্তু ১৯৭৫ সালে নারকীয় ঘটনার পর দেশে কয়েক দফা অগণতান্ত্রিক সরকার এসেছে। তারা নিজেদের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে সেই সংবিধানকে বারবার কাটাছেঁড়া করেছে। সেসব অগণতান্ত্রিক সরকার বিভিন্ন সময় বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্টে সাম্প্রদায়িক ঘটনা ঘটিয়েছে। বাঙালির চিরায়ত সৌহার্দ্য বিনষ্ট করেছে।’

বক্তব্য রাখছেন যশোর-৩ আসনের মাননীয় এমপি

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলে উন্নয়নের নানা ফিরিস্তি তুলে ধরে এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলেই দেশের উন্নয়ন হয়। দেশের উন্নয়ন আন্তর্জাতিকভাবে মূল্যায়ন হয়। আমাদের সেই অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে ফের জাতির জনকের কন্যাকে যশোরের ৬টি আসন উপহার দিয়ে তার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। আমাদের নেত্রী বলেছেন, ধর্ম যার যার কিন্তু উৎসব সকলের। অর্থাৎ, ঈদ, পুজো, বড়দিন, বৌদ্ধ পূর্ণিমার আনন্দ-উৎসব আমরা সবাই মিলে করবো। তিনি চান অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ।’

অনুষ্ঠানে সদর উপজেলার মোট ১৭৬টি মন্দিরে সরকারি ও সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের ব্যক্তিগত অনুদানের অর্থ মন্দির কমিটির নেতাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মেহেদী হাসান মিন্টু, পূজা উদযাপন পরিষদ জেলা কমিটির সভাপতি শ্রী দীপংকর দাস রতন, সম্পাদক শ্রী তপন কুমার ঘোষ, শ্রী রবিন কুমার পাল প্রমুখ।

Source link

Related posts

আবারো করোনায় মৃত্যু ১০০ ছাড়াল

News Desk

ইসির বিরুদ্ধে মামলা ও বিচার হওয়া উচিত: মির্জা ফখরুল

News Desk

জরুরি ড্রাইভিং লাইসেন্স দেবে বিআরটিএ কাল থেকে

News Desk

Leave a Comment