free hit counter
বাংলাদেশ

মরদেহ কাঁধে নিয়ে বিক্ষোভ

রাজশাহী নগরীতে ছুরিকাঘাতে কিশোর সানি হত্যার ঘটনায় কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের আসামি করে মামলা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে আসামিদের শাস্তির দাবিতে মরদেহ কাঁধে নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন স্বজন ও এলাকাবাসী। সোমবার (৪ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান চত্বরে (রেলগেট) মরদেহ নিয়ে ঘণ্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা।

এতে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ-নওগাঁ মহাসড়ক ও আশপাশের এলাকায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের কয়েকজন কাউন্সিলরের আশ্বাসে তারা ঘরে ফেরেন। আসরের নামাজের পর ওই কিশোরের দাফন সম্পন্ন হয়।

নগরীর দড়িখরবোনা ১৩ ও ১৫নং এলাকাবাসীর ব্যানারে আয়োজিত বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে নিহত কিশোরের আত্মীয় ও প্রতিবেশীরা জানান, হত্যাকাণ্ডের পরপরই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য বিথি মনি, সাবা, মহিন, শাহি, সিফাত, রহিম ও সাফিসহ অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ওই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের দিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টির অপচেষ্টা এর আগেও হয়েছে। এর মূলহোতাসহ আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানানো হয়।

নিহতের মা বলেন, ‘রবিবার আমার ছেলের জন্মদিন ছিল। বন্ধুরা মিলে জন্মদিন পালন করতে গিয়ে একজন আহত হয়। তাকে চিকিৎসা করানোর জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তুলে নিয়ে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ছেলেকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। তিনি ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবার কঠোর শাস্তি চাই।’

বাবা রফিকুল ইসলাম পাখি বলেন, ‘পরিকল্পনা করে আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে। বোয়ালিয়া থানায় হত্যা মামলা করেছি। আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।’

বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা হয়েছে। আসামিদের ধরতে তৎপরতা চলছে।

উল্লেখ্য, রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালে যাওয়ার পথে নিহত সানিকে তুলে নিয়ে হেতেমখাঁ সবজিপাড়া এলাকায় ছুরিকাঘাতে আহত করা হয়। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। নিহত কিশোর রাজশাহী মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম পাখির ছেলে। তাদের বাড়ি মহানগরীর গোরহাঙ্গা রেলগেট এলাকায়। এ বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। তবে কয়েকমাস আগে প্রেমের সূত্র ধরে বিয়েও করে সে।

Source link