free hit counter
বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৪ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ চলছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিন উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। বুধবার (১৫ জুন) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

ইউনিয়নগুলো হলো—সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন, কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়ন, বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিয়াদৌলত ও আইয়ুবপুর ইউনিয়ন।

সকাল ৮টা থেকে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) মূলগ্রাম, দরিয়াদৌলত ও আইয়ুবপুর ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। কোনও ধরনের বিরতি ছাড়াই বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

কালিসীমা উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোট প্রদান শেষে শাহনাজ আক্তার ও রানু বেগম জানান, তারা শান্তিপূর্ণভাবে নিজেদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পেরেছেন।

ভোটার অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন আহমেদ স্বপন বলেন, ‘শান্তিপূর্ণভাবে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পেরেছি এটাই বড় কথা।’

এদিকে সকাল ৯টা থেকে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। শুরুতেই কালিসীমা উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। নারী ভোটারদের উপস্থিতি বেশি। কোনও ধরনের বিরতি ছাড়া বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

চারটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য ও সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য পদে মোট ১৯৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২২ জন, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ১৩৪ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে পদে ৪২ জন।

তিনটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও, কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদে দলীয় প্রতীক ছাড়াই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান জানান, শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণের লক্ষ্যে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন অফিসারসহ মোট পাঁচ জন পুলিশ ও ১৭ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। প্রতিটি ইউনিয়নে এক প্লাটুন বিজিবি সদস্য ও র‍্যাবের একটি পিম দায়িত্ব পালন করছেন। প্রতি তিনটি ওয়ার্ডের জন্য পুলিশের একটি মোবাইল ও স্টাইকিং ফোর্স কাজ করছে। এছাড়া চারটি ইউনিয়নে তিন জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

Source link