free hit counter
বাংলাদেশ

ব্যবসায়ীর বাড়িতে তাণ্ডব, মামলা নিচ্ছে না পুলিশ

চট্টগ্রাম মধ্যরাতে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে ঢুকে তাণ্ডব চালিয়ে স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তবে এ ঘটনায় পুলিশ মামলা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী পরিবার। শনিবার মধ্যরাতে (১৯ জুন) নগরীর চকবাজার থানার মেনোলা বাংলোর ব্যবসায়ী জিহাদ রহমানের বাসায় এ তাণ্ডবের ঘটনা ঘটে। বাড়ির মালিকানা নিয়ে বিরোধের জেরে এমন ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে অভিযোগ বাড়ির বাসিন্দাদের।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাণ্ডব চালিয়ে এবং বাসার সদস্যদের অস্ত্র ঠেকিয়ে লুট করেছে ৫০ ভরি স্বর্ণ, নগদ পাঁচ লাখ টাকা। এ সময় তারা লাইসেন্স করা তিনটি আগ্নেয়াস্ত্র, সাতটি মোবাইল ফোন, টিভিসহ অনেক ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম ও মূল্যবান মালামাল নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীদের হামলায় বাড়ির বেশ কয়েকজন সদস্যসহ আহত হয়েছেন কর্মচারীরাও। সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে দুর্বৃত্তদের পালানোর চিত্র। 

ব্যবসায়ী জিহাদ রহমানের ছেলে হাম্মদ রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মধ্যরাতে বাসায় ঢুকে সন্ত্রাসীরা আমাদের মারধর করেছে। স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে গেছে। তবুও থানা পুলিশ মামলা নিচ্ছে না। শনিবার রাতে এ ঘটনার পর রবিবার থানায় গিয়েছিলাম। পুলিশ বলেছে মামলা নেবে। তবে সোমবার (২০ জুন) আবারও থানায় গেলে চকবাজার থানা পুলিশ মামলা নেবে না বলে জানিয়েছে। এমন তাণ্ডবের পরও থানা পুলিশ মামলা না নিলে আমরা কার কাছে গিয়ে সহযোগিতা চাইবো?’

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত ওয়ার্ড (১৪, ১৫ ও ২১ নম্বর) কাউন্সিলর আনজুমান আরা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, গভীর রাতে অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে তাণ্ডব চালানো হয়েছে। ঘর থেকে টিভি, স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা, লাইসেন্স করা তিনটি অস্ত্রসহ অনেক মূল্যবান জিনিসপত্র লুট হয়েছে। এসব সন্ত্রাসীদের দৃশ্য ধরা পড়েছে বাসার সিসিটিভি ক্যামেরায়। তবু পুলিশ সহযোগিতা না করলে বিষয়টি ভালো হয় না।

তিনি আরও বলেন, জিহাদ রহমানের বাসার জমি নিয়ে একটি পক্ষের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। আদালতে এ নিয়ে মামলাও চলমান। আদালতের রায়ের আগেই সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা এমন তাণ্ডব চালিয়েছে। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চকবাজার থানার ওসি মো. ফেরদৌস জাহান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা খোঁজ নিয়ে দেখেছি ব্যবসায়ী জিহাদ রহমানের বাড়িতে যে ঘটনা ঘটেছে তা ডাকাতি নয়। জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে অর্থাৎ দখল-বেদখলকে ঘিরে এ ঘটনা ঘটেছে। এক পক্ষ দখলে আছে, আরেক পক্ষ দখলে যেতে চান। এটাই বিষয়।

তবে মামলা হচ্ছে না এ অভিযোগ সঠিক নয় বলে দাবি করে ওসি আরও বলেন, থানায় যে কেউ এসে যুক্তিসঙ্গত বিষয় নিয়ে মামলা করতে পারেন। তারা আজও থানায় এসেছেন। তাদেরকে এজাহার লিখে আনতে বলেছি। তারা এজাহার দিলে আমরা এন্ট্রি করে নেবো। 

Source link