free hit counter
বাংলাদেশ

বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। ভারী বর্ষণ ও উজানের ঢলে সদর, ছাতক, দোয়ারাবাজার, তাহিরপুর ও বিশ্বম্ভপুর উপজেলার প্রায় সব বসতঘরে পানি প্রবেশ করেছে। দুর্ঘটনা এড়াতে বন্ধ রয়েছে বিদ্যুৎ সরবরাহ। এতে সুনামগঞ্জ জেলা ও সংলগ্ন এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

সুনামগঞ্জ ও ছাতক পৌর এলাকার প্রধান সড়ক হাঁটু থেকে কোমর পানিতে ডুবে আছে। শহরের প্রধান সড়ক গুলোতে অনায়াসে নৌকা চলাচল করছে। ৬৮ কিলোমিটার দীর্ঘ সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কের পাঁচটি স্থান কোমর পানিতে ডুবে থাকায় সুনামগঞ্জের সঙ্গে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। প্রথম দফা বন্যার রেশ কাটতে না কাটতেই দ্বিতীয় দফার বন্যায় মানুষ চরম বিপাকে পড়েছেন। 

আরও পড়ুন: সুনামগঞ্জে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যা

জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, বন্যার কারণে সুনামগঞ্জ শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। বসতবাড়ির শত শত বৈদ্যুতিক মিটার পানিতে ডুবে গেছে। সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের গোবিন্দগঞ্জ-দিঘলী এলাকা প্লাবিত হয়ে সারাদেশের সঙ্গে সুনামগঞ্জের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। 

সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার প্রকৌশলী সুজিত কুমার বিশ্বাস জানান, বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। সব এলাকা বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। কারণ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন না করলে বন্যাকবলিত এলাকায় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। আর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভেতরেও পানি ঢুকেছে। 

এদিকে বেলা ১১টায় বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক স্ট্যাটাসে জানান, ছাতক ও সুনামগঞ্জ গ্রিড উপকেন্দ্র পাহাড়ী ঢলে প্লাবিত হওয়ায় দুর্ঘটনা এড়াতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করায় সুনামগঞ্জ জেলা ও সংলগ্ন এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সিলেটের কুমারগাঁও গ্রিড উপকেন্দ্রের সুইচইয়ার্ড প্লাবিত হওয়ায় সিলেট অঞ্চলও বিদ্যুৎ বন্ধের ঝুঁকিতে রয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সম্মানিত বিদ্যুৎ গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার জন্য বিদ্যুৎ বিভাগ দুঃখ প্রকাশ করছে। প্লাবন পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ামাত্র বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা হবে।

Source link