বরুড়ায় সম্পত্তির জেরে জোড়া খুন: দুপক্ষের মামলায় আসামি ৩৪
বাংলাদেশ

বরুড়ায় সম্পত্তির জেরে জোড়া খুন: দুপক্ষের মামলায় আসামি ৩৪

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় ১৩ গণ্ডা জায়গার জন্য দুই পক্ষের সংঘর্ষে জোড়া খুনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় দুটি মামলা করা হয়েছে। গত ১ সেপ্টেম্বর সকালের ঘটনার পর রবিবার (৩ সেপ্টেম্বর) মামলা করে দুই পক্ষ। ইতোমধ্যে মামলার এজাহানামীয় দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলো ভবানীপুর ইউনিয়নের পোমতলা গ্রামের মৃত হাজী এরশাদের ছেলে দেলোয়ার হোসেন কালু ও নওয়াব আলীর ছেলে মো. মোস্তফা কামাল। এ সময় দেলোয়ার হোসেন কালুর কাছ থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও চারটি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

এসব তথ্য বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফিরোজ হোসেন।

ওসি বলেন, নিহত খোরশেদের মা ছালেহা বেগম একটি মামলা করেছেন। অপরপক্ষে নিহত সাত্তারের স্ত্রী রোশন আরা বেগম আরেকটি মামলা করেন। আমরা উভয় পক্ষের মামলা নিয়েছি। যেই জমি নিয়ে সংঘর্ষ হয়, দুপক্ষই মামলার এজাহারে ওই জমি তাদের বলে দাবি করেছে।

নিহত খোরশেদের মায়ের করা মামলার আসামি ১৭ জন। এজাহারনামীয় আসামি ৯ জন। তারা হলো জালগাঁও গ্রামের মৃত হাসন আলীর ছেলে নিহত আবদুল সাত্তার, মৃত নওয়াব আলীর ছেলে মো. মোস্তফা কামাল (৪৫). মো. মোস্তফা কামালের ছেলে আল আমিন (২৩), আব্দুল মালেকের ছেলে আবুল কালাম (৩২), পোমতলা গ্রামের মৃত হাজী এরশাদের ছেলে দেলোয়ার হোসেন কালু (৩৮), উত্তর লক্ষ্মীপুর গ্রামের মকবুল আহম্মেদের ছেলে ওয়াহিদ (৩৭), আলোকদিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে বাবলু (৩২), শফিকুর রহমানের ছেলে শুভ (২৫), তালুকপাড়া গ্রামের শফিক মিয়ার ছেলে রুবেলসহ (৩৫) অজ্ঞাতনামা ৮ জন।

অপরদিকে সাত্তারের স্ত্রী রোশন আরা বেগমের করা মামলার আসামিও ১৭ জন। তারা হলো জালগাঁও গ্রামের মো. জামালের ছেলে খোরশেদ (৩২), মো. বাবুলের ছেলে রবিন (২৮), সেকান্দার আলীর ছেলে মোশারাফ হোসেন ওরপে মোরশেদ (৪০), মো. বাবুলের ছেলে ইমন (২০), জামালের ছেলে জহির (২৫), মৃত আবুল হাসেমের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৪৫), মৃত কলিম উদ্দিনের ছেলে সেকান্দর আলী (৬০), মৃত আব্দুল গনির ছেলে জয়নাল (৪৬) ও আজাদসহ (৪০) অজ্ঞাতনামা ৮ জন।

এর আগে ১ সেপ্টেম্বর কুমিল্লার বরুড়ার ভবানীপুর ইউনিয়নের জালগাঁও গ্রামে দুপক্ষের সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়। শুক্রবার সাড়ে ৯টার দিকে জালগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আরও কয়েকজন হাসপাতালে আছে। এ ঘটনায় নিহত হয় জালগাঁও গ্রামের হাসান আলীর ছেলে আবদুল সাত্তার ও জামাল হোসেনের ছেলে খোরশেদ আলম।

আহত ব্যক্তিরা হলেন নিহত খোরশেদের আত্মীয় মো. জহির, মো. জয়নাল ও মো. মোরশেদ।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. খলিলুর জানান, আবদুল সাত্তারের একটি জমি নিয়ে প্রতিবেশী জয়নাল ও তার ভাইদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলে আসছিল। এ ঘটনায় আদালতে মামলাও চলমান। সাত্তার জমিতে কাজ করতে গেলে জয়নাল, খোরশেদ, মোরশেদ ও জহিরসহ কয়েকজন তাদের বাধা দিতে যায়।

এ সময় সাত্তার সঙ্গে থাকা একটি ছুরি দিয়ে চারজনকে এলোপাতাড়ি আঘাত করে। হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায় খোরশেদ। ঘটনা শুনে জয়নালের লোকেরা এসে তাকে এলোপাতাড়ি পিটুনি দিলে সাত্তারও ঘটনাস্থলে মারা যান।

Source link

Related posts

চাচার দাফন করতে গিয়ে লাশ হলেন ভাতিজা

News Desk

‘আমাদের ছাড়াতে এয়ারক্রাফটের মাধ্যমে মুক্তিপণ দেওয়া হয়েছিল’

News Desk

অনলাইনে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কাটার নিয়ম

News Desk

Leave a Comment