Image default
বাংলাদেশ

নেত্রকোনা–ময়মনসিংহ বাস বন্ধ, অটোরিকশা থেকে নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে যাত্রী

নেত্রকোনা থেকে ময়মনসিংহ হয়ে ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। বিএনপির নেতা–কর্মীদের অভিযোগ, ময়মনসিংহে বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে নেত্রকোনা থেকে বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেল থেকে আজ শনিবার সকাল পর্যন্ত নেত্রকোনা-ময়মনসিংহ সড়কে বাস চলাচল করতে দেখা যায়নি।

বাস বন্ধ থাকায় সাধারণ যাত্রীরা বিপাকে পড়েছেন। তাঁরা বিকল্প উপায়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় ময়মনসিংহে যাচ্ছেন। তবে পথে আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরা অটোরিকশা থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাশিগঞ্জ এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা তিনটি অটোরিকশা ভাঙচুর করেছে বলে এক অটোরিকশাচালক অভিযোগ করেছেন।

 

আজ সকাল ১০টার দিকে শহরের পারলা এলাকায় ঢাকা বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। বাসস্ট্যান্ডে ময়মনসিংহগামী অটোরিকশাও কম দেখা গেছে। এর মধ্যে কয়েকটি অটোরিকশা দ্বিগুণ ভাড়া নিয়ে যাত্রী পরিবহন করছে। পারলা বাসস্ট্যান্ড থেকে ময়মনসিংহের শম্ভুগঞ্জ মোড় পর্যন্ত সাধারণ সময়ে অটোরিকশায় যাত্রীপ্রতি ৮০ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়। তবে আজ ১৬০ টাকা থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। তবে রাস্তায় আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরা অটোরিকশা থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

অটোরিকশাচালক রমিজ উদ্দিন বলেন, যাত্রীপ্রতি ১৬০ টাকা করে ভাড়া নিয়ে তিনি ময়মনসিংহের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন। তবে কাশিগঞ্জ এলাকায় তাঁর অটোরিকশা ভাঙচুর করা হয়। পরে যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে তিনি ফিরে এসেছেন।

গতকাল শুক্রবার বিকেল থেকে শহরের ঢাকা বাসস্ট্যান্ড থেকে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি
গতকাল শুক্রবার বিকেল থেকে শহরের ঢাকা বাসস্ট্যান্ড থেকে কোনো বাস ছেড়ে যায়নিছবি: প্রথম আলো
বাস চলাচল বন্ধ থাকায় সাধারণ যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছেন। কলমাকান্দার পোগলা ইউনিয়নের আমবাড়ি গ্রামের আফতাব উদ্দিন ঢাকায় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে তিনি বাড়ি থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়েছিলেন। তবে বাস-অটোরিকশা বন্ধ থাকায় তিনি দুই হাজার টাকায় ইজিবাইক ভাড়া করে ময়মনসিংহের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। সেখান থেকে ট্রেনে তিনি ঢাকায় যাবেন।

বাস বন্ধের বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আরিফ খান বলেন, ‘আমরা কোনো যানবাহন বন্ধ করিনি। বাসচালকেরাই যেতে চাচ্ছেন না।’

পুলিশের তল্লাশিচৌকি

নেত্রকোনা শহর ও এর আশপাশের এলাকায় পুলিশের উপস্থিতি ও তল্লাশি চোখে পড়েছে। এর মধ্যে শহরের মুক্তারপাড়া সেতু, পারলা বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন সাকুয়া এলাকায়, নেত্রকোনা-মোহনগঞ্জ সড়কের রাজুর বাজারে ও নেত্রকোনা-মদন সড়কে বনুয়াপাড়ায় পুলিশের তল্লাশিচৌকি দেখা গেছে।
বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন সাকুয়া এলাকায় দেখা গেছে, পুলিশের তল্লাশিচৌকিতে মোটরসাইকেল, ইজিবাইক থামিয়ে যাত্রীদের তল্লাশি করা হচ্ছে।

নেত্রকোনা জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মো. রফিকুল ইসলাম হিলালী বলেন, ‘বিএনপির সমাবেশ বাধাগ্রস্ত করতে নেত্রকোনা শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়ে আমাদের নেতা-কর্মীদের নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে। সাধারণ মানুষকেও হয়রানি করা হচ্ছে। এ ছাড়া গতকাল শুক্রবার থেকে বাস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।’

নেত্রকোনা পুলিশ সুপার মো. ফয়েজ আহমদ বলেন, বিএনপির সমাবেশে বাধা দেওয়ার উদ্দেশ্যে পুলিশ কোনো তল্লাশিচৌকি বসায়নি। বিভিন্ন পয়েন্টে যেসব পুলিশ আছে, এটা তাঁদের নিয়মিত দায়িত্ব।

 

Related posts

তিস্তা-ধরলার পানি বিপৎসীমার ওপরে, পানিবন্দি কয়েক হাজার পরিবার

News Desk

তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে

News Desk

‘নৌকাতে এসেছে স্বাধীনতা, নৌকাই গড়বে স্মার্ট বাংলাদেশ’

News Desk

Leave a Comment