Image default
বাংলাদেশ

নির্বাচন ঘিরে নিরাপত্তার চাদরে কুমিল্লা

৭ জানুয়ারি ভোট গ্রহণ। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে কুমিল্লাকে। ১৭ উপজেলা, ১৮ থানা মিলে ১১টি সংসদীয় আসন নিয়ে দেশের দক্ষিণের এই গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল। ১১ আসনের ৯৩ প্রার্থী এবার ভোটের মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনকে সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও ভোটারদের ভোট নির্বিঘ্ন করতে এই জেলাকে একরকম নিরাপত্তার চাদরের ঢেকে ফেলা হয়েছে বলে দাবি করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা পুলিশ সুপার।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১১ আসনে ভোটার সংখ্যা ৪৬ লাখ ছয় হাজার ১৯৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২৩ লাখ ৬৪ হাজার ২৬৪ জন, নারী ভোটার ২২ লাখ ৩৯ হাজার ৯০৬ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার ২৪ জন। এই জেলায় সিটি করপোরেশন একটি, পৌরসভা আটটি ও ইউনিয়ন ১৯৩টি। মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা এক হাজার ৪৩৫টি। ভোট কক্ষের সংখ্যা নয় হাজার ৩৮৮টি। অস্থায়ী ভোট কক্ষের সংখ্যা ৪১২টি।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে আরও জানা গেছে, এ জেলার ১১ আসনের ৫০০টি সাধারণ, ৫৬৪টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ৩৭১ টি অধিক ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। যদিও ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোকে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ হিসেবে নজরে রেখেছে জেলা পুলিশ।

এসব কেন্দ্রে এক হাজার ৪৩৫ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও ৯ হাজার ৩০০ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ১৮ হাজার ৬০০ জন পোলিং কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

এসব কেন্দ্রের নিরাপত্তায় ৩২ প্লাটুনে ৬৮২ জন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। র‍্যাব ১৮০ জন ও অতিরিক্ত ৫০ জন মোতায়েন করা হবে। রেললাইনসহ মোট ১৭ হাজার ৫৪০ জন আনসার ব্যাটালিয়ন সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এ ছাড়াও  চার হাজারের বেশি পুলিশ মাঠে কাজ করছে। ১০৫টি পেট্রোলিং টিম জেলার গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে টহলে আছে।

এদিকে, গত ৩ ডিসেম্বর থেকে সারা দেশের ন্যায় কুমিল্লাতেও সেনাবাহিনীর ৩৩ পদাতিক বাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছে। ২৮ জন এক্সিকিউটিভ ও অতিরিক্ত ২৭ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ২৫ জন।

কুমিল্লার সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান বলেন, ‘শুক্রবার থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটের সরঞ্জামসহ কেন্দ্রে নিয়োজিত পুলিশ এবং আনসার সদস্যদের পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে। কেন্দ্রে ব্যালট পাঠানো হবে ভোটের দিন সকালে।’

কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান বলেন, ‘পুলিশ নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলেছে কুমিল্লাকে। আমাদের সাধারণ পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা টিমও থাকবে। মোবাইল ডিউটি, কেন্দ্রভিত্তিক ডিউটি, ডিবি-ডিএসবির ৩০০ এর বেশি গোয়েন্দা, পেট্রোল টিম, স্ট্যান্ডবাই ডিউটিতে পুলিশ নিয়োজিত।’

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান বলেন, ‘যখনই কোনও প্রার্থী অভিযোগ করেছেন, আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। সুষ্ঠু নির্বাচনে বাধা দেওয়ার সুযোগ কারও নেই। মাঠে পর্যাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট, সেনাবাহিনী, র‌্যাব, পুলিশ ও নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা কাজ করছে।’

Source link

Related posts

সন্ত্রাসীর মানবাধিকার নিয়েও কেউ কেউ সোচ্চার: হাছান মাহমুদ

News Desk

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক: যানজট এড়াতে ঘুরতে হচ্ছে ২৯ কিলোমিটার 

News Desk

ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

News Desk

Leave a Comment